তিন কর্মদিবসে ডিএসইর লেনদেন অর্ধেকে নেমেছে
১৭ অক্টোবর, ২০১৭ ইং
ইত্তেফাক রিপোর্ট

গত তিন কর্মদিবস আগেও ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) লেনদেন হয়েছে হাজার কোটি টাকার বেশি। আর গতকাল তা ৫০২ কোটি টাকায় নেমে এসেছে। বাজার সংশ্লিষ্টরা বলছেন, বিনিয়োগকারীরা বাজারের পরিস্থিতি বিবেচনা করছেন। গত কয়েকদিন টানা দরতনের ফলে অনেকে পরবর্তী গতি প্রকৃতি বুঝার চেষ্টা করছেন। তাই লেনদেন কমে গেছে। এ অবস্থায় কোম্পানির লভ্যাংশের সম্ভাবনা বুঝে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগ বাড়তে শুরু করলেই সাধারণ বিনিয়োগকারীরাও বিনিয়োগ বাড়াবেন।

তথ্যে দেখা গেছে, গতকাল ডিএসইতে ৫০২ কোটি ৯৬ লাখ টাকার শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়েছে। যা আগের কার্যদিবসে হয়েছিল ৬২০ কোটি ১৩ লাখ টাকা। এ হিসাবে ডিএসইতে ১১৭ কোটি ১৭ লাখ টাকা বা ১৯ শতাংশ লেনদেন কমেছে। আর চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) গতকাল লেনদেন হয়েছে ৩২ কোটি ৭৮ লাখ টাকা। যা আগের কর্মদিবসে ছিল ৩৭ কোটি ২৮ লাখ টাকা। ডিএসইতে গতকাল প্রধান সূচক ডিএসইএক্স ৫ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করছে ৬ হাজার ১৪ পয়েন্টে। আর ডিএসই-৩০ সূচক ৪ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে ২ হাজার ১৮৯ পয়েন্টে। অপরদিকে সিএসইর সিএসইএক্স সূচক ২০ পয়েন্ট  বেড়ে অবস্থান করেছে ১১ হাজার ২৮৭ পয়েন্টে। আর সিএসই-৩০ সূচক কমেছে ৪২ পয়েন্ট।

গতকাল ডিএসইতে টাকার অঙ্কে ডিএসইতে সবচেয়ে বেশি লেনদেন হয়েছে উত্তরা ব্যাংক শেয়ারে।  কোম্পানিটির ২৭ কোটি ২২ লাখ টাকার  শেয়ার লেনদেন হয়েছে। সিটি ব্যাংকের শেয়ারে লেনদেন হয়েছে ২২ কোটি ৮২ লাখ টাকা। আর ব্র্যাক ব্যাংকের শেয়ারে লেনদেন হয়েছে ১৭ কোটি ২৮ লাখ টাকা।

মার্চেন্ট ব্যাংকাররা বলছেন, গত কয়েক মাস ধরে পুঁজিবাজারে ব্যাংক ও ব্যাংক বহির্ভুত আর্থিক খাতের কোম্পানিগুলোর শেয়ারের দাম অনেক বেড়েছে। অথচ এখন জুনে অর্থবছর শেষ হওয়া কোম্পানিগুলোর লভ্যাংশ ঘোষণার সময়। ফলে এ ধরনের কোম্পানির শেয়ারের দামই বেশি বাড়ার কথা। অথচ এসব কোম্পানির বেশিরভাগেরই শেয়ারের দাম বাড়ার পরিবর্তে অনেক নিচে রয়ে গেছে। আর দ্রুত বেড়েছে ডিসেম্বরে অর্থ বছর শেষ হওয়া ব্যাংক ও আর্থিক কোম্পানিগুলোর শেয়ারের দাম।

 

এই পাতার আরো খবর -
facebook-recent-activity
১৭ অক্টোবর, ২০১৭ ইং
ফজর৪:৪২
যোহর১১:৪৪
আসর৩:৫৩
মাগরিব৫:৩৪
এশা৬:৪৬
সূর্যোদয় - ৫:৫৭সূর্যাস্ত - ০৫:২৯
পড়ুন