সেই জিরুই জেতালেন ওয়েঙ্গারকে
১৩ আগষ্ট, ২০১৭ ইং
স্পোর্টস ডেস্ক

ঠিক যেন এজন্যই অপেক্ষা করছিলেন অলিভার জিরু। দল বদলের বাজারে তার চলে যাবার জন্য কোচ ওয়েঙ্গার দরজা খুলে দিয়েছিলেন। কিন্তু ফরাসি স্টাইকার থেকে যান। ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগের উদ্বোধনী খেলায় লেস্টার সিটির বিপক্ষে শেষ মুহূর্তে নাটকীয় জয় এনে দিয়ে জিরু প্রমাণ করলেন, অলেকজান্দ্রে লাকাজেত আসলেও এখনও তিনি অমূল্য!

গত শুক্রবার রাতে লেস্টারের বিপক্ষে ৮২ মিনিট পর্যন্ত ৩-২ গোলে পিছিয়ে ছিল গানাররা। কিন্তু তিন মিনিটের ব্যবধানে দুই গোল করে জয় ছিনিয়ে নেয় ওয়েঙ্গারের শিষ্যরা। প্রথমে আর্সেনালের করা কর্নার লেস্টার ঠিকমতো বিপদমুক্ত করতে ব্যর্থ হলে বল পেয়ে যান গ্রানিত জাকা। তার দারুণ ক্রস ডি-বক্সে ডান দিকে পেয়ে একটু এগিয়ে কোনাকুনি শটে গোলরক্ষককে পরাস্ত করেন বদলি নামা অ্যারন র্যামসে। দুই মিনিট পর কর্নার থেকে দারুণ এক হেডে বল জালে পাঠিয়ে সমর্থকদের উচ্ছ্বাসে ভাসান বদলি হিসেবে নামা জিরু। ফলে এমরেটস স্টেডিয়ামে প্রিমিয়ার লিগ আসর রোমাঞ্চ দিয়েই শুরু করে গানাররা।

জয়ের পর জিরুর প্রশংসা করে ওয়েঙ্গার বলেন, ‘এক পর্যায়ে আমি তার চলে যাবার দরজা খুলে দিয়েছিলাম। কারণ আমার অনেক স্টাইকার ছিল। কিন্তু তারপরও সে থেকে যায়। সে ছেড়ে যেতে চায় না। আমি তার আচরণে খুশি।’

প্রায় পাঁচ বছর আগে ২০১২ সালে আর্সেনালে যোগ দেয়ার পর ২৩১ খেলায় ৯৭ গোল করেছেন জিরু। গত মৌসুম থেকে বদলি হিসেবে মাঠে নেমে প্রিমিয়ার লিগে সাত গোল করেছেন ফরাসি তারকা। একই সময়ে অন্য যেকোন খেলোয়াড়ের তুলনায় যা তিন গোল বেশি। অসাধারণ গোলে দলকে জয় এনে দিয়ে ৩০ বছর বয়সী খেলোয়াড় বলেন, ‘আমি যতটা পারি মাঠে থাকতে পছন্দ করি। দলকে লক্ষ্য পৌঁছাতে পেরে আনন্দ পাই। আমি জানতাম অবশ্যই সুযোগ পাব। আমরা শেষ পর্যন্ত সাহসী ছিলাম। জয়ে মাঠ ছাড়তে পেরেছি, ঈশ্বরকে ধন্যবাদ।’ এ নিয়ে ষষ্ঠবারের মতো প্রিমিয়ার লিগের কোনো উদ্বোধনী খেলায় দুই দল মিলে সর্বোচ্চ সাত গোল করলো। শেষ মুহূর্তে আর্সেনাল নজর কেড়ে নিলেও লেস্টারও অসাধারণ খেলেছে। বিশেষ করে জেমি ভার্ডির মধ্যে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছিল সেই ২০১৫-১৬ মৌসুমের জাদু। লেস্টারের প্রথম তিন গোলের দুটিই করেন তিনি। একপর্যায়ে তো লেস্টার সমর্থকরা গান শুরু করে দিয়েছিলেন ‘আমরা লিগ জিততে যাচ্ছি’। -বিবিসি

এই পাতার আরো খবর -
facebook-recent-activity
১৩ আগষ্ট, ২০১৭ ইং
ফজর৪:১৩
যোহর১২:০৪
আসর৪:৩৯
মাগরিব৬:৩৭
এশা৭:৫৪
সূর্যোদয় - ৫:৩৩সূর্যাস্ত - ০৬:৩২
পড়ুন