সারাদেশ | The Daily Ittefaq

আশুগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পূর্ণাঙ্গ স্বাস্থ্যসেবা চালুর দাবি

আশুগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পূর্ণাঙ্গ স্বাস্থ্যসেবা চালুর দাবি
আশুগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পূর্ণাঙ্গ স্বাস্থ্যসেবা চালুর দাবি

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সকল অবকাঠামো নির্মাণের দীর্ঘ এক বছরেও চালু করা হয়নি পূর্ণাঙ্গ স্বাস্থ্য সেবা। প্রয়োজনীয় জনবল নিয়োগ, আসবাবপত্র ও চিকিত্সা সরঞ্জাম সরবরাহ না দেওয়ায় ৫০ শয্যা বিশিষ্ট এই স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সটিতে পূর্ণাঙ্গ স্বাস্থ্য সেবা চালু করা সম্ভব হচ্ছে না। ফলে সবার জন্য স্বাস্থ্য সেবা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে উপজেলার দুই লক্ষাধিক মানুষ। পূর্ণাঙ্গ স্বাস্থ্য সেবা চালুর দাবিতে উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে আশুগঞ্জ। এ ঘটনায় জাগ্রত আশুগঞ্জবাসী সংগঠনের উদ্যোগে বুধবার সকালে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। নবনির্মিত উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এর সামনে অনুষ্ঠিত এই মানববন্ধনে উপজেলার বিভিন্ন সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও রাজনৈতিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ সহ সহস্রাধিক লোক অংশগ্রহণ করেন।

জাগ্রত আশুগঞ্জবাসী সংগঠনের যুগ্ম আহ্বায়ক মো. মোবারক আলী চৌধুরীর সভাপতিত্বে মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন- উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান রেহানা বেগম, আশুগঞ্জ প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক সাদেকুল ইসলাম সাচ্চু, উপজেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক মো. শাহীন শিকদার, উপজেলা ট্রেড ইউনিয়ন সংঘের সভাপতি বাহারুল ইসলাম মাস্টার, উপজেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক জোসনা চৌধূরী, সদর ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান মো. মোবারক হোসেন, উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতা গিয়াস উদ্দিন বাদল, উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতা মোশারফ মুন্সি, যুবলীগ নেতা ইলিয়াছ, উপজেলা কমিউনিস্ট পার্টি নেতা শফিকুর রহমান ও ছাত্রলীগ নেতা তানভির হাসান প্রমুখ।

মানববন্ধনে বক্তারা ৩০ নভেম্বরের মধ্যে আশুগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পূর্ণাঙ্গ স্বাস্থ্য সেবা চালুর দাবি জানান। অন্যথায় হাসপাতালের মূল ফটকে তালা ঝুলিয়ে দেওয়াসহ আশুগঞ্জে সর্বাত্মক হরতালসহ বিভিন্ন আন্দোলনের কর্মসূচি দেওয়ার হুমকি দেন।

উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. সারোয়ার মাহবুব জানান, নবনির্মিত স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ভবনে বহির্বিভাগ চালু করা হয়েছে। আন্তঃবিভাগের জন্য ১৯টি বেড ও কিছু আসবাবপত্র সরবরাহ দেওয়া হয়েছে। এখনো এই হাসপাতালটি ৫০ শয্যার অনুমোদন পায়নি। বর্তমানে ৩১ শয্যার বিপরীতে ৫১টি পদ সৃষ্টি হয়েছে। এর মধ্যে ডাক্তার, নার্সসহ ২০ জন জনবল দেওয়া হয়েছে। প্রয়োজনীয় জনবল, আসবাবপত্র ও চিকিত্সা সরঞ্জাম সরবরাহ দিয়ে দ্রুত পূর্ণাঙ্গ স্বাস্থ্য সেবা চালু করার ব্যাপারে লিখিতভাবে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে অবহিত করা হয়েছে।

ইত্তেফাক/নূহু

এই পাতার আরো খবর -
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
২১ নভেম্বর, ২০১৭ ইং
ফজর৪:৫৮
যোহর১১:৪৫
আসর৩:৩৬
মাগরিব৫:১৫
এশা৬:৩১
সূর্যোদয় - ৬:১৭সূর্যাস্ত - ০৫:১০