ঢাকা শনিবার, ১৯ জানুয়ারি ২০১৯, ৬ মাঘ ১৪২৫
২৩ °সে

পাঁচ মহারথীর সেঞ্চুরি আজ

পাঁচ মহারথীর সেঞ্চুরি আজ
ফাইল ছবি

সাদা চোখে আজকের ম্যাচটি স্রেফ আরেকটি ওয়ানডে। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে আরেকটা সিরিজ জেতার সুযোগ। কিন্তু আজ মিরপুর শেরে বাংলা স্টেডিয়ামে যে ওয়ানডে ম্যাচটি অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে, এর মাহাত্ম্য এখানেই শেষ নয়। এটা বাংলাদেশের পাঁচ সিনিয়র ক্রিকেটারের এক সাথে খেলা শততম ম্যাচ হতে যাচ্ছে।

আজ এক সাথে ১০০তম বারের মতো খেলতে নামবেন মাশরাফি বিন মুর্তজা, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, মুশফিকুর রহিম, তামিম ইকবাল ও সাকিব আল হাসান।

২০০৭ সালে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের অভিষেকের পর থেকে বাংলাদেশের ক্রিকেট দলে আস্তে আস্তে তৈরি হয় পাঁচ সিনিয়র ক্রিকেটারের এই কেন্দ্রস্থল। এরপর কখনো কখনো কেউ বাদ পড়েছেন, কেউ ইনজুরিতে খেলতে পারেননি। ফলে সবগুলো ম্যাচে এই পাঁচ ক্রিকেটারের এক সাথে খেলা হয়নি। ২০১৫ সাল থেকে এই পাঁচজন হয়ে ওঠেন বাংলাদেশের ক্রিকেটের প্রাণভোমরা। এদের উপর ভর করেই নতুন এক যুগে প্রবেশ করে বাংলাদেশ। একটার পর একটা ওয়ানডে ম্যাচ, সিরিজ জিতেছে বাংলাদেশ এই সময়ে; যার বেশিরভাগের রূপকার ছিলেন এই পাঁচজন। অবশেষে সেই পাঁচ ক্রিকেটার এক সাথে শততম ম্যাচ খেলতে যাচ্ছেন আজ।

ক্রিকেট ইতিহাসে এমন পাঁচজনের একটা গ্রুপ গড়ে ওঠা এবং তাদের শত ম্যাচ খেলে ফেলাটা খুব বিরল কিছু নয়। অন্তত ইতিহাসে ৬৪টি এ রকম পাঁচজনের দল পাওয়া যাবে, যারা এক সাথে শত ম্যাচ খেলেছেন। কিন্তু বাংলাদেশের মতো একটা অস্থিতিশীল ক্রিকেট মানসিকতার দেশে এটা একটা ঐতিহাসিক ঘটনা।

এই পাঁচজনকে ইতিহাস একসাথে হয়তো ভিন্ন ভিন্ন ভাবে মনে রাখবে। এদের মধ্যে নিশ্চয়ই সেরা পারফরমার সাকিব আল হাসান। তিনি প্রতিনিয়ত নিজেকে আরও উঁচুতে তুলে নিচ্ছেন। তামিম এই দলের ব্যাটিংয়ের সেরা। বাংলাদেশের ব্যাটিংয়ের প্রায় সব রেকর্ড তার দখলে। সময়ের সাথে সাথে নিজেকে বদলে ফেলে তিনি এখন দলের ভরসায় পরিণত হয়েছেন। মুশফিক এই দলের শৃঙ্খলা ও পরিশ্রমে এক উদাহরণ। দেশের বাইরে সবচেয়ে বেশি টেস্ট সেঞ্চুরির এই মালিক অফুরান রানের এক উত্স।

দলের যখন যে ভূমিকা দরকার, সেই ভূমিকা পালন করতে প্রস্তুত থাকা খেলোয়াড় মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। কখনো মারকুটে ফিনিশার, কখনো ইনিংস সামলে রাখা ব্যাটসম্যান হয়ে উঠতে হয় তাকে। এই পাঁচজনের মধ্যে সবচেয়ে সিনিয়র মাশরাফি বিন মুর্তজা। বহু তরুণের উত্থানের পরও গত কয়েক বছরে দলের সেরা বোলার মাশরাফি। সেই সাথে অধিনায়ক হিসেবে দলকে নতুন একটা যুগে নিয়ে যাওয়ারও কৃতিত্ব তার।

আরো পড়ুন: উন্নত চিকিৎসা নিতে সিঙ্গাপুরে এরশাদ

এই পাঁচজনের এক সাথে সেঞ্চুরি করে ফেলা সম্পর্কে বলতে গিয়ে তামিম ইকবাল বলছিলেন, ‘এটা অবশ্যই একটা বিশেষ উপলক্ষ। আমরা এই পাঁচজন পরস্পরকে গত পনেরো বছর ধরে চিনি। আমরা অনেক উত্থান-পতন একসাথে দেখেছি। আশা করি, আমরা এই ম্যাচটাতেও বিশেষ কিছু করে উপলক্ষটা স্মরণীয় করে রাখবো।’

মাশরাফি বলছিলেন, এই সিনিয়র ক্রিকেটারদের বাকিদের পারফরম্যান্স তার অধিনায়কত্বের এই সোনালী সময়টাকে অনেক সহজ করে ফেলেছে। তিনি মনে করেন, এই গ্রুপটার এখন আরও বেশি অবদান রাখার সময় এসেছে, ‘তারা সবাই পারফরমার। তারা আমার কাজটা অনেক সহজ করে ফেলেছে। এদের ধারাবাহিকতা দলের জন্য অসাধারণ একটা ব্যাপার। এখন এটা আরও বেশি দরকার যে, এই সিনিয়র ক্রিকেটাররা আরও বেশি অবদান রাখবে দলের জন্য।’

ইত্তেফাক/এএম

এই পাতার আরো খবর -
  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
prayer-time
১৯ জানুয়ারি, ২০১৯
আর্কাইভ
 
বেটা
ভার্সন