সারাদেশ | The Daily Ittefaq

সুজানগরে ২০ হাজার মণ শুঁটকি উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা

সুজানগরে ২০ হাজার মণ শুঁটকি উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা
সুজানগরে ২০ হাজার মণ  শুঁটকি উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা
 
পাবনার সুজানগরে শুঁটকি মাছ উৎপাদনের ধুম পড়েছে। অল্প খরছে লাভ বেশি হওয়ায় প্রকৃত মৎস্যজীবীদের পাশাপাশি সাধারণ মানুষও শুঁটকি মাছ উৎপাদনে ঝুঁকেছেন। 
 
উপজেলা মৎস্য অফিস সূত্রে জানা যায়, এ বছর উপজেলার শতাধিক শুঁটকি চাতালে প্রায় ২০ হাজার মণ শুঁটকি মাছ উৎপাদন করা হবে বলে লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। ইতিমধ্যে উপজেলার মৎস্যজীবী এবং শুঁটকি ব্যবসায়ীরা তাদের বাড়ির পাশে কেউ বা আবার বিলের পাড়ে বড় বড় বাঁশের চাতাল তৈরি করে শুঁটকি মাছ উৎপাদন শুরু করেছেন। উপজেলার ঐতিহ্যবাহী গাজনার বিলসহ আশপাশের ৪/৫টি বিল থেকে পুঁটি, টেংরা, বান, শোল, টাকি, এবং চাঁদা মাছসহ বিভিন্ন প্রজাতির দেশি মাছ কিনে ওই সকল চাতালে শুকানো হচ্ছে। 
 
উপজেলার মসজিদপাড়া গ্রামের মৎস্যজীবী ও শুঁটকি ব্যবসায়ী মিল্টন বিশ্বাস বলেন,‘আমরা কোন প্রকার রাসায়নিক দ্রব্যাদি ছাড়া স্বাস্থ্যকর উপায়ে শুঁটকি মাছ উৎপাদন করি। সে কারণে দেশ এবং দেশের বাইরে সুজানগরের শুঁটকি মাছের ব্যাপক চাহিদা রয়েছে। তবে দেশের অন্যান্য স্থানের চেয়ে সৈয়দপুরের শুঁটকির আড়তে সুজানগরের শুঁটকি মাছের চাহিদা অত্যন্ত বেশি। সেকারণে প্রত্যেক বছর প্রায় ১৫ হাজার মণ শুঁটকি মাছ সৈয়দপুরের শুঁটকির আড়তে বিক্রি করা হয়। ইতিমধ্যে প্রায় ২ হাজার মণ শুঁটকি মাছ ওই আড়তে বিক্রি করা হয়েছে। 
 
এ ব্যাপারে উপজেলা মৎস্য অফিসার আতিয়ার রহমান বলেন, ‘সুজানগরে শুঁটকি মাছ উদপাদন দেখে আমি অত্যন্ত খুশি। ভবিষ্যতে উপজেলার শুঁটকি উৎপাদনকারী মৎস্যজীবী ও ব্যবসায়ীরা যাতে সরকারি সহায়তা পান সে ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করা হবে।
 
ইত্তেফাক/ইউবি
এই পাতার আরো খবর -
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
১৪ নভেম্বর, ২০১৭ ইং
ফজর৫:১১
যোহর১১:৫৩
আসর৩:৩৮
মাগরিব৫:১৭
এশা৬:৩৪
সূর্যোদয় - ৬:৩২সূর্যাস্ত - ০৫:১২