অস্ট্রেলিয়ার বাংলাদেশ সফর
সেরাটা দিতে তৈরি সোয়েপসন
স্পোর্টস রিপোর্টার১৩ আগষ্ট, ২০১৭ ইং
সেরাটা দিতে তৈরি সোয়েপসন
অস্ট্রেলিয়ার বিবেচনায় তার অভিজ্ঞতা খুবই সামান্য। যদিও, দেশটির ক্রিকেটে তাকে আগামী দিনের প্রতিভা বলে মনে করেন। এমনকি খোদ লেগ স্পিন কিংবদন্তী শেন ওয়ার্নও করেছেন তার ভূয়সী প্রশংসা।

সব মিলিয়ে স্বপ্ন দেখতে শুরু করেছেন সেই মিশেল সোয়েপসন, অস্ট্রেলিয়ার নবাগত লেগ স্পিনার। আসন্ন বাংলাদেশ সফরের স্কোয়াডে থাকা এই তরুণ ক্রিকেটার এখন তাই ‘ব্যাগি গ্রিন’-এর স্বপ্নে বিভোর।

দুটি টেস্ট খেলার জন্য আগামী ১৮ আগস্ট বাংলাদেশে পৌঁছানোর কথা স্টিভেন স্মিথের দলের। এরপর ২২-২৪ আগস্ট ফতুল্লায় প্রস্তুতি ম্যাচ খেলবে অজিরা। তারপর শুরু হবে মূল সিরিজ। ২৭-৩১ আগস্ট প্রথম টেস্ট ঢাকায় ও ৪-৮ সেপ্টেম্বর দ্বিতীয় টেস্ট চট্টগ্রামে অনুষ্ঠিত হবে। এই সিরিজেই টেস্ট অভিষেক হয়ে যাওয়ার কথা প্রায় ২৪ ছুঁইছুঁই এই ক্রিকেটারের।

তিনি নিজেও আশাবাদী। বাঁ-হাতি পেসার মিশেল স্টার্কের জায়গায় স্কোয়াডে জায়গা পাওয়া সোয়েপসন বললেন, ‘আমি সবার শেষে স্কোয়াডে ঢুকেছি। বাকি দু’জন স্পিনারই তাই আমার চেয়ে বেশ এগিয়ে থাকবেন। বাংলাদেশের উইকেটের ব্যাপারে খুব বেশি ধারণা নেই। তাই একাদশে কে থাকবে আর থাকবে না, সেটাও আগে থেকে বলা যাচ্ছে না। তবে, এটুকু বলতে টেস্ট খেলার প্রস্তুতি নিয়েই বাংলাদেশে যাব। খেলার সুযোগ পাব কি পাব না সেটা পরের ব্যাপার। সুযোগ পেলে নিজেকে উজার করে দিবো।’

সফরকে সামনে রেখে এক সপ্তাহের কন্ডিশনিং ক্যাম্প করছে অস্ট্রেলিয়ানরা। কন্ডিশনিং ক্যাম্পটা হবে ডারউইনে। ডারউইনের জলবায়ুর সাথে বাংলাদেশের মিল আছে। সেজন্যই জায়গাটা বেছে নিয়েছে অস্ট্রেলিয়ার টিম ম্যানেজমেন্ট। আর এই ক্যাম্পে কঠোর পরিশ্রম করছেন সোয়েপসন। উদ্দেশ্য, টেস্ট দলে জায়গা করে নেওয়া।

সোয়েপসন তার ১৪টি প্রথম শ্রেণির ম্যাচের মধ্যে সর্বশেষটি খেলেছেন গত বছরের ডিসেম্বরে। এই সংস্করণে ৩২.৮২ গড়ে নিয়েছেন ৪১ উইকেট। পাঁচ উইকেট নেই একবারও। ৩৩ রান দিয়ে নেওয়া চার উইকেটই তার ক্যারিয়ারে সেরা বোলিং। দীর্ঘ সময় বড় পরিসরের ক্রিকেট থেকে দূরে থাকাটা কি সোয়েপসনকে একটু ব্যাকফুটে ঠেলে দেবে? সোয়েপসন পরিশ্রম দিয়ে অভিজ্ঞতার ঘাটতিটা পুষিয়ে দিতে মরিয়া।

তিনি বলেন, ‘আমি জানি এটা লম্বা সময়। তবে গত মৌসুমের শেষ দিকে আর এ মৌসুম শুরুর আগে যে পরিশ্রম করেছি, তাতে একাদশে থাকলে নিজের সেরাটা দিতে আমি তৈরি।’

সর্বশেষ, চলতি বছরেই অস্ট্রেলিয়ানদের ভারত সফরের দলে ছিলেন সোয়েপসন। তবে সেবার অভিষেক হয়নি তার। তবে, এবার সেই আক্ষেপ নিয়ে ফিরতে চান না। সাথে বাড়তি অনুপ্রেরণা হিসেবে কাজ করছে শেন ওয়ার্নের অভয়। ভারত সফরে ওয়ার্নের সাথে হওয়া ১৫ মিনিটের আলাপই সোয়েপসনের কাছে এখন অবধি ক্যারিয়ারের সবচেয়ে বড় প্রাপ্তি। সেই ভারত সফরেই ওয়ার্ন অনুরোধ করেছিলেন সোয়েপসনকে একাদশে রাখার জন্য। অস্ট্রেলিয়ান টিম ম্যানেজমেন্ট সেই কথা রাখেনি। সিরিজও হারে স্টিভেন স্মিথের দল। তাই এবারো একই ভুল করার সম্ভাবনা কম!

 

এই পাতার আরো খবর -
facebook-recent-activity
১৩ আগষ্ট, ২০১৭ ইং
ফজর৪:১৩
যোহর১২:০৪
আসর৪:৩৯
মাগরিব৬:৩৭
এশা৭:৫৪
সূর্যোদয় - ৫:৩৩সূর্যাস্ত - ০৬:৩২
পড়ুন