সারাদেশ | The Daily Ittefaq

কাশিপুরে ক্ষমতাসীন দলের দুই গ্রুপের বিরোধে মিল্টন ও পারভেজ নিহত

কাশিপুরে ক্ষমতাসীন দলের দুই গ্রুপের বিরোধে মিল্টন ও পারভেজ নিহত
নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি১৩ অক্টোবর, ২০১৭ ইং ০০:৪৮ মিঃ
কাশিপুরে ক্ষমতাসীন দলের দুই গ্রুপের বিরোধে মিল্টন ও পারভেজ নিহত

নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার ফতুল্লা থানার কাশিপুরের হোসানী নগর এলাকায় প্রতিপক্ষের ধারালো অস্ত্রের আঘাতে একই ঘরে দুইজন খুন হয়েছে। বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত সাড়ে ১০টায় মিল্টন হোসেন (২৫) ও পারভেজ আহম্মেদ (২৬) নামে দুই যুবককে একই ঘরে অজ্ঞাত সন্ত্রাসীরা কুপিয়ে হত্যা করে।

খবর পেয়ে রাত ১১টায় পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে। নিহত যুবকদ্বয় কোন রাজনৈতিক দলের সদস্য কিনা পুলিশ তা এখনও নিশ্চিত করতে পারেনি। তবে এলাকাবাসী জানায়, এলাকায় আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে প্রতিপক্ষের সন্ত্রাসীরা ২ যুবককে কুপিয়ে হত্যা করেছে।

নিহত মিল্টনের পিতার নাম শাহেব আলী। সে কাশিপুর এলাকায় বসবাস করতো। মিল্টনের বাড়ি বরিশালে। সে একজন ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী। নিহত পারভেজের পিতার নাম ও ঠিকানা এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত জানা যায়নি।

রাত সাড়ে ১১ টায় পুলিশ সুপার মাঈনুল হকসহ উর্ধতন পুলিশ কর্মকর্তারা ঘটনাস্থলে এসেছেন। তবে হত্যাকাণ্ডের কারণ ও কারা জড়িত তা জানা না গেলেও ক্ষমতাসীন দলের সদস্যদের প্রভাব বিস্তাÍরকে কেন্দ্র করে এ হত্যাকাণ্ড ঘটেছে বলে এলাকাবাসীর ধারণা।

এলাকাবাসী আরও জানান, মিল্টন হোসাইনিনগর এলাকায় একটি রিকশা গ্যারেজের ব্যবসা করেন। ওই গ্যারেজের ভেতরে একটি ছোট হোসিয়ারী কারখানাও রয়েছে। এলাকার প্রভাব বিস্তারকে কেন্দ্র করে কয়েকদিন আগে বাপ্পী সিকদার নামের এক যুবককে কুপিয়ে জখম করে মিল্টন। এসব নিয়ে তাদের মধ্যে বিরোধ ছিল। গতকাল বৃহস্পতিবার রাত ১০টায় একদল সন্ত্রাসী ধারালো অস্ত্র নিয়ে ওই গ্যারেজে হানা দেয়। ওই সময় এলাকায় আতংক ছড়িয়ে পড়ে। হামলাকারীরা ভেতরে প্রবেশ করে সেখানে থাকা মিল্টন ও পারভেজকে কুপিয়ে মৃত্যু নিশ্চিত করে চলে যায়। তখন গ্যারেজ ও হোসিয়ারী ভাঙচুর করে তারা।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ক-অঞ্চল) শরফুদ্দিন আহাম্মদ ও ফতুল্লা মডেল থানার ওসি কামালউদ্দিন জানান, ধারণা করা হচ্ছে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে প্রতিপক্ষের লোকজন এ হত্যাকাণ্ড ঘটিয়েছে। পুলিশ লাশ দুটি উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য ১০০ শয্যা বিশিষ্ট নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে।

এলাকাবাসী রাত ১২টায় এ প্রতিবেদককে জানায়, নিহতরা ক্ষমতাসীন দল আওয়ামীলীগের রাজনীতির সঙ্গে জড়িত ছিল। হত্যাকারীদের নাম ঠিকানা না বললেও একাধিক সূত্র নিশ্চিত করেছে ক্ষমতাসীন দলের অপর একটি মহলের সঙ্গে নিহতদের বিরোধ ছিল। এতে স্পষ্ট ক্ষমতাসীন দলের সদস্যদের প্রভাব বিস্তারকে কেন্দ্র করে কাশিপুরে জোড়া খুনের ঘটনা ঘটেছে।

ইত্তেফাক/নূহু

এই পাতার আরো খবর -
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
১৪ নভেম্বর, ২০১৭ ইং
ফজর৫:১১
যোহর১১:৫৩
আসর৩:৩৮
মাগরিব৫:১৭
এশা৬:৩৪
সূর্যোদয় - ৬:৩২সূর্যাস্ত - ০৫:১২