বিপিসির সব ব্যাংক হিসাব জব্দের হুঁশিয়ারি এনবিআরের
১৩ আগষ্ট, ২০১৭ ইং
মাহবুব রনি

বকেয়া আয়কর পরিশোধ না করলে রাষ্ট্রায়ত্ত সংস্থা বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম করপোরেশনের (বিপিসি) সকল ব্যাংক হিসাব জব্দ করা হবে বলে হুঁশিয়ারি দিয়েছে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর)। বকেয়া অর্থ পরিশোধের জন্য বিপিসিকে লিখিত ও মৌখিকভাবে বারবার অনুরোধ করার পরও ইতিবাচক সাড়া না পাওয়ায় এ হুঁশিয়ারি দেওয়া হয়েছে।

২০১৪-১৫ এবং ২০১৫-১৬ অর্থ বছরে বিপিসি তার অধীনে থাকা পদ্মা, যমুনা, মেঘনাসহ তেল বিপণন কোম্পানিগুলোকে যে তেল দেয় তার বিপরীতে উেস করের পরিমাণ দাঁড়ায় ৫৪ কোটি ৩৫ লাখ ৭১ হাজার ১১৩ টাকা। এ টাকা পরিশোধের জন্য বিভিন্ন সময় বিপিসিকে চিঠি দেওয়া হলেও পরিস্থিতির হেরফের হয়নি।  বকেয়া টাকা   পরিশোধের শেষ সময়সীমা ছিল গত ১৯ জুন। কিন্তু গতকাল শনিবার পর্যন্ত ওই অর্থ পরিশোধ করেনি বিপিসি। গত জুলাইয়ের শেষ সপ্তাহে এক চিঠিতে বিপিসি প্রতিউত্তর দিয়ে জানায়, তেল কোম্পানিগুলো সরকার নির্ধারিত মূল্যে তেল বিক্রি করে বিপিসির পক্ষে কর, মূসক (ভ্যাট) ও শুল্ক পরিশোধ করে। যেহেতু বিপিসি কখনো কোম্পানিগুলোকে বিপণন মার্জিন পরিশোধ করেনি সেহেতু মার্জিনের বিপরীতে উেস আয়কর কাটার কোনো সুযোগ নেই।

বিপিসির ঊর্ধ্বতন এক কর্মকর্তা বলেন, কর, ভ্যাট ও শুল্ক বাবদ বিপিসি বার্ষিক প্রায় ৮ হাজার কোটি টাকা পরিশোধ করে। এখন উেস আয়করের বকেয়া দাবি করা হচ্ছে এটি অযৌক্তিক। এরপরও একটি গ্রহণযোগ্য সমাধানের পথ খোঁজা হচ্ছে।

এ প্রসঙ্গে এনবিআর’র আশীষ কুমার সরকার বলেন, প্রয়োজনীয় সকল পর্যবেক্ষণ সম্পন্ন করেই বিপিসিকে উেস কর পরিশোধ করতে বলা হয়েছে। তাদেরকে এটি পরিশোধ করতে হবে। তারা ব্যাখ্যা প্রদান করে যে চিঠি দিয়েছে তার বিপরীতে শিগগিরই প্রতিউত্তর ও করণীয় জানিয়ে দেওয়া হবে।

এনবিআর’র ঊর্ধ্বতন এক কর্মকর্তা বলেন, আয়কর অধ্যাদেশের ১১৭ ধারা অনুযায়ী ওই পরিমাণ উেস আয়কর বিপিসিকে দিতে হবে। এ জন্য প্রয়োজনে হার্ডলাইনে যাবে এনবিআর।

 

এই পাতার আরো খবর -
facebook-recent-activity
১৩ আগষ্ট, ২০১৮ ইং
ফজর৪:১৩
যোহর১২:০৪
আসর৪:৩৯
মাগরিব৬:৩৭
এশা৭:৫৪
সূর্যোদয় - ৫:৩৩সূর্যাস্ত - ০৬:৩২
পড়ুন