বুড়িমারী স্থলবন্দর সড়ক বেহাল
পাটগ্রাম (লালমনিরহাট) সংবাদদাতা১৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং
বুড়িমারী স্থলবন্দর সড়ক বেহাল

লালমনিরহাট জেলার পাটগ্রামের বুড়িমারী স্থলবন্দর সড়কের বিভিন্ন অংশে বিটুমিন, পাথর, সুড়কি উঠে তা যান চলাচলের অযোগ্য হয়ে পড়েছে। এতে পণ্যবাহী ট্রাক, বাস, রিকশা ভ্যান চলাচলে মারাত্মক বিঘ্ন ঘটছে। এতে বিপাকে পড়েছে ব্যবসায়ীসহ স্থানীয় বাসিন্দারা।

জানা যায়, কাস্টমস ও স্থলবন্দর কর্তৃপক্ষ ২০১৭-১৮ অর্থবছরে ১২২ কোটি টাকার রাজস্ব আদায় করলেও বন্দরের ভৌত কাঠামো উন্নয়নে কর্তৃপক্ষের নেই কোনো পদক্ষেপ। বুড়িমারী স্থলবন্দরে প্রতিদিন গড়ে এক হাজার ট্রাক মালামাল লোড-আনলোডসহ যাতায়াত করে। এছাড়া পাসপোর্টধারী যাত্রীও চলাচল করে এ পথে। সামান্য বৃষ্টি হলেই সড়কে সৃষ্টি হচ্ছে জলাবদ্ধতা। এতে পাকা সড়কের অনেক স্থানে ইট-সুড়কি-বিটুমিন উঠে গিয়ে কাঁচা সড়কের রূপ নিচ্ছে। বিভিন্ন স্থানে সড়কের দুই পাশের মাটি সরে গিয়ে দেখা দিয়েছে ধস।

বুড়িমারী বন্দর থেকে বুড়িমারী বিজিবি ক্যাম্পগামী সড়কের অবস্থাও করুণ। স্থলবন্দরের পাশে চ্যানেল আই পাথর ক্রাশিং অফিসের সামনের রাস্তা, বুড়িমারী বাজার ও ইউনিয়ন পরিষদগামী রাস্তা হাই স্কুলগামী সড়ক বুড়িমারী সড়কের সাথে সংযুক্ত থাকায় সড়কগুলো দিয়ে দিন-রাত ট্রাক-ট্রলি চলাচল করে। এতে সড়কগুলো দ্রুত ক্ষতিগ্রস্ত হয়ে সৃষ্টি হয়েছে বড় বড় গর্তের। স্থানীয় সরকার প্রকৌশলের (এলজিইডি) অধীন এসব সড়কের অবস্থা বর্তমানে বেহাল। তাছাড়া, উপজেলা সদর থেকে বুড়িমারী জিরো পয়েন্ট পর্যন্ত সড়কটি সড়ক ও জনপথ (সওজ) বিভাগের আওতাধীন। এ সড়কটির অবস্থাও করুণ। এমনকি, বুড়িমারী জে এম ফিলিং স্টেশন থেকে বুড়িমারী জিরো পয়েন্ট পর্যন্ত সড়ক চলাচলের অযোগ্য। সওজ বিভাগ থেকে মাঝে মাঝে সড়কের গর্তে ইটের খোয়া ও ইট দিয়ে সড়ক মেরামত করলে তা দুই একদিনের মধ্যেই পূর্বাবস্থায় চলে যায়। লালমনিরহাট সড়ক ও জনপথ (সওজ) বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী আলীনুর আয়েনের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, সড়কে ছোট-ছোট মেরামত কাজের জন্য লোকজন কাজ করছে। ইতোমধ্যে বন্দরের সড়কের (ফোর লেন) উন্নয়ন প্রকল্প গ্রহণ করে প্রস্তাব প্রেরণ করা হয়েছে। বরাদ্দ পাওয়া গেলে দ্রুত কাজ শুরু হবে। এ ব্যাপারে বুড়িমারী স্থলবন্দর কর্তৃপক্ষের উপ-পরিচালক মনিরুল ইসলাম জানান, বন্দরের উন্নয়নে বন্দরের ভিতরের শেড ও ছোট-ছোট সড়কের পাশে ড্রেনের কাজ করা হয়েছে। বরাদ্দ সাপেক্ষে আরো কাজ করা হবে। তবে বন্দরের জায়গা কম থাকায় বন্দর এলাকা সম্প্রসারণ করা সম্ভব হচ্ছে না।

 

 

এই পাতার আরো খবর -
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
১৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং
ফজর৪:২৮
যোহর১১:৫৫
আসর৪:২১
মাগরিব৬:০৮
এশা৭:২১
সূর্যোদয় - ৫:৪৪সূর্যাস্ত - ০৬:০৩
পড়ুন