কারিগরি শিক্ষায় সফল উদ্যোক্তা
এএসএম সাদ২৩ অক্টোবর, ২০১৭ ইং
কারিগরি শিক্ষায় সফল উদ্যোক্তা

উদ্যোক্তা হিসেবে পুরস্কার পেয়েছেন ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড টেকনোলজির (নারায়ণগঞ্জ) ফাউন্ডার ও চেয়ারম্যান প্রকৌশলী আব্দুল আজিজ। কারিগরি শিক্ষার উন্নয়নে কাজ করায় পুরস্কার পান এই উদ্যোক্তা। বাংলাদেশ কারিগরি শিক্ষা উন্নয়ন সমিতি থেকে গত ৫ সেপ্টেম্বর বিশ্ব শিক্ষক দিবসে সেরা শিক্ষক ও শিক্ষা উদ্যোক্তাদের পুরস্কার দেওয়া হয়। পুরস্কার প্রদান করেন শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ। উন্নত বিশ্বের সঙ্গে তাল মিলিয়ে ও উন্নত বিশ্বের সমপর্যায়ে যেতে হলে অবশ্যই কারিগরি শিক্ষায় গুরুত্ব দিতে হবে। দক্ষ লোক ছাড়া অর্থনৈতিক উন্নয়ন সম্ভব নয়। বিদেশ থেকে এক্সপার্ট লোক এনে দেশ উন্নতি করতে পারে না। এজন্য প্রয়োজন নিজস্ব দক্ষ জনশক্তি। চীন, জাপান, সিঙ্গাপুর, দক্ষিণ কোরিয়াসহ যেসব দেশ টেকনোলজিতে এগিয়ে গেছে, তাদের কারিগরি শিক্ষার গড় হার প্রায় ৪৪ শতাংশ। যেখানে বাংলাদেশে কারিগরি শিক্ষার হার মাত্র ১৪ শতাংশ।

প্রকৌশলী আব্দুল আজিজ জানান, ‘আমাদের একটি বড় জনগোষ্ঠী দেশের বাইরে থাকলেও অনেকেই দক্ষতার অভাবে খুব বেশি সুবিধা করতে পারছেন না। দক্ষ জনশক্তি রপ্তানি করতে পারলে আমাদের রেমিট্যান্সের পরিমাণও দ্বিগুণ হতো। তবে দেশের বৃহত্ জনগোষ্ঠীকে দক্ষ করে তোলা সরকারের একার পক্ষে সম্ভব নয়। এজন্য প্রয়োজন সরকারি ও বেসরকারি খাতের সমন্বিত উদ্যোগ। দেশে ৪৫টি সরকারি পলিটেকনিকের পাশাপাশি বেসরকারি পলিটেকনিক গড়ে উঠেছে অনেক। আমরা সাধ্যমতো চেষ্টা করছি এই জনগোষ্ঠীকে দক্ষ করে তুলতে। সৃজনশীল কিছু করতে কারখানা বা শিল্পোদ্যোক্তাদেরও সহযোগিতা করতে হবে। এছাড়া প্রতিটি স্কুলে এই বিষয়ে ধারণা দিতে হবে শিক্ষার্থীদের। এতে কারিগরি শিক্ষায় শিক্ষার্থীদের আগ্রহ তৈরি হবে। অন্যদিকে কেউ যদি মাধ্যমিকের পর পড়ালেখা নাও করতে পারে, তাহলেও তারা দক্ষতা অনুযায়ী শ্রমবাজারে প্রবেশ করতে পারবে। উল্লেখ্য, ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড টেকনোলজি (এনআইইটি) গত ৮ বছর ধরে বাংলাদের কারিগরি শিক্ষা বোর্ডে ৪ বছর মেয়াদি ডিপ্লোমা ইন মেরিন, সার্ভেয়িং, মেকানিক্যাল, আর্কিটেকচার, আর্কিটেকচার অ্যান্ড ইন্টেরিয়র ডিজাইন, শিপ-বিল্ডিং, ইলেকট্রিক্যাল, টেক্সটাইল, ফুড, গার্মেন্টস ডিজাইন অ্যান্ড পেটার্ন মেকিং, সিভিল, ইলেকট্রনিক্স, গ্লাস, সিরামিক্স, রেফ্রিজারেশন অ্যান্ড এয়ার কন্ডিশনিং, অ্যাভিয়নিক্স, অ্যারোস্পেস, কম্পিউটার, গ্রাফিক্স ডিজাইন, অটোমোবাইল, টেলিকমিউনিকেশন, কনস্ট্রাকশন বিষয়সমূহ পরিচালনা করছে। নারী শিক্ষার্থীদের জন্য রয়েছে ৮০০ টাকা করে বৃত্তির সুবিধা। এছাড়া ২০১৭-১৮ অর্থবছরে স্কিলস ফর এমপ্লয়মেন্ট ইনভেস্টমেন্ট প্রোগ্রাম (এসইআইপি) নামের তিন ও ছয় মাস মেয়াদি কোর্সে ৯৫০ জনকে বিনামূল্যে প্রশিক্ষণ দিচ্ছে এনআইইটি। এ প্রশিক্ষণের বিষয়ের মধ্যে রয়েছে প্রফেশনাল ফ্রিল্যান্সিং, গ্রাফিক্স ডিজাইন এবং ওয়েবসাইট ডিজাইন অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট কোর্স। শিক্ষার্থীদের পাশাপাশি প্রতিষ্ঠানটির শিক্ষকরাও দেশে-বিদেশে উচ্চতর প্রশিক্ষণের সুযোগ পায়।  

 

 

 

 

 

এই পাতার আরো খবর -
facebook-recent-activity
২৩ অক্টোবর, ২০১৮ ইং
ফজর৪:৪৩
যোহর১১:৪৩
আসর৩:৪৯
মাগরিব৫:২৯
এশা৬:৪২
সূর্যোদয় - ৫:৫৯সূর্যাস্ত - ০৫:২৪
পড়ুন