জান আমার জান
১৩ আগষ্ট, ২০১৭ ইং
জান আমার জান
নাকু সাহেব রাত একটা-দুইটা যখনই হোক চমকে উঠে হাতরে খুঁজে নেয় মোবাইলটা। এই বুঝি কল এলো? ধরতে না পারলে বুকের ভিতরটা কেমন যেন চিনচিন করে। মাঝে মাঝে মোবাইল নিয়ে বিভ্রান্তিতে পড়ে যায়। কোথায় রাখবে আর কোথায় রাখবে না। ভয়ে ভয়ে থাকে যদি কেউ দেখে ফেলে। আর কল এলে যদি কেউ রিসিভ করে, তাহলে সব গোমর ফাঁস। কানে সবসময় এয়ার ফোন লাগানো থাকে, অফিসের সবাই ভাবে মনে হয় গান শুনছে আবার কেউ কেউ ভাবছে ওয়াজ শুনছে। এই বয়সে কী আর গান শোনে!

শোনা যায় বলছে, ‘জান আজ তোমার জন্য কী পাঠাব?’ সঙ্গে সঙ্গে পিয়নকে পাঠিয়ে দিচ্ছে—যাও এই নম্বরে লোড দাও... টাকা বিকাশ পাঠাও।

কথা বলতে বলতে প্রায় দিন জোরে জোরে বলে, ‘জান ভাত খেয়েছ? কোন রঙের ড্রেস পরেছ?’ অফিসের সবাই অবাক হয়ে দেখে কার সঙ্গে কথা বলছে এত সুন্দর করে। মুখের আদলটাই বদলে যায় কথা বলার সময়। একটা রোমান্টিক রোমান্টিক ভাব থাকে। এখন আর পরিবারের কোনো সমস্যার কথা বলে না। মুখে হাসি ভাবটা লেগেই থাকে। ঝাকানাকা শার্ট পরে। বেসিনে বারবার আয়না দেখে। নাকু সাহেব পুরাই বদলে গেছে। আয়াকে পিয়নকে ডেকে বকশিস দিচ্ছে। এই তো সেদিন আয়াকে এক হাজার টাকার নোট দিয়ে বলল, ‘তুমি আমার জন্য একটা কোক নিয়ে আসো।’ আয়া বাকি টাকা ফেরত দিতে গেলে আয়াকে পুরো টাকাটাই দিয়ে দেয়। অফিসের নারী স্টাফদের সঙ্গে রসকষ দিয়ে কথা বলে। অবশেষে কথা হলো দেখা হবে। পার্কে আসবে। মেয়েটি আসবে গোলাপি সালোয়ার-কামিজ পরে। আর নাকু সাহেব যাবেন নীল শার্ট পরে। নির্দেষ্ট দিনে পার্কে গিয়ে পিছন থেকে আস্তে করে বলে জান আমি এসেছি। পিছন ফিরে ঘুরতেই গোলাপি ড্রেসে অফিস আয়াকে দেখে হা! সাধে কী আর নাকু নাম রেখেছে সবাই? কুমিল্লার নায়ক, সংক্ষেপে নাকু।

n  এসএম সাথী বেগম

রংপুর।

 

 

এই পাতার আরো খবর -
facebook-recent-activity
১৩ আগষ্ট, ২০১৮ ইং
ফজর৪:১৩
যোহর১২:০৪
আসর৪:৩৯
মাগরিব৬:৩৭
এশা৭:৫৪
সূর্যোদয় - ৫:৩৩সূর্যাস্ত - ০৬:৩২
পড়ুন