খেলাধুলা | The Daily Ittefaq

জুনিয়রদের দায়িত্ব নিতে হবে

জুনিয়রদের দায়িত্ব নিতে হবে
স্পোর্টস রিপোর্টার০৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং ০৩:৪৮ মিঃ
জুনিয়রদের দায়িত্ব নিতে হবে
সিনিয়রদের পারফরম্যান্সে ভর করে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে বাংলাদেশের জয়রথ অব্যাহত আছে। সিনিয়রদের পারফরম্যান্সের সামনে ম্লান জুনিয়র ক্রিকেটাররা।
 
গত এক বছরে বাংলাদেশের ক্রিকেটে আলোচিত বিষয়গুলোর অন্যতম সিনিয়রদের বিপরীতে জুনিয়রদের হতাশাজনক পারফরম্যান্স। জাতীয় দলের ক্রিকেটার আবু হায়দার রনি গতকাল বলেছেন, জুনিয়রদেরও এখন দায়িত্ব নেয়ার সময় এসেছে। তামিম-সাকিবদের সঙ্গে তরুণরা পারফর্ম করলে বাংলাদেশের জয়ের হার বেড়ে যাবে।
 
এশিয়া কাপ খেলতে আগামী ৯ সেপ্টেম্বর দেশত্যাগ করবে বাংলাদেশ দল। টুর্নামেন্টে বাংলাদেশের ভালো সুযোগ দেখছেন এই তরুণ ক্রিকেটার। ট্রফিতে চোখ থাকলেও রনি প্রাথমিকভাবে গ্রুপ পর্ব পার দিকেই মনোযোগী হতে চান।
 
সর্বশেষ ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরেও সীমিত ওভারের ক্রিকেটে সিনিয়র ক্রিকেটাররাই টেনেছেন বাংলাদেশ দলকে। তরুণদের মধ্যে লিটন দাস, মুস্তাফিজুর রহমান ব্যতিক্রম ছিলেন। তারা দুজন ছাড়া বাকিরা দলের প্রয়োজনে জ্বলে উঠতে পারেননি। এশিয়া কাপে ব্যাটে-বলে অগ্রজদের আরও বেশি সাপোর্ট দিতে হবে বলে মনে করেন রনি।
 
গতকাল মিরপুর স্টেডিয়ামে অনুশীলন শেষে এই বাঁহাতি পেসার বলেন, ‘এমন না সিনিয়রদের সঙ্গে আমরা জুনিয়ররা সাপোর্ট দিচ্ছি না, দিচ্ছি। এটা যদি আরেকটু বেশি দিতে পারি তাহলে হয়ত আমাদের দলের জন্য ভাল হবে। সিনিয়ররা নিয়মিত ভাল পারফর্ম করে যাচ্ছ, এখন আমাদের জুনিয়রদের দায়িত্ব নেওয়ার সময় এসেছে।  এখন দেখা যাচ্ছে ১০ ম্যাচ জিতলে ৫টা জিতছি। তখন হয়ত দেখা যাবে ৭/৮টা জিতব।’
 
এশিয়া কাপে দলীয়ভাবে আপাতত গ্রুপ পর্ব পার হওয়াই টার্গেট করছেন রনি। তরুণ এই ক্রিকেটার বলেন, ‘দলীয় লক্ষ্য যদি বলি তাহলে যেহেতু গ্রুপ আছে। যে দুটো ম্যাচ আছে ওইগুলাতে ভাল করে দ্বিতীয় রাউন্ডে যেতে পারি।’ গ্রুপ পর্বে শ্রীলঙ্কা ও আফগানিস্তানের বিরুদ্ধে খেলবে বাংলাদেশ।
 
পেস বোলিং বিভাগে মাশরাফির সঙ্গে আছেন মুস্তাফিজ, রুবেল ও রনি। প্রথম তিনজন নিয়মিত ওয়ানডে খেলে যাচ্ছেন। ওয়েস্ট ইন্ডিজ সিরিজের আত্মবিশ্বাস ধরে রাখতে পারলে এশিয়া কাপে বাংলাদেশের পেসারদের ভালো সম্ভাবনা দেখছেন রনি।
 
২২ বছর বয়সী এই পেসার বলেন, ‘আমাদের আসলে অনেক ভাল সম্ভাবনা আছে। যদি আমাদের পেস বোলিং অ্যাটাক দেখেন শেষ ওয়েস্ট ইন্ডিজ সিরিজে ওডিআই, টি-টোয়েন্টিতে অনেক ভাল বোলিং করছে। এই আত্মবিশ্বাস যদি এশিয়া কাপে নিতে পারি।  মনোযোগের সঙ্গে বল করতে পারি তাহলে হয়ত অনেক এগিয়েই থাকব।’
 
বয়সভিত্তিক দলের হয়ে সংযুক্ত আরব আমিরাতে খেলার অভিজ্ঞতা রয়েছে রনির। কন্ডিশন নিয়ে এই তরুণ বলেছেন, ‘দুবাইয়ে গরম থাকবে। গরমটা হয়ত সমস্যা হবে না কারণ আমরা গরমে খেলে অভ্যস্ত। কন্ডিশন আমাদের দেশের মতই। উইকেটে স্পিনাররা হয়ত সহায়তা পাবে, পেস বোলাররাও ওখানে ভাল বল করে। কারণ আমরা যখন খেলেছি সবুজ ঘাস ছিল, আবুধাবিতে যে উইকেটে খেলেছি। যেমন আমরা পিএসএলে দেখি হয়ত কাছাকাছিই থাকবে। আমার মনে হয় ভাল স্পোর্টিং উইকেট থাকবে।’
 
কন্ডিশন যাই হোক টুর্নামেন্টে ভালো করতে দল হিসেবে সেরাটা দিতে হবে বলে উল্লেখ করেছেন রনি। তিনি বলেন, ‘যেরকম কন্ডিশনই থাক আমাদের সেরাটা দিতে হবে। আমি সুবিধার কথাই বলব। যেহেতু এশিয়াতে খেলা। আশা করি ভালই করব।’
এই পাতার আরো খবর -
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
২২ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং
ফজর৪:৩২
যোহর১১:৫২
আসর৪:১৪
মাগরিব৫:৫৮
এশা৭:১১
সূর্যোদয় - ৫:৪৭সূর্যাস্ত - ০৫:৫৩