রঙিন গাড়িতে মোবাইল স্কুল
শাহনেওয়াজ খান সিজু১৮ জানুয়ারী, ২০১৭ ইং
রঙিন গাড়িতে মোবাইল স্কুল
দেশের অন্যান্য শিশুর মতোই দিয়াবাড়ির শিশুদের জগতেও দুপুর আসে। অন্যরা যেখানে সকালের ক্লান্তি শেষে গা এলিয়ে দেয়, সেখানে দিয়াবাড়ির কচিকাঁচারা দলবেঁধে প্রবল উদ্দীপনায় গল্প-কবিতার ছন্দে মেতে ওঠে। যা ভাবছেন বিষয়টা তেমন নয়, ইট-কাঠ-পাথরের কোনো কাঠামোতে নয়, বরং কোমলমতি ছিন্নমূল দুস্থ শিশুদের অক্ষরজ্ঞান হচ্ছে কাচে ঘেরা চার চাকার ভ্রাম্যমাণ বাসে বসে। আকিজ ফাউন্ডেশন স্কুল অ্যান্ড কলেজ কর্তৃপক্ষ যার নাম দিয়েছে ‘মোবাইল স্কুল’।

জনসেবামূলক অনেক কাজের অংশ হিসেবেই নতুন এই কাজ শুরু করেছে দেশের অন্যতম এই শিল্প প্রতিষ্ঠানটি। আকিজ ফাউন্ডেশন স্কুল অ্যান্ড কলেজের ইংরেজি বিভাগের এক শিক্ষকের কাছ থেকে জানা যায় যে, গত দুবছর ধরে তারা এই কার্যক্রমটি চালিয়ে আসছেন। প্রাথমিকভাবে রাজধানীর উত্তরা দিয়াবাড়ি ও মিরপুর দিয়াবাড়ি এলাকায় ১৩ জন শিক্ষক এবং ১৬টি বাসের মাধ্যমে প্রায় ছয়শ সামর্থ্যহীন শিশুকে তারা শিক্ষা দিয়ে যাচ্ছেন। এসব শিক্ষার্থীর প্রায় সবাই অতিদরিদ্র, অবহেলিত ও দুস্থ পরিবারের। শুধু শুক্রবার বাদে প্রতিদিন দুপুর আড়াইটা থেকে সন্ধ্যা সাড়ে সাতটা পর্যন্ত চলে এই ক্লাস।

শিশুরা সম্পূর্ণ বিনামূল্যে পড়াশোনা করে এখানে। এবং শুধু স্বেচ্ছায় পড়তে আসা শিক্ষার্থীদেরকে ভর্তি পরীক্ষার মধ্যদিয়ে ভর্তি হতে হয় এই স্কুলে। এবং ভর্তিকৃত শিক্ষার্থীদেরকে দুপুরের খাবার, বই, ইউনিফর্মসহ অন্যান্য সামগ্রী ফাউন্ডেশনের পক্ষ থেকে বিনামূল্যে প্রদান করা হয়। ‘মোবাইল স্কুল’ শুরুর প্রথম বছরে শিশু থেকে তৃতীয় শ্রেণি পর্যন্ত ভর্তি করা হলেও এবছর ষষ্ঠ শ্রেণি পর্যন্ত শিক্ষার্থী ভর্তি করানো হয়। আকিজ ফাউন্ডেশন স্কুল অ্যান্ড কলেজে ইংরেজি-বাংলা মাধ্যম চালু থাকলেও মোবাইক স্কুলে শুধু বাংলায় পড়ানো হয়।

ফাউন্ডেশনটির এমন অভিনব উদ্যোগের কারণে ছিন্নমূল এবং সুবিধাবঞ্চিত অনেক শিশুই শিক্ষাক্ষেত্র থেকে ঝরে পড়া থেকে বেঁচে গিয়ে নিজেদের জীবনকে আলোকময় করতে স্বপ্ন বুনে যাচ্ছে।

 

 

এই পাতার আরো খবর -
facebook-recent-activity
১৮ জানুয়ারী, ২০১৮ ইং
ফজর৫:২৩
যোহর১২:০৯
আসর৩:৫৯
মাগরিব৫:৩৮
এশা৬:৫৪
সূর্যোদয় - ৬:৪২সূর্যাস্ত - ০৫:৩৩
পড়ুন