জলজট-যানজটে বেহাল চট্টগ্রাম
চট্টগ্রাম অফিস২৭ জুন, ২০১৫ ইং
অবিরাম বর্ষণ, সড়কসমূহের বেহাল দশা, যানজট ও জলাবদ্ধতায় বর্তমানে চট্টগ্রাম নগরবাসীর নাকাল অবস্থা। গত কয়েকদিন ধরে এক নাগাড়ে বৃষ্টি কর্মময় নগর জীবনকে এক প্রকার বিপর্যস্ত করে তুলেছে। সাধারণ খেটে খাওয়া মানুষ কর্মহীন হয়ে পড়েছে। তাদের প্রাত্যহিক জীবন চালানোই কঠিন হয়ে পড়েছে। নগরীর কাজীর দেউড়ী, চকবাজার, ষোলশহর ২নং গেটসহ নগরীর কয়েকটি পয়েন্টে দিনমজুররা কাজের সন্ধানে দাঁড়িয়ে থাকলেও তেমন সাড়া পাচ্ছে না।

নগরীর খানা-খন্দকে ভরা সড়কসমূহে যান চলাচল স্লথ হয়ে গেছে। অনেক ভালো সড়কও গত কয়েকদিনের বৃষ্টিতে ব্যবহার অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। নালা-নর্দমার ময়লা-আবর্জনা সামান্য বৃষ্টিতে উপচে পড়ে মূল সড়ক ও বাসা-বাড়ি পর্যন্ত ভরে যাচ্ছে। সিটি কর্পোরেশন নগরীর মুরাদপুর সড়কসহ কয়েকটি সড়ক পাশের নালা-নর্দমা থেকে ময়লা-আবর্জনা কয়েকদিন পূর্বে তুলে নালার পাশে রাখে। কিন্তু এগুলো সরিয়ে না নেয়ায় হালের বৃষ্টিতে তা আবার নালা-নর্দমায় পড়ে সড়ক ও নালাসমূহ সমান উচ্চতায় পৌঁছে যায়। অতিবর্ষণ ও সমুদ্রের জোয়ারের পানি মিশে নগরীর নিচু এলাকাসমূহের অনেকাংশ তলিয়ে গেছে।

নবনির্বাচিত সিটি মেয়র গত কয়েক সপ্তাহে কর্পোরেশনের বিভিন্ন বিভাগের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সাথে ধারাবাহিক বৈঠক করে যেকোন অনিয়ম, দুর্নীতি ও নগরবাসীর দুর্ভোগের জন্য সংশ্লিষ্টদের ব্যাপারে ‘জিরো টলারেন্সের’ ঘোষণা দেন। বাস্তবে বিভাগসমূহের সার্বিক কর্মকাণ্ডে তেমন উন্নতি লক্ষণীয় নয়। কয়েকদিনের বৃষ্টিতে নগরবাসীর দুর্ভোগ ও বিপর্যস্ত নগরী তা-ই আঙ্গুল দিয়ে দেখিয়ে দিচ্ছে।

অতিবৃষ্টি, সড়কের বেহাল দশা, জলাবদ্ধতার কারণে সড়কে যানবাহন চলাচল সীমিত হয়ে গেছে। একই সময়ে ব্যাটারি চালিত রিকশা বন্ধ করে দেয়া এবং অন্যান্য যানবাহনের অপ্রতুলতা সাধারণ জনগণকে ভোগান্তিতে ফেলেছে। এরপর নগরীর বিরাট এলাকায় ফ্লাইওভার, ওভারপাস, ওয়াসার দীর্ঘদিন ধরে চলা সড়ক মাঝ দিয়ে পাইপ লাইন বসানোর কাজের কারণে সংকুচিত সড়কে যানজট একটি স্বাভাবিক নিয়মে পরিণত হয়েছে। নগরীর মুরাদপুর, বহদ্দারহাট, ষোলশহর ২নং গেট, রাহাত্তারপুল, কালামিয়া বাজার, আগ্রাবাদ সড়ক, বিমান বন্দর সড়কসহ ইপিজেড ও বন্দরের ৫নং গেট এলাকা, নিউ মার্কেট মোড়, কদমতলী, বিআরটিসি মোড়ে যানজট থাকাটা নিত্যদিনের ‘নিয়ম’ হয়ে দাঁড়িয়েছে। কর্মমুখী মানুষের স্বাভাবিক গতিকে স্থবির ও স্লথ করে দিচ্ছে যানজটের এ অভিশাপ।

চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনারের পক্ষ থেকে পরিচ্ছন্ন নগরী গড়ে তোলার আহবানের ন্যায় নগরীর মোড়গুলোতে যানবাহন না দাঁড়ানোর কঠোর ঘোষণা সত্ত্বেও তা বাস্তবে তেমন একটা পালন করতে দেখা যাচ্ছে না। শহর এলাকার বাস সহ অন্যান্য যানবাহন যত্রতত্র দাঁড়ানোর সেই বদঅভ্যাস ও আইন অমান্যের পথ পরিহার করতে পারছে না। ফলে দুর্ভোগ ও হয়রানি নগরবাসীর সঙ্গী হয়ে গেছে। 

 

এই পাতার আরো খবর -
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
২৭ জুন, ২০১৮ ইং
ফজর৩:৪৫
যোহর১২:০২
আসর৪:৪২
মাগরিব৬:৫২
এশা৮:১৭
সূর্যোদয় - ৫:১৩সূর্যাস্ত - ০৬:৪৭
পড়ুন