জুলাইয়ে শেয়ারে বিনিয়োগ কমেছে বিদেশিদের
ইত্তেফাক রিপোর্ট১৩ আগষ্ট, ২০১৭ ইং
জুলাইয়ে শেয়ারে বিনিয়োগ কমেছে বিদেশিদের
গেল জুলাই মাসে বিদেশি বিনিয়োগকারীদের পোর্টফোলিওতে বিনিয়োগ আগের মাসের তুলনায় কমেছে। জুলাই মাসে বিদেশিদের পোর্টফোলিওতে নীট বিনিয়োগ হয়েছে ২০০ কোটি টাকা। যা আগের মাসে হয়েছিল ৩৯০ কোটি টাকা। জুলাই মাসে ৬২৫ কোটি টাকার শেয়ার কিনেছেন বিদেশি বিনিয়োগকারীরা। বিপরীতে বিক্রি করেছেন প্রায় ৪২৫  কোটি টাকা। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) তথ্যে এ চিত্র ফুটে উঠেছে।

এদিকে নীট বিনিয়োগ কমলেও বিদেশি পোর্টফোলিওতে শেয়ার ক্রয়ের পরিমাণ কম নয়। তাছাড়া টানা এগারো মাস ধরে এ পোর্টফোলিওগুলোতে শেয়ার বিক্রয়ের চেয়ে ক্রয়ের পরিমাণ বেশি। এ সময়ে তারা ৩ হাজার ৬৫০ কোটি টাকার বিক্রির বিপরীতে ৬ হাজার ১১৪ কোটি টাকার শেয়ার কিনেছেন। অর্থাত্ তাদের নীট বিনিয়োগের মোট পরিমাণ ২ হাজার ২৬৪ কোটি টাকা। সর্বশেষ গত বছরের আগস্টে বিদেশিদের শেয়ার কেনার তুলনায় বিক্রির পরিমাণ ছিল বেশি। ওই মাসে বিদেশিদের পোর্টফোলিওতে বিভিন্ন কোম্পানির ৩৬৯ কোটি ২৫ লাখ টাকার শেয়ার কেনার বিপরীতে ৩৭৩ কোটি ১ লাখ টাকার বিক্রি হয়েছিল।

তথ্য অনুযায়ী, গত মাসে বিদেশি বিনিয়োগকারীরা সর্বমোট প্রায় এক হাজার ৫০ কোটি টাকার শেয়ার  কেনাবেচা করেছেন। একই সময়ে ডিএসইতে সর্বমোট ২০ হাজার ৯২৯ কোটি টাকা মূল্যের শেয়ার  লেনদেন হয়। ক্রয় ও বিক্রয় উভয় দিক বিবেচনায় নিলে ডিএসইর লেনদেনে বিদেশিদের অংশ ছিল আড়াই শতাংশ।

ব্রোকারেজ হাউসের ঊর্ধ্বতন কর্মকতারা বলছেন, বিদেশি বিনিয়োগ বাড়া-কমা একটি স্বাভাবিক প্রক্রিয়া। এতে ভয়ের কিছু নেই। বরং প্রতি মাসেই বিদেশি বিনিয়োগকারীদের শেয়ার ক্রয়ের পরিমাণ বিক্রির তুলনায় বেশি, এটিই আশার দিক। এতে বুঝা যাচ্ছে বাজারের প্রতি বিনিয়োগকারীদের আস্থা বাড়ছে। তাই তারা বিনিয়োগ বাড়াচ্ছেন। তারা আরও বলেন, বিদেশি বিনিয়োগকারীরা মুনাফা করার জন্যই বিনিয়োগ করে। আর এজন্যই কখনও কখনও তাদের বিক্রি বাড়তেই পারে।

 

এই পাতার আরো খবর -
facebook-recent-activity
১৩ আগষ্ট, ২০১৭ ইং
ফজর৪:১৩
যোহর১২:০৪
আসর৪:৩৯
মাগরিব৬:৩৭
এশা৭:৫৪
সূর্যোদয় - ৫:৩৩সূর্যাস্ত - ০৬:৩২
পড়ুন