শুল্ক প্রত্যাহারের খবরে চাল খালাস বন্ধ হিলি বন্দরে
১৩ আগষ্ট, ২০১৭ ইং
সাড়ে ৩শ’ ট্রাক আটকা

 দিনাজপুর অফিস

ভারত থেকে চাল আমদানিতে বর্তমানে আরোপিত ১০ ভাগ শুল্ক প্রত্যাহার করা হতে পারে অথবা ৫ ভাগ কমতে পারে-এমন সংবাদে দিনাজপুরের হিলি স্থলবন্দরে আমদানিকারকরা চাল খালাস এক প্রকার বন্ধ রেখেছেন। যদিও খালাস চলছে-তবে তা একেবারে ধীরগতিতে। এতে হিলি স্থলবন্দরে খালাসের অপেক্ষায় আটকা পড়ে আছে ভারত থেকে আমদানিকৃত চাল বোঝাই সাড়ে ৩শ’ ট্রাক।

আমদানিকারক ও ব্যবসায়ীরা জানান, সরকার যদি চাল আমদানিতে শুল্ক প্রত্যাহার কিংবা কমিয়ে দেয়, তাহলে ভারত থেকে চালের আমদানি আরো বাড়বে এবং দেশে চালের বাজারে অস্থিরতা কমে আসবে।

হিলি স্থলবন্দর আমদানি-রফতানিকারক গ্রুপের আহ্বায়ক হারুন উর রশীদ হারুন জানান, আরোপিত শুল্ক প্রত্যাহার করা হতে পারে-সম্প্র্রতি এমন আভাস পাওয়ার পর থেকেই চাল খালাস বন্ধ রেখেছেন   আমদানিকারকরা। তারা মনে করছেন-এখনই যদি বন্দর থেকে চাল খালাস করে নেন, আর সরকার যদি শুল্ক প্রত্যাহার করে নেয়, তাহলে আমদানিকারকরা ব্যাপকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হবেন। এ কারণেই বন্দর থেকে চাল খালাস করছেন না অধিকাংশ আমদানিকারক। 

হিলি স্থলবন্দর পরিচালনাকারী বেসরকারি অপারেটর পানামা হিলি পোর্ট লিংক লিমিটেডের ভারপ্রাপ্ত ব্যবস্থাপক অসিত কুমার স্যান্নাল জানান, ‘চাল আমদানিতে আরোপিত ১০ ভাগ শুল্ক প্রত্যাহার বা কমানো হবে- এমন খবর প্রকাশের পর গত সোমবার থেকে ভারত থেকে আমদানিকৃত চাল বোঝাই ট্রাক থেকে চাল খালাস একেবারে কমে গেছে। তবে চাল খালাস একেবারে বন্ধ হয়নি। বৃহস্পতিবার কয়েকটি ট্রাক খালাস হয়েছে বলে জানান তিনি। পানামা হিলি পোর্ট লিংক লিমিটেডের সহকারী ব্যবস্থাপক সোহরাব হোসেন মল্লিক প্রতাপ জানান, গত শুক্রবার বন্দরে আমদানি-রফতানি বন্ধ থাকায় কোনো ট্রাক বাংলাদেশে প্রবেশ করেনি। তবে শনিবার অন্যান্য পণ্যের ট্রাকের পাশাপাশি চালের ৩টি ট্রাকও প্রবেশ করেছে।

হিলি ল্যান্ড কাস্টম্স-এর উপ-কমিশনার মোঃ ফকরুল আমীন চৌধুরী জানান, এ মুহূর্তে চাল খালাস করলে আমদানিকারকদের বর্তমান শুল্ক কাস্টম্স-এ জমা দিতে হবে। এ জন্যই তারা অপেক্ষায় রয়েছেন শুল্ক প্রত্যাহার বা কমানোর সরকারি ঘোষণার জন্য। তবে কি পরিমাণ চাল বোঝাই ট্রাক বন্দরে প্রবেশ করে খালাসের অপেক্ষায় রয়েছে, তা এই মুহূর্তে জানাতে পারেননি তিনি।

উল্লেখ্য, এর আগেও গত জুনে চাল আমদানিতে শুল্কহার হ্রাস করা হচ্ছে-এমন খবরে হিলি স্থলবন্দরে ভারত থেকে আমদানিকৃত চাল খালাস বন্ধ থাকে। ফলে খালাসের অপেক্ষায় ছিল ভারত থেকে আমদানিকৃত শত শত ট্রাক চাল। পরে ২০ জুন চাল আমদানিতে শুল্কহার ২৮ ভাগ থেকে কমিয়ে ১০ ভাগ নির্ধারণ করা হলে খালাস করা হয় আমদানিকৃত সেসব চাল। এরপর হিলি স্থলবন্দর দিয়ে ভারত থেকে চালের আমদানি বেড়ে যায়। বর্তমানে বন্দর দিয়ে প্রতিদিন ৮০ থেকে ৯০ ট্রাক চাল আমদানি হয়।

 

এই পাতার আরো খবর -
facebook-recent-activity
১৩ আগষ্ট, ২০১৭ ইং
ফজর৪:১৩
যোহর১২:০৪
আসর৪:৩৯
মাগরিব৬:৩৭
এশা৭:৫৪
সূর্যোদয় - ৫:৩৩সূর্যাস্ত - ০৬:৩২
পড়ুন