অর্থনীতি | The Daily Ittefaq

‘করপোরেট কর কমার সুবিধা সৌভাগ্যবশত পেয়েছে ব্যাংক মালিকরা’

‘করপোরেট কর কমার সুবিধা সৌভাগ্যবশত পেয়েছে ব্যাংক মালিকরা’
অনলাইন ডেস্ক২১ জুন, ২০১৮ ইং ১৯:৩২ মিঃ
‘করপোরেট কর কমার সুবিধা সৌভাগ্যবশত পেয়েছে ব্যাংক মালিকরা’
ফাইল ছবি
জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) চেয়ারম্যান মোশাররফ হোসেন ভূইয়া বলেছেন, করপোরেট কর কমার সুবিধা ব্যাংক খাত সৌভাগ্যবশত পেয়ে গেছে। অর্থমন্ত্রীর ইচ্ছা ছিল, এবার করপোরেট কর কমানো হবে। কিন্তু ঢালাওভাবে করপোরেট কর কমালে অনেক রাজস্ব ক্ষতি হয়। মোবাইল ফোন অপারেটর ও তামাক খাতের কোম্পানিগুলো ছাড়া ব্যাংকের করপোরেট কর হার সবচেয়ে বেশি। তাই ব্যাংকের করপোরেট কর হার কমানো হয়েছে। 
 
বৃহস্পতিবার রাজধানীর মতিঝিলে চেম্বার ভবনে মেট্রোপলিটন চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রি (এমসিসিআই) ও বেসরকারি গবেষণা প্রতিষ্ঠান পলিসি রিসার্চ ইনস্টিটিউট (পিআরআই) আয়োজিত বাজেট আলোচনায় এনবিআর চেয়ারম্যান এসব কথা বলেন। 
 
এমসিসিআই সভাপতি নিহাদ কবিরের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে পিআরআইয়ের চেয়ারম্যান জাঈদী সাত্তার, শিল্পগোষ্ঠী এসিআইয়ের চেয়ারম্যান আনিস উদ দৌলা, সাবেক বাণিজ্যসচিব সোহেল আহমেদ চৌধুরী, এমসিসিআইয়ের কর সংক্রান্ত উপকমিটির সদস্য সাইদ আহমেদ খানসহ ব্যবসায়ী ও গবেষকেরা বক্তব্য রাখেন। অনুষ্ঠানে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন পিআরআই নির্বাহী পরিচালক আহসান এইচ মনসুর ও কেপিএমজির জ্যেষ্ঠ অংশীদার আদিব এইচ খান। 
 
এনবিআর চেয়ারম্যান বলেন, ব্যাংকের করপোরেট কর কমানোর পেছনে আরেকটি কারণ ছিল-সুদের হার কমানোর জন্য চাপ দিতে পারব। যদিও সরাসরি তা দেওয়া হয়নি। শেষ পর্যন্ত সুদের হার কমানোর কথা বলা হবে। 
 
উল্লেখ্য, আগামী অর্থবছরের বাজেটে শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত ব্যাংকের করপোরেট কর হার ৪০ থেকে সাড়ে ৩৭ শতাংশে নামিয়ে আনার প্রস্তাব করা হয়েছে। আর শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত নয় এমন ব্যাংকের করপোরেট কর হার সাড়ে ৪২ থেকে ৪০ শতাংশে নামিয়ে আনার প্রস্তাব করা হয়েছে। করপোরেট কর হারের ক্ষেত্রে এই বড় পরিবর্তন আনা হয়েছে।
 
অনুষ্ঠানে এমসিসিআই সভাপতি নিহাদ কবির রপ্তানি পণ্যে বৈচিত্র আনার জন্য তৈরি পোশাক খাতের পাশাপাশি অন্য খাতকে কর সুবিধা দেওয়ার সুপারিশ করেন।
 
আহসান এইচ মনসুর তার প্রবন্ধে উল্লেখ করেন যেসব ব্যাংক ঋণের সুদের হার ১০ শতাংশের নিচে নামিয়ে আনবে, এমন ব্যাংকের ক্ষেত্রে বাজেটে প্রস্তাবিত করপোরেট কর আরোপ করা উচিৎ।
 
অন্যদিকে আদিব এইচ খান তার মূল প্রবন্ধে এবারের বাজেটের অর্থবিলের বিভিন্ন দিক তুলে ধরেন। তিনি ব্যক্তি শ্রেনির করদাতাদের করমুক্ত আয়সীমা বৃদ্ধির বিষয়টি বিবেচনার সুপারিশ করেন। বাসস
 
ইত্তেফাক/ইউবি
 

 

এই পাতার আরো খবর -
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং
ফজর৪:৩১
যোহর১১:৫২
আসর৪:১৫
মাগরিব৫:৫৯
এশা৭:১২
সূর্যোদয় - ৫:৪৬সূর্যাস্ত - ০৫:৫৪