অর্থনীতি | The Daily Ittefaq

চলতি মাসের মধ্যে গার্মেন্টসে ১৮ হাজার টাকা মজুরি ঘোষণার দাবি

চলতি মাসের মধ্যে গার্মেন্টসে ১৮ হাজার টাকা মজুরি ঘোষণার দাবি
ইত্তেফাক রিপোর্ট১৯ জুলাই, ২০১৮ ইং ০২:৫৯ মিঃ
চলতি মাসের মধ্যে গার্মেন্টসে ১৮ হাজার টাকা মজুরি ঘোষণার দাবি
চলতি মাসের মধ্যে গার্মেন্টসে ১৮ হাজার টাকা মজুরি ঘোষণার দাবি গার্মেন্টস খাতের শ্রমিকদের জন্য গঠিত মজুরি বোর্ডে শ্রমিক প্রতিনিধি ও মালিকপক্ষের দেওয়া মজুরি প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করেছে বেশিরভাগ শ্রমিক সংগঠন। সামনের সারির বেশ কয়েকটি শ্রমিক সংগঠন ইতিমধ্যে এ বিষয়ে বিবৃতি দিয়েছে। এ তালিকায় রয়েছে গার্মেন্টস শ্রমিক ট্রেড ইউনিয়ন কেন্দ্র, জাতীয় গার্মেন্টস শ্রমিক ফেডারেশন, ইন্ডাস্ট্রিঅল বাংলাদেশ কাউন্সিল (আইবিসি), গার্মেন্টস শ্রমিক কর্মচারি ঐক্য পরিষদ (জি-স্কপ), গার্মেন্টস শ্রমিক ফ্রন্টসহ বেশ কয়েকটি সংগঠন এই প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করে ১৬ হাজার টাকা মজুরি  ঘোষণার দাবি জানিয়েছে। এ দাবিতে বিক্ষোভ, সমাবেশ ও মানবনন্ধন করছে কেউ কেউ। আইবিসি এক বিবৃতিতে বলেছে, মজুরি বোর্ডে শ্রমিক পক্ষের প্রকৃত প্রতিনিধিত্ব না থাকায় শ্রমিকের স্বার্থ রক্ষা হচ্ছে না। আইবিসি’র মহাসচিব তৌহিদুর রহমান বলেন, আমরা আগেই আশঙ্কা করেছিলাম মজুরি বোর্ডের শ্রমিক প্রতিনিধি হিসেবে খাত বহির্ভূত এই ধরণের ব্যক্তিদের দায়িত্ব দিলে শ্রমিক শ্রেনীর স্বার্থের বারোটা বাজবে। সেটাই প্রমাণিত হলো। এ খাতের শ্রমিকদের ন্যুনতম মজুরি ১৬ হাজার টাকার দাবি জানিয়ে তিনি বলেন, অন্যথায় পোশাক শিল্পের শ্রমিকরা আন্দোলনের মাধ্যমে যুক্তিসঙ্গত মজুরি আদায় করে নিবে। আন্দোলনের লক্ষ্যে শিগগিরই আলোচনা শুরু করা হবে বলেও বিবৃতিতে জানান তিনি।
 
গতকাল বুধবার জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে গার্মেন্টস খাতের শ্রমিকদের জন্য চলতি মাসের মধ্যে ১৮ হাজার টাকা মজুরির দাবিতে বিক্ষোভ সমাবেশ কর্মসূচী পালন করেছে। মজুরি বোর্ডের ৩য় বৈঠকে মালিক পক্ষের প্রতিনিধি এবং সরকার মনোনিত শ্রমিক প্রতিনিধির উত্থাপিত মজুরি প্রস্তাব প্রত্যাখান করে সমাবেশে শ্রমিক নেতারা বক্তব্য দেন।
 
সংগঠনের সভাপতি আহসান হাবিব বুলবুলের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত বিক্ষোভ সমাবেশে বক্তব্য রাখেন সহ-সভাপতি খালেকুজ্জামান লিপন, সাধারণ সম্পাদক সেলিম মাহমুদ প্রমুখ। শ্রমিক নেতারা প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করে বলেন, মজুরি বোর্ডে দাখিলকৃত এই মজুরি প্রস্তাবনাই গার্মেন্টস শ্রমিকদের দীর্ঘদিনের দাবি উপেক্ষিত হয়েছে। মালিক পক্ষের প্রস্তাবনা প্রমাণ করে, মজুরি বোর্ড গঠনের জন্য তাদের অনুরোধ ছিল প্রকৃতপক্ষে ষড়যন্ত্রের অংশ। কারণ ২০১৩ সালে গার্মেন্টস শ্রমিকদের জন্য নিম্নতম মজুরি ৫ হাজার ৩০০ টাকা ধরে ঘোষিত মজুরি কাঠামোই প্রতি বছর ৫ শতাংশ হারে মজুরি বৃদ্ধির কথা ছিল। সেই হিসাবে বিদ্যমান মজুরিই ৬ হাজার ৪৫০ টাকার বেশি হওয়ার কথা। আর মালিকরা গার্মেন্টস শ্রমিকদের মজুরি ৬ হাজার ৩৬০ টাকা প্রস্তাব করেছেন।
 
প্রসঙ্গত, গত ২৯ জানুয়ারি গার্মেন্টস খাতের শ্রমিকদের নতুন মজুরি নির্ধারণের লক্ষ্যে মজুরি বোর্ড গঠন করে সরকার। শ্রমিক সংগঠনগুলোর বেশিরভাগই দীর্ঘদিন ধরে ১৬ হাজার টাকা মজুরির দাবি জানিয়ে আসছে। কিন্তু গত সোমবার বোর্ডের সভায় শ্রমিক পক্ষের প্রতিনিধি শামসুন্নাহার ভূঁইয়া প্রস্তাব দেন ১২ হাজার ২০ টাকার। এ নিয়ে ক্ষোভ তৈরি হয় অনেক শ্রমিক সংগঠনের মধ্যে।
এই পাতার আরো খবর -
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
২০ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং
ফজর৪:৩২
যোহর১১:৫৩
আসর৪:১৬
মাগরিব৬:০১
এশা৭:১৩
সূর্যোদয় - ৫:৪৬সূর্যাস্ত - ০৫:৫৬