অর্থনীতি | The Daily Ittefaq

যুক্তরাষ্ট্রে ফামাক্যাশের যাত্রা শুরু

যুক্তরাষ্ট্রে ফামাক্যাশের যাত্রা শুরু
বিশেষ প্রতিনিধি, যুক্তরাষ্ট্র০৯ আগষ্ট, ২০১৮ ইং ১১:২৬ মিঃ
যুক্তরাষ্ট্রে ফামাক্যাশের যাত্রা শুরু
যুক্তরাষ্ট্রে আনুষ্ঠানিকভাবে যাত্রা শুরু করেছে বাংলাদেশি মালিকানাধীন আর্থিক প্রতিষ্ঠান ফামাক্যাশ। এই প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে অপেক্ষাকৃত কম খরচে প্রবাসীরা দেশে রেমিটেন্স পাঠাতে পারবেন। স্থানীয় সময় শনিবার নিউইয়র্কের ম্যারিয়ট লাগোর্ডিয়া হোটেলের বলরুমে ফিতা কেটে ফামাক্যাশের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন যুক্তরাষ্ট্র সফররত রূপালী ব্যাংকের চেয়ারম্যান মঞ্জুর হোসেন। 
 
যুক্তরাষ্ট্রের সিবিডব্লিউ ব্যাংক এবং বাংলাদেশে রাষ্ট্রায়াত্ত্ব মালিকানাধীন রূপালী ব্যাংকের মাধ্যমে অর্থ আদান-প্রদান করবে ফামাক্যাশ। মোবাইল ব্যাংকিং-এর পাশাপাশি বিভিন্ন স্থানে স্থাপিত রেমিটেন্স হাউস ও এজেন্টের মাধ্যমেও অর্থ পাঠানো যাবে।   
 
উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন রূপালী ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা আতাউর রহমান প্রধান, যুক্তরাষ্ট্রের সিবিডব্লিউ ব্যাংকের প্রেসিডেন্ট সঞ্চিতা পদ্মামানভন, ফামাক্যাশের প্রেসিডেন্ট ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা সাইফুল খন্দকারসহ প্রতিষ্ঠানটির পরিচালকেরা। 
 
অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন ওয়াশিংটনে বাংলাদেশ দূতাবাসের মিনিস্টার (ইকনোমিক) সাহাবুদ্দিন পাটোয়ারী, ফামাক্যাশের পরিচালক ইঞ্জিনিয়ার আবু হানিপ, হোসাইন সিরাজি, রবিউল করিম বেলাল, সংস্থাটির বাংলাদেশ অফিসের ব্যবস্থাপনা পরিচালক খাজা রেহান বখত ও যুক্তরাষ্ট্রের কংগ্রেসওম্যান গ্রেস মেং-এর পরিচালক  (যোগাযোগ) জর্দান গল্ডেস।
 
ফামাক্যাশের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা সাইফুল খন্দকার বলেন, নামমাত্র ফিতে এক ক্লিকেই প্রবাসীর স্বজনেরা অর্থ পেয়ে যাবেন। বাংলাদেশের রূপালী ব্যাংক থেকে সে অর্থ উত্তোলন করা যাবে কিংবা মোবাইলে তা জমা হবে।
 
সাইফুল উল্লেখ করেন, যুক্তরাষ্ট্রের প্রবাসীরাও অন্য সিটির লোকজনের কাছে একই প্রক্রিয়ায় অর্থ পাঠাতে পারবেন। মধ্যপ্রাচ্য ও ইউরোপেও এ কর্মসূচি সম্প্রসারণ হবে।
 
রূপালী ব্যাংকের চেয়ারম্যান মঞ্জুর হোসেন বলেন, আজকের দিনটি আমেরিকা প্রবাসীদের জন্যে যেমন ঐতিহাসিক একটি দিন, একইভাবে রূপালী ব্যাংকের জন্যেও নবদিগন্ত উম্মোচনকারী একটি মুহূর্ত।
 
রুপালী ব্যাংকের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা আতাউর রহমান প্রধান বলেন, গত বছর আমি এই নিউ ইয়র্কে একটি সুধী সমাবেশে অঙ্গীকার করেছিলাম প্রবাসীদের জন্যে বিশেষ কিছু করার। সে তাগিদেই ‘ফামাক্যাশ’-এর সঙ্গে রূপালী ব্যাংকের গভীর একটি সম্পর্ক রচিত হতে যাচ্ছে।
 
সংস্থার পরিচালক আবু হানিপ বলেন, যুক্তরাষ্ট্রে ৬০ বিলিয়ন ডলারের রেমিটেন্স মার্কেট। এটি ধরতে পারলে ফামাক্যাশ’-এর অগ্রযাত্রা তথা প্রবাসীদের স্বপ্ন পূরণে আর কোনো সমস্যা থাকবে না। তিনি উল্লেখ করেন, আইটি স্পেশালিস্ট হিসেবে সাইফুল খন্দকার দীর্ঘদিন চেষ্টার পর এই অ্যাপস তৈরি করেছেন, যা অত্যন্ত নিরাপদ এবং তড়িৎ কাজ করতে সক্ষম। এটাই হবে এই কোম্পানির এগিয়ে চলার ক্ষেত্রে বড় সফলতা।
 
ফামাক্যাশের অন্যতম পরিচালক হাসানুজ্জামান হাসান বলেন, সারা আমেরিকার প্রবাসীরা আজ এই সংস্থায় ঐক্যবদ্ধ। দলমত-নির্বিশেষে, এমনকি ফোবানার উভয় গ্রুপের কর্মকর্তারাও এসেছেন। নিজের, কমিউনিটির এবং জাতীয় স্বার্থে ঐক্যের এই ধারাকে এগিয়ে নিতে ফামাক্যাশ অভূতপূর্ব ভূমিকা রাখবে তা বলার অপেক্ষা রাখে না।
 
বাংলাদেশ দূতাবাসের মিনিস্টার (ইকনোমিক) বাংলাদেশের অর্থনৈতিক সমৃদ্ধির ক্ষেত্রে রেমিটেন্স অপরিহার্য একটি অঙ্গ হিসেবে উল্লেখ করে বলেন, ফামাক্যাশ সেই ইস্যুতে অপরিসীম ভূমিকা রাখতে সক্ষম হবে বলে মনে করছি।
 
অনুষ্ঠানে ফামাক্যাশের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, ‘দ্য বেস্ট ওয়ে টু স্পেন্ড, সেন্ড অ্যান্ড রিসিভ মানি’ স্লোগানে উজ্জীবিত ‘ফামাক্যাশ’-এর মাধ্যমে বহুজাতিক স্টোরগুলোতে কেনাকাটা ছাড়াও সব ধরনের দৈনন্দিন বিল পরিশোধও করা যাবে। বিভিন্ন উৎসবে মূল্যহ্রাসের কুপনও ব্যবহার করা যাবে।
 
ইত্তেফাক/ইউবি
এই পাতার আরো খবর -
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
২০ আগষ্ট, ২০১৮ ইং
ফজর৪:১৬
যোহর১২:০২
আসর৪:৩৬
মাগরিব৬:৩১
এশা৭:৪৭
সূর্যোদয় - ৫:৩৬সূর্যাস্ত - ০৬:২৬