বাংলাদেশকে দ্রুত অলআউটে মরিয়া ইংল্যান্ড
স্পোর্টস রিপোর্টার৩০ অক্টোবর, ২০১৬ ইং
বাংলাদেশকে দ্রুত অলআউটে মরিয়া ইংল্যান্ড
জাফর আনসারির করা দিনের শেষ বলে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের বোল্ড হওয়াটা মানসিক স্বস্তি এনে দিয়েছে ইংল্যান্ডকে। গতকাল ম্যাচের দ্বিতীয় দিন শেষে ক্রিস ওকস জানিয়েছেন, মিরপুরের উইকেটে চতুর্থ ইনিংসে ম্যাচ জয়ের জন্য ২৫০ রান হতে পারে আদর্শ টার্গেট। তার বেশি হলেই বিপদে পড়বে ইংল্যান্ড। কারণ এই ম্যাচে এখনো কোনো দলই ২৫০ রান পার হতে পারেনি। তাই বাংলাদেশকে দ্রুত অলআউট করার লক্ষ্যেই আজ মাঠে নামবে ইংল্যান্ড।

দ্বিতীয় ইনিংসে ৩ উইকেটে ১৫২ রান তুলে দিন শেষ করেছে বাংলাদেশ। ১২৮ রানের লিড পেয়েছে স্বাগতিকরা। এই উইকেটে জয়ের জন্য আদর্শ স্কোর কত জানতে চাইলে ইংলিশ অলরাউন্ডার ক্রিস ওকস বলেন, ‘তারা ১২৮ রানে এগিয়ে, সুতরাং ২৫০ বেশ হবে। এ উইকেটে আপনি ২৫০ রানের বেশি তাড়া করতে চাইবেন না। কারণ সেটাই হবে চলতি ম্যাচের সর্বোচ্চ স্কোর। যে কোনো ম্যাচের যখন সর্বোচ্চ স্কোরটা আপনাকে তাড়া করতে হবে সেটা করা অবশ্যই কিছুটা কঠিন হবে। এর নীচে যদি রাখা যায় সেটাই ভালো। আমরা যদি আগামীকাল (আজ) ভালোভাবে শুরু করে দ্রুত উইকেট নিতে পারি এবং বাংলাদেশের টেলএন্ডে পৌঁছতে পারি তাহলে আশা করি তাড়াতাড়ি বাংলাদেশের ইনিংস শেষ করে দিতে পারব।’

মাহমুদউল্লাহর উইকেট পতন ইংল্যান্ডকে ভালো অবস্থান এনে দিয়েছে বলে মনে করেন ওকস। ব্যাট হাতে ৪৬ রানের মূল্যবান ইনিংস খেলা এই ক্রিকেটার বলেন, ‘হ্যাঁ, এটা অবশ্যই আমাদের একটা ভালো অবস্থানে রেখেছে। দিনের শেষ ওভারে উইকেট তুলে নিতে পারা সবসময়ই দারুণ। কারণ এটা আগামীকালের (আজ) জন্য ভালো অনুপ্রেরণা হয়। এটা এমন এক বিষয় যেটার চেষ্টা আপনি করতে পারেন এবং শেষ ওভারে আমরা উইকেট পেয়েছি সেটা অনেক ভাগ্যের ব্যাপার। এটা আমাদের জন্য অতীব গুরুত্বপূর্ণ।’

উইকেট নিয়ে দ্বিধায় আছে দুদলই। বাউন্স ও স্পিনই ব্যাটসম্যানদের জন্য ভাবনার কারণ। ক্রিস ওকস বলেছেন, ‘অবশ্যই এই উইকেটটা একটু বিভ্রান্তিকর। নতুন বলে এখানে বেশ স্পিন হচ্ছে, একটা সরাসরি আসছে এবং আরেকটা ঘুরে চলে যাচ্ছে, বাউন্স হচ্ছে। যখন বল পুরনো হচ্ছে তখন পিচটাকে কিছুটা সহজতর মনে হচ্ছে ব্যাট করার জন্য। তখন আবার বাউন্সগুলো বেশ নিয়মিতই পাওয়া যাচ্ছে। যদিও বল কিছুটা পুরনো হয়ে গেলে স্বাভাবিকভাবে এ সময় স্পিন হওয়াটা অব্যাহত থাকার কথা।’

১৪৪ রানে ৮ উইকেট হারিয়ে বিপদে পড়েছিল ইংল্যান্ড। আদিল রশিদকে নিয়ে ওকসই দলের ত্রাতা হয়ে দাঁড়ান। ৯৯ রানের জুটি গড়েন তারা। যা ইংল্যান্ডকে ২৪ রানের লিড এনে দেয়। এবং ম্যাচেও গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে পারে। ওকস বলেন, ‘আমি মনে করি এটা অনেক বড় ভূমিকা রাখবে। যদি আমরা তৃতীয় ইনিংসে ৮০-১০০ রানে পিছিয়ে থাকতাম সেক্ষেত্রে খেলাটা আমাদের নিয়ন্ত্রণে থাকত না। কিন্তু এখন খেলাটা ভালো পর্যায়ে আছে এবং কিছুটা সুবিধা করে দিয়েছে আমাদের জন্য। আমার মনে হয় রাতের জন্য যখন মাঠ ছেড়েছি তখন পর্যন্ত খেলাটা বেশ সাম্যাবস্থায় আছে।’

বাংলাদেশের স্পিনার ও ওপেনার তামিমের প্রশংসা করেন ওকস। মিরাজ-তাইজুল-সাকিবরা ইংল্যান্ডকে চাপে রেখেছে। গতকাল রিভার্স সুইং করতে পারেননি ইংল্যান্ডের পেসাররা। আজ সকাল থেকে বল হাতে রিভার্স সুইং পাওয়ার আশা করছেন ওকস।

এই পাতার আরো খবর -
facebook-recent-activity
৩০ অক্টোবর, ২০১৭ ইং
ফজর৪:৪৭
যোহর১১:৪৩
আসর৩:৪৪
মাগরিব৫:২৪
এশা৬:৩৮
সূর্যোদয় - ৬:০৪সূর্যাস্ত - ০৫:১৯
পড়ুন