নিউইয়র্কে আড্ডায় সাকিব আল হাসান
আমরা বিশ্বকাপ জিততে চাই
অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে জয়ের সুযোগ আছে
আমরা বিশ্বকাপ জিততে চাই
আমরা ক্রিকেট বিশ্বকাপ জিততে চাই। হোম সিরিজে যে কোনো দলের সঙ্গে জেতার সামর্থ্য আমাদের রয়েছে। আশা করি চলতি মাসে অনুষ্ঠিতব্য হোম টেস্ট সিরিজে অস্ট্রেলিয়ার সঙ্গেও জয়ের সুযোগ আছে। তা ছাড়া এখন দেশের বাইরেও ভালো করছি। যুক্তরাষ্ট্রে প্রবাসী বাংলাদেশিদের সঙ্গে আড্ডায় এসব কথা বলেছেন বাংলাদেশি ক্রিকেট তারকা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান। স্থানীয় সময় শুক্রবার রাতে নিউইয়র্কের কুইন্স প্যালেসে বিশ্বসেরা এই ক্রিকেটারকে কাছে পাওয়া এবং তার সঙ্গে মন খুলে আড্ডা দেওয়ার সুযোগ হয় সাংবাদিকদের।

আড্ডায় সাং-বাদিকদের প্রশ্নোত্তর পর্বের মধ্য দিয়ে শুরু হয় সাকিব আল হাসানের সঙ্গে আলাপচারিতা। অনেক নাটকের পর অস্ট্রেলিয়া টিমের বাংলাদেশ সফর প্রসঙ্গে সাকিব বলেন—আমরা ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে জয়লাভ করেছি। আমাদের দারুণ ফর্মের সময়ে অস্ট্রেলিয়া বাংলাদেশে আসছে। তাই  আমরা খুবই উত্ফুল্ল।     বাংলাদেশের         ক্রিকেটের অতীত, বর্তমান এবং ভবিষ্যত্ নিয়ে আরেক প্রশ্নের জবাবে এই ক্রিকেট তারকা বলেন, সাবেকরা আমাদের সিঁড়ি তৈরি করে দিয়েছেন। তারা বাংলাদেশের ক্রিকেটকে একটা পর্যায়ে নিয়ে গেছেন। আমরা আরেকটি পর্যায়ে নিয়ে যাচ্ছি। আগামী প্রজন্ম আরো এগিয়ে নিয়ে যাবে। বড় বড় সাফল্য আনবে।

বাংলাদেশের ক্রিকেটকে কোথায় রেখে যেতে চান এমন প্রশ্নের জবাবে টি-টোয়েন্টি অধিনায়ক বলেন, আশা করছি আরো ১০ বছর জাতীয় দলে খেলতো পারবো। আর আমার টার্গেট বিশ্বকাপ জেতা। বলিউড বাদশাহ এবং কলকাতা নাইট রাইডার্সের মালিক শাহরুখ খানের সঙ্গে সম্পর্ক প্রসঙ্গ উঠলে তিনি বলেন, শাহরুখ খান ভীষণ বন্ধুসুলভ মানুষ। আমার সঙ্গে খুবই ঘনিষ্ঠ। সব সময় তিনি আমার এবং আমার পরিবারের খোঁজ খবর নেন। তাছাড়া তিনি বাংলাদেশ দলের প্রায় সব খেলাই দেখেন।

স্ত্রী শিশিরের সঙ্গে সম্পর্কের শুরু নিয়ে প্রশ্নের জবাবে সাকিব বলেন, ফেসবুকে পরিচয়। প্রথমে মনে করেছিলাম ফেইক (ভুয়া) আইডি। পরে বুঝলাম ভুয়া নয়, আসল।  যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী শিশিরের সঙ্গে প্রথম দেখা হয়েছিল লন্ডনে। আমি ইংলিশ কাউন্টি খেলতে গিয়েছিলাম। দ্বিতীয় বার দেখা সম্পর্কে আমি এখনো কিছু বলিনি, বলতেও চাই না। আত্মজীবনী লিখলে সেদিন সব খুলে বলব। আর তৃতীয় দেখা ঢাকাতে। বলতে পারেন বিয়ে। আমরা খুব তাড়াহুড়া করে বিয়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছি।

আমেরিকায় বাংলাদেশি বংশোদ্ভূতদের ক্রিকেট খেলা নিয়ে তিনি বলেন, আমি জানি এখানে আমাদের অনেক সাবেক খেলোয়াড়রা এসে খেলেন। যারা এখানে ক্রিকেট খেলছেন তাদের ধন্যবাদ জানান। তিনি বলেন, আমেরিকা যত তাড়াতাড়ি ক্রিকেটে ভালো করবে, বিশ্ব ক্রিকেটেরও তত উন্নতি হবে। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ সোসাইটির ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান ও সাবেক সভাপতি এম আজিজ। বিশেষ অতিথি ছিলেন বাংলাদেশের সাবেক জাতীয় ক্রীড়াবিদ ও নিউইয়র্ক থেকে প্রকাশিত ঠিকানার প্রেসিডেন্ট ও সিওও সাঈদ-উর-রব, বাংলাদেশের জনপ্রিয় কণ্ঠশিল্পী রিজিয়া পারভীন প্রমুখ।

 

 

এই পাতার আরো খবর -
facebook-recent-activity
১৩ আগষ্ট, ২০১৭ ইং
ফজর৪:১৩
যোহর১২:০৪
আসর৪:৩৯
মাগরিব৬:৩৭
এশা৭:৫৪
সূর্যোদয় - ৫:৩৩সূর্যাস্ত - ০৬:৩২
পড়ুন