পাখিদের গ্রাম রক্ষার আবেদন
১৪ ডিসেম্বর, ২০১৭ ইং

গ্রামের নাম আশুরহাট। ঝিনাইদহের শৈলকুপা উপজেলার এই গ্রামে হাজার হাজার পাখির বসবাস।  পরিযায়ী পাখিও আছে কিছু। যারা বসবাসের জন্য বাংলাদেশকে পছন্দ করেছে। শীত শেষে নিজ দেশে ফিরে যায়নি। গ্রামের মজা পুকুরের পাশে গাছে পাখিরা বাসা বেঁধেছে। বর্তমানে এই পাখির সংখ্যা বিশ হাজার ছাড়িয়ে গেছে। শামুকখোল, শামুকভাঙা, সারস, পানকৌড়ি, সাদা বকসহ নানা রকম পাখি। ব্যাক্তিগত গাছে পাখিদের নিবাস। তাই কেউ গাছ কাটলে ওরা আবাসস্থল হারায়। অন্যদিকে এই পাখিরা আশপাশের খাল-বিল-হাওড়-ধানখেতে পড়ে। সেখানে শিকারিরা ফাঁদ পেতে ওদের ধরে। এমনিভাবে এত পাখি কোথাও দেখা যায় না। কারো দেখভাল করতে হয় না। এ এক অমূল্য সম্পদ। তাই সরকারিভাবে গাছগুলো কিনে নিয়ে অভয়ারণ্য ঘোষণা করা হলে পাখিরা নিরাপদে থাকতে পারবে। এ ব্যাপারে স্থানীয় প্রশাসন একট তত্পর হতে পারে।  যেন  কেউ পাখি শিকার করতে না পারে। তাহলে ‘পাখির গ্রাম’ বলে পরিচিত আশুরহাট পর্যটন এলাকায় পরিণত হবে।

মুহাম্মদ শফিকুর রহমান

মিরপুর ১২, ঢাকা

 

এই পাতার আরো খবর -
facebook-recent-activity
১৪ নভেম্বর, ২০১৮ ইং
ফজর৫:১১
যোহর১১:৫৩
আসর৩:৩৮
মাগরিব৫:১৭
এশা৬:৩৪
সূর্যোদয় - ৬:৩২সূর্যাস্ত - ০৫:১২
পড়ুন