যোগসাধনায় ঈমান নষ্ট হয় :হেফাজত
ইত্তেফাক রিপোর্ট২১ জুন, ২০১৭ ইং
হেফাজতে ইসলাম বলেছে, হিন্দু দর্শনের যোগসাধনার সঙ্গে ইসলাম ধর্মের কোনো সম্পর্ক নেই। যোগ হিন্দু উপাসনার একটি অংশ। এটি মুসলমানদের ঈমান আকিদার বিরোধী। যেসব মুসলিম হিন্দুদের ধর্মীয় যোগসাধনায় অংশ নেবেন বা করবেন, তাদের ঈমান নষ্ট হয়ে যাবে। তবে জিমন্যাশিয়ামে গিয়ে শরীরচর্চার সঙ্গে ঈমান-আকিদার বিরোধ নেই বলে জানিয়েছে হেফাজত।

গতকাল মঙ্গলবার এক বিবৃতিতে হেফাজত ইসলামের সাংগঠনিক সম্পাদক মাওলানা আজিজুল হক ইসলামাবাদী এসব কথা বলেন। ভারতীয় হাইকমিশনের উদ্যোগে আগামীকাল বুধবার ২১ জুন জাতীয় জাদুঘরে যোগব্যায়ামের বিশ্ব দিবস পালনের প্রতিবাদ জানিয়ে হেফাজতে ইসলাম  এই বিবৃতি দিয়েছে।

বিবৃতিতে আজিজুল হক  বলেন, হিন্দু দর্শনের ছয়টি প্রাচীনতম শাখার একটি হচ্ছে যোগ। ‘যোগ’ শব্দটি হিন্দু, বৌদ্ধ ও জৈন ধর্মের ধ্যানপ্রণালিকেও নির্দেশ করে। হিন্দু দর্শনের নির্দেশিত বিশেষ ব্যায়াম ও শারীরিক কসরত এবং ধ্যান ও তপস্যার সংযোগে যোগচর্চা করা হয়। যোগসাধনা বা যোগদর্শন নিছক শারীরিক ব্যায়াম মাত্র নয়, বরং এর সঙ্গে ধর্মীয়ভাবে হিন্দু দর্শনের সম্পর্ক অত্যন্ত গভীর। যোগসাধনা সম্পর্কে বিভিন্ন হিন্দু ধর্মগ্রন্থে আলোচনাও করা হয়েছে।

তিনি বলেন, মুসলমানদের জন্য পাঁচ ওয়াক্ত নামাজই হচ্ছে সর্বোত্তম, যা ফরজ এবাদত এবং আধ্যাত্মিক, মনোসংযোগ, চিন্তন ও শারীরিক সব ক্ষেত্রেই উপকারী। হিন্দু ধর্মের যোগশাস্ত্রকে ‘সার্বজনীন’বলে মুসলমানদের ওপর চাপিয়ে দেওয়া অন্যায় এবং সাম্প্রদায়িক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত। ভারতের বর্তমান ক্ষমতাসীন মৌলবাদী দল বিজেপি হিন্দুত্ববাদী এজেন্ডা বাস্তবায়নের হাতিয়ার হিসেবে যোগশাস্ত্রকে ব্যবহার করছে।

এই পাতার আরো খবর -
facebook-recent-activity
২১ জুন, ২০১৮ ইং
ফজর৩:৪৩
যোহর১২:০০
আসর৪:৪০
মাগরিব৬:৫১
এশা৮:১৬
সূর্যোদয় - ৫:১১সূর্যাস্ত - ০৬:৪৬
পড়ুন