ফ্রান্সে শ্রম আইন সংস্কারের প্রতিবাদে ব্যাপক বিক্ষোভ
অনাস্থা ভোটের মুখোমুখি সরকার
বিবিসি১২ মে, ২০১৬ ইং
ফ্রান্সে শ্রম আইন সংস্কারের প্রতিবাদে ব্যাপক বিক্ষোভ
ফ্রান্সে ‘বিতর্কিত’ শ্রম আইন সংস্কারের প্রতিবাদে বিভিন্ন স্থানে বিক্ষোভ, পুলিশের সঙ্গে দফায় দফায় সংঘর্ষ ও ভাঙচুরের ঘটনা ঘটেছে। গতকাল এ ঘটনা ঘটে। এদিকে পার্লামেন্টকে এড়িয়ে শ্রম আইন সংস্কার করায় অনাস্থার মুখোমুখি হচ্ছে সরকার। 

ওইদিন ন্যান্টেস শহরে বিক্ষোভকারীদের সঙ্গে নিরাপত্তা বাহিনীর সংঘর্ষ হয়েছে। রাজধানী প্যারিসে পার্লামেন্টের বাইরেও ব্যাপক বিক্ষোভ হয়েছে। পুলিশ তাদেরকে ছত্রভঙ্গ করতে এক পর্যায়ে রাবার পিলেট ব্যবহার করে। বিক্ষোভকারীরা জানান, পার্লামেন্টকে পাশ কাটিয়ে বিশেষ ক্ষমতা ব্যবহার করে এই সংস্কার করা হয়েছে। এর মাধ্যমে শ্রমিকদের কোনো স্বার্থ রক্ষা হবে না। বরং তারা আরো শোষণের শিকার হবে।

 তারা বলেন, এর মাধ্যমে মালিকপক্ষ যে কোনো মুহূর্তে শ্রমিকদের বেতনে হস্তক্ষেপ করতে পারবে। এতে করে নতুন লোক নিয়োগ দেয়া যেমন সহজ হবে তেমনি ছাঁটাই করাও আরো সহজ হবে। দেশটির ক্ষমতাসীন সমাজতান্ত্রিক সরকারের তরফ থেকে বলা হয়, উচ্চ পর্যায়ের বেকারত্বের হার কমাতে এই সংস্কার প্রয়োজন ছিল। ডানপন্থি বিরোধী দল এ কারণে আজ অনাস্থা ভোটের আহবান জানিয়েছে।

প্রেসিডেন্ট ফ্রাসোয়া ওঁলান্দ গত কয়েকমাস ধরে এ নিয়ে বেশ চাপের মুখে ছিলেন। ছাত্র, বিভিন্ন শ্রমিক ইউনিয়ন এমনকি সরকারি দলের অনেকেই এই বিলের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করে। নিজ দলের বিরোধিতা সত্ত্বেও ফ্রান্সের প্রেসিডেন্টের সমর্থকেরা বিতর্কিত বিষয়টিকে সামনে নিয়ে আসায় শেষ পর্যন্ত এটি পার্লামেন্ট পর্যন্ত গড়ায়। মঙ্গলবার দেশটির প্রধানমন্ত্রী ম্যানুয়েল ভালস আনুষ্ঠানিকভাবে শ্রমআইন সংস্কারের ঘোষণা দেন।

এই পাতার আরো খবর -
facebook-recent-activity
১২ মে, ২০১৮ ইং
ফজর৩:৫৪
যোহর১১:৫৫
আসর৪:৩৩
মাগরিব৬:৩৫
এশা৭:৫৫
সূর্যোদয় - ৫:১৭সূর্যাস্ত - ০৬:৩০
পড়ুন