বাণিজ্য | The Daily Ittefaq

৭ মাসে ওয়ালটনের ফ্রিজ বিক্রি বেড়েছে ৩০ শতাংশের বেশি

৭ মাসে ওয়ালটনের ফ্রিজ বিক্রি বেড়েছে ৩০ শতাংশের বেশি
অনলাইন ডেস্ক১২ আগষ্ট, ২০১৭ ইং ১৬:৫৩ মিঃ
৭ মাসে ওয়ালটনের ফ্রিজ বিক্রি বেড়েছে ৩০ শতাংশের বেশি
চলতি বছরের প্রথম সাত মাসে ওয়ালটনের ফ্রিজ বিক্রি বেড়েছে ৩০.২৯ শতাংশ। এ ছাড়া গত বেশ কয়েক বছর ধরেই স্থানীয় ফ্রিজের বাজারে ৭০ শতাংশেরও বেশি মার্কেট শেয়ার নিজেদের দখলে রেখেছে ওয়ালটন। 
 
আসন্ন কোরবানির ঈদকে সামনে রেখে ৫ লাখ ফ্রিজ বিক্রির টার্গেট রয়েছে তাদের। ২০১৭ সালে লক্ষ্যমাত্রা ১৭ লাখ ফ্রিজ বিক্রির। এরই মধ্যে গত ১ আগস্ট একদিনেই লক্ষাধিক ফ্রিজ বিক্রির রেকর্ড গড়েছে ওয়ালটন। 
 
জানা গেছে, গত কয়েক বছর ধরে ফ্রিজের অভ্যন্তরীণ বাজারের ৭০ শতাংশেরও বেশি এককভাবে ওয়ালটনের দখলে রয়েছে। এর পেছনে ওয়ালটন কর্তৃপক্ষ বেশকিছু যুক্তি দেখিয়েছে। এর মধ্যে রয়েছে, ফ্রিজ তৈরিতে বিশ্বের লেটেস্ট প্রযুক্তির ব্যবহার, ইন্টেলিজেন্ট ইনভার্টার প্রযুক্তির কম্প্রেসার তৈরি, পরিবেশবান্ধব আর-৬০০ এ গ্যাস এর ব্যবহার, আকর্ষণীয় ডিজাইন, সাশ্রয়ী মূল্য এবং সেরা বিক্রয়োত্তর সেবা। 
 
চলতি বছর রুচিশীল গ্রাহকদের জন্য ইনভার্টার প্রযুক্তির ব্যাপক বিদ্যুৎ সাশ্রয়ী নন-ফ্রস্ট রেফ্রিজারেটরের পাশাপাশি টেম্পারড গ্লাস ডোরের অসংখ্য মডেলের ফ্রিজ বাজারে ছেড়েছে ওয়ালটন। স্থানীয় বাজারে ওয়ালটনের নতুন মডেলের এসব ফ্রিজ ব্যাপক গ্রাহকপ্রিয়তা পেয়েছে। সার্বিকভাবে দেশীয় ব্র্যান্ড ওয়ালটনের ফ্রিজ বিক্রিও বেড়েছে উল্লেখযোগ্যহারে। যার প্রমাণ- গত বছরের প্রথম সাত মাসের (জানুয়ারি থেকে জুলাই) তুলনায় চলতি বছরের একই সময়ে ফ্রিজ বিক্রিতে ৩০.২৯ শতাংশ প্রবৃদ্ধি হয়েছে ওয়ালটনের।
ওয়ালটন সূত্রমতে, চলতি বছর দেশের শীর্ষ ইলেকট্রনিক্স প্রতিষ্ঠানটির টার্গেট ১৭ লাখ ফ্রিজ বিক্রি করা। যা কি না ২০১৬ সালের ফ্রিজ বিক্রির তুলনায় প্রায় ২৪.৫০ শতাংশ বেশি। অবশ্য, চলতি বছরের প্রথম সাত মাসে লক্ষ্যমাত্রার চেয়েও বেশি ফ্রিজ বিক্রি হয়েছে। একই সময়ে কারখানায় ফ্রিজ উৎপাদনও বেড়েছে প্রায় ৩০ শতাংশ। 
 
সার্বিক দিক বিবেচনায় বছর শেষে লক্ষ্যমাত্রার চেয়েও বেশি ফ্রিজ বিক্রি হবে বলে দৃঢ় আশাবাদ ব্যক্ত করেন ওয়ালটনের বিপণন বিভাগের প্রধান সমন্বয়ক ইভা রিজওয়ানা। তিনি বলেন, এখন পর্যন্ত ফ্রিজ বিক্রিতে নির্ধারিত লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে বেশি প্রবৃদ্ধির ধারা অব্যাহত রয়েছে। চলতি মাসে প্রবৃদ্ধির হার আরো বেশি হবে। কারণ, সামনেই কোরবানি ঈদ। আর ঈদের আগের এই সময়টাকে ফ্রিজ বিক্রির প্রধান মৌসুম হিসেবে বিবেচনা করা হয়ে থাকে।
 
ওয়ালটনের বিপণন বিভাগের প্রধান মো. এমদাদুল হক সরকার বলেন, স্থানীয় বাজারে গ্রাহক আস্থা ও চাহিদার শীর্ষে ওয়ালটন। ফলে, চলতি মাসের প্রথম দিনেই বিক্রি হয়েছে এক লাখেরও বেশি ফ্রিজ।
 
ওয়ালটনের সোর্সিং ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের প্রধান আশরাফুল আম্বিয়া বলেন, যুগের সাথে তাল মিলিয়ে ওয়ালটন ফ্রিজে প্রতিনিয়ত যুক্ত হচ্ছে বিশ্বের লেটেস্ট প্রযুক্তি। বাংলাদেশের জন্য ৪৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রায়ও স্বাস্থ্যসম্মত খাবার সংরক্ষণের নিশ্চয়তায় তৈরি হচ্ছে ওয়ালটন ফ্রিজ।
 
ইত্তেফাক/ইউবি
 
 
 
 
এই পাতার আরো খবর -
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
২৪ অক্টোবর, ২০১৭ ইং
ফজর৪:৪৩
যোহর১১:৪৩
আসর৩:৪৮
মাগরিব৫:২৯
এশা৬:৪২
সূর্যোদয় - ৫:৫৯সূর্যাস্ত - ০৫:২৪