দেশে দুই লাখ ঋণ খেলাপি: অর্থমন্ত্রী
ইত্তেফাক রিপোর্ট২১ জুন, ২০১৭ ইং
বর্তমানে দেশে ঋণ খেলাপি ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানের সংখ্যা ২ লাখ ২ হাজার ৬২৩ বলে সংসদকে জানালেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। গতকাল মঙ্গলবার সংসদে টেবিলে উপস্থাপিত প্রশ্নোত্তরে সরকারি দলের সংসদ সদস্য পিনু খানের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি চলতি বছরের মার্চ পর্যন্ত সময়ে বাংলাদেশ ব্যাংকের সিআইবি ডেটাবেইজের এই তথ্য তুলে ধরেন।

অর্থমন্ত্রী জানান, সরকার ঋণ খেলাপি গ্রাহকদের চিহ্নিত করে আইনের আওতায় আনার জন্য বিভিন্ন পদক্ষেপ নিয়েছে। তবে ওই দুই লাখ ঋণ খেলাপির হাতে কত টাকা আটকে আছে- তার হালনাগাদ তথ্য মন্ত্রীর উত্তরে আসেনি।

জাতীয় পার্টির (জাপা) পীর ফজলুর রহমানের এক প্রশ্নের জবাবে অর্থমন্ত্রী জানান, চলতি অর্থ বছরের প্রথম নয় মাসে রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকের খেলাপি ঋণের বিপরীতে ৩ হাজার ১৫২ কোটি টাকা আদায় হয়েছে। এর মধ্যে সোনালী ব্যাংকের ১০ হাজার ৬২৯ কোটি টাকা খেলাপি ঋণের বিপরীতে ৬৫৪ কোটি টাকা, জনতা ব্যাংকের ৬ হাজার ৫১০ কোটি খেলাপি ঋণের বিপরীতে ২৫৪ কোটি টাকা আদায় হয়েছে।

রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকের ১৯ শতাংশ শাখা লোকসানী

আব্দুল লতিফের প্রশ্নের জবাবে আবুল মাল আবদুল মুহিত সংসদকে জানান, চলতি অর্থ বছরের ৩১ মার্চ পর্যন্ত সময়ের তথ্য অনুযায়ী রাষ্ট্রায়ত্ত বাণিজ্যিক ও বিশেষায়িত ব্যাংকগুলোর ৫ হাজার ১৩৪টি শাখার মধ্যে ৯৫২টি শাখা লোকসানী। মন্ত্রীর তথ্য অনুসারে রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকগুলোর ১৮.৫৪ শতাংশ শাখাই লোকসানে রয়েছে।

রিজার্ভ চুরির ৬ কোটি ৬৩ লাখ ডলার পাওয়া যায়নি

মো. আবদুল্লাহর এক প্রশ্নের জবাবে অর্থমন্ত্রী জানান, বাংলাদেশ ব্যাংকের রিজার্ভ থেকে চুরি যাওয়া ৮ কোটি ১০ লাখ ডলারের মধ্যে ৬ কোটি ৬৩ লাখ ডলার পাওয়া যায়নি। ওই টাকা উদ্ধারে ফিলিপিন্সে আইনি উদ্যোগ চলমান।

স্কুল ব্যাংকিংয়ে আবগারি শুল্কের প্রভাব পড়বে না

সরকার দলীয় সদস্য কামাল আহমেদ মজুমদারের প্রশ্নে অর্থমন্ত্রী বলেন, ২০১৭-১৮ অর্থ বছরে ব্যাংকিং হিসাবের  ক্ষেত্রে ১ লাখ টাকা পর্যন্ত আবগারি শুল্ক মওকুফ করা হয়েছে। তাই আবগারি শুল্কের প্রভাব শিশুদের স্কুল ব্যাংকিং কার্যক্রমের ওপর পড়বে না।

 

এই পাতার আরো খবর -
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
২১ জুন, ২০১৮ ইং
ফজর৩:৪৩
যোহর১২:০০
আসর৪:৪০
মাগরিব৬:৫১
এশা৮:১৬
সূর্যোদয় - ৫:১১সূর্যাস্ত - ০৬:৪৬
পড়ুন