সারাদেশ | The Daily Ittefaq

জবাবদিহি ব্যবস্থা চালু রাখতে সময়মত নির্বাচন অপরিহার্য: আনোয়ার হোসেন মঞ্জু

জবাবদিহি ব্যবস্থা চালু রাখতে সময়মত নির্বাচন অপরিহার্য: আনোয়ার হোসেন মঞ্জু
জবাবদিহি ব্যবস্থা চালু রাখতে সময়মত নির্বাচন অপরিহার্য: আনোয়ার হোসেন মঞ্জু

জাতীয় পার্টি-জেপি’র চেয়ারম্যান ও পানি সম্পদ মন্ত্রী অনোয়ার হোসেন মঞ্জু বলেছেন, জাতীয় সংসদের নির্বাচন আসন্ন হওয়ায় দেশে জবাবদিহিতা ও নেতাদের কাছে পাওয়ার অবস্থা সৃষ্টি হয়েছে। নির্বাচন না হলে বা ভোট দেওয়ার সুযোগ না থাকলে জনগণ তাদের অধিকারের কথা প্রকাশ করতে পারে না। তাই দেশে সময়মতো নির্বাচন হওয়া অপরিহার্য। গতকাল শনিবার বিকালে পিরোজপুর জেলার কাউখালী উপজেলার প্রত্যন্ত গ্রাম মধ্য শিয়ালকাঠি পঞ্চায়েত বাড়িতে এক উঠান বৈঠকে মন্ত্রী আরো বলেন, নির্বাচন যাতে না হয় তারও নানা অপপ্রয়াস রয়েছে। তারপরও নির্বাচন আসলে কাছে পাওয়া যায় বলে মানুষ নেতাদেরকে তাদের দাবি-দাওয়া, অভাব-অভিযোগের কথা সামনাসামনি তুলে ধরতে সুযোগ পায়। এই সময় মানুষ তাদের অধিকার আদায়ের জন্য ঐক্যবদ্ধ হয়ে সমস্যা সমাধানের সুযোগের সদ্ব্যবহার করে নিতে পারে। যদিও তৃণমূলের সমস্যা মেটানোর জন্য স্থানীয় পর্যায়ে উপজেলা ও ইউনিয়ন পর্যায়ে চেয়ারম্যান, মেম্বার রয়েছেন। কিন্তু আমাদের দেশে উন্নয়ন বরাদ্দ স্থানীয় পর্যায়ে সীমিত বলে কেন্দ্রের প্রতি মানুষের মুখাপেক্ষিতা বেশি। তারপরও স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের গুরুত্ব অনেক বেশি।

মন্ত্রী বলেন, গ্রাম পর্যায়ে অনেক উন্নয়ন বরাদ্দ আসে, রাস্তাঘাট, স্কুল-মাদ্রাসাসহ নানা খাতে বরাদ্দ অনেক। যেহেতু জনগণ  অধিকার সচেতন নয়। তাই এসব উন্নয়ন বরাদ্দ সঠিকভাবে বাস্তবায়ন হয় না। মানুষকে অধিকার সচেতন হয়ে বাস্তবায়নাধীন প্রকল্পমূলক সঠিকমান নিশ্চিত করতে ঐক্যবদ্ধ থাকতে হবে। বড় বড় রাস্তাঘাট নির্মাণ অনেকাংশে দক্ষিণাঞ্চলে সম্পন্ন হয়েছে। এখন প্রয়োজন গ্রাম অঞ্চলে রাস্তাঘাট, বিদ্যুত্, খাল খনন, পুকুর খনন ইত্যাদি সম্পন্ন করা। এ অঞ্চলে প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ তহবিলে এসব অবকাঠামো উন্নয়ন দ্রুত সম্পন্ন করার কাজ চলছে। যদিও প্রয়োজনের শেষ নেই প্রয়োজন মেটাতে আল্লাহর কাছে আমাদের দাবি করতে হবে যাতে তা পূরণ হয়।

আনোয়ার হোসেন মঞ্জু বলেন, প্রকল্পের কাজ যথা সময় শেষ না হওয়ায় অনেক সময় নতুন বরাদ্দ পাওয়া যায় না। কাজের জন্য ঝগড়া-ঝাটি, হানাহানি বাদ না দিলে সেখানে সরকার কাজ করতে চায় না। তাই আমি ৩২ বছর ধরে বলে এসেছি সংঘবদ্ধভাবে সবাইকে কাজ করতে হবে। আমি যখন এই এলাকায় প্রথম আসি তখন মানুষ বিদ্যুত্ নিতে চাইত না। এখন ঘরে-ঘরে সবাই বিদ্যুত্ চায়। দেশে কাজ করতে হলে শক্ত হতে হয়। শক্তিশালী হলে সফলতা পাওয়া যায়। উন্নয়নের জন্য সকলের সমর্থন প্রয়োজন। স্বাধীনতার আগে দেশে নেতিবাচক ধারার আন্দোলন রাজনীতি ছিল, এখন সময় হচ্ছে কাজের রাজনীতির।

উঠান বৈঠকে জাতীয় পার্টি-জেপি’র চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন মঞ্জু গ্রামের সাধারণ মানুষের কাছ থেকে সরাসরি তাদের সমস্যার কথা শুনেন। স্থানীয় বিশিষ্ট ব্যক্তি হাবিবুর রহমান তহশীলদারের সভাপতিত্বে এখানে বক্তব্য রাখেন মুফতি রিয়াজ উদ্দিন, মাদ্রাসার অধ্যক্ষ আব্দুর রহীম, আব্দুর রহমান, হারুণ সিকদার, মোশাররফ হোসেন, গিয়াস উদ্দিন, মো. সেলিম বিশ্বাস, মাফুজা বেগম, রাহেলা বেগম, নাসির উদ্দিন হাওলাদার, মো. মহসীন তালুকদার, আতিকুর রহমান, মনির হোসেন, জয়নুল আবেদীন, কলেজ ছাত্রী হোসনেয়ারা খানম, স্কুল ছাত্রী ঋতু আক্তার, শিশু মোহনা তালুকদার প্রমুখ। তৃণমূলের বক্তারা উঠান বৈঠকে মন্ত্রীর কাছে গ্রামীণ যোগাযোগ ব্যবস্থা, শিক্ষা, কম্পিউটার শিক্ষা ইত্যাদি নিয়ে তাদের সমস্যার কথা তুলে ধরেন।

এর আগে পানি সম্পদ মন্ত্রী আনোয়ার হোসেন মঞ্জু কাউখালী উপজেলা পরিষদে সামাজিক বন বিভাগ কর্তৃক কাউখালী উপজেলা সামাজিক বনায়নে উপকার ভোগীদের মাঝে অর্থের চেক বিতরণ করেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন বাগেরহাট সামাজিক বন বিভাগের বিভাগীয় বন কর্মকর্তা মো. সাইদুল ইসলাম, কাউখালীর ইউএনও ইশরাত জাহান প্রমুখ।

শিয়ালকাঠিতে জাতীয় পার্টি-জেপি’র চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন মঞ্জু সংগঠনের ইউনিয়ন কার্যালয় উদ্বোধন করেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন সংগঠনের কেন্দ্রীয় যুগ্ম মহাসচিব ও ভান্ডারিয়া উপজেলা চেয়ারম্যান আতিকুল ইসলাম তালুকদার উজ্জল, কেন্দ্রীয় নেতা ইউসুফ আলী আকন, প্রচার সম্পাদক হুমায়ুন কবির তালুকদার, যুব বিষয়ক সম্পাদক ও কেন্দ্রীয় যুব সংহতির সাধারণ সম্পাদক নজরুল ইসলাম, উপজেলা জেপি’র সভাপতি মাহবুবুর রহমান খান, সাধারণ সম্পাদক শাহ আলম নসু, ইউনিয়ন সভাপতি হেমায়েত উদ্দিন তালুকদার, সাধারণ সম্পাদক শাহজাহান মোল্লাসহ জেপি’র নেতা-কর্মীরা।

সাবেক মন্ত্রী এম. মতিউর রহমানের জানাজায় অংশগ্রহণ

সদ্য প্রয়াত সাবেক যোগাযোগ মন্ত্রী ও সচিব এম. মতিউর রহমানের জানাজায় গতকাল শনিবার বিকালে পানিসম্পদ মন্ত্রী আনোয়ার হোসেন মঞ্জু শরিক হন। কাউখালী সরকারি কে জি ইউ মাধ্যমিক বিদ্যালয় ময়দানে এ জানাজার আগে পানিসম্পদ মন্ত্রী ছাড়াও বক্তব্য রাখেন মরহুমের দুই ছেলে মাহমুদুর রহমান হাসান ও ডাঃ মাসুদ আহমেদ, আওয়ামী লীগ নেতা ইসাহাক আলী খান পান্না। জানাজায় শত শত শোকার্ত মানুষের সঙ্গে অংশ নেন কাউখালী উপজেলা চেয়ারম্যান এস এম আহসান কবির, ভাইস চেয়ারম্যান কামরুজ্জামান মিঠু, উপজেলা বিএনপি’র সাধারণ সম্পাদক এইচ এম দ্বীন মোহাম্মদ, ইউপি চেয়ারম্যান আমিনুর রশীদ মিল্টন, বরিশাল জেলা জাতীয় পার্টির আহ্বায়ক অধ্যাপক মহসিনুল ইসলাম হাবুল, বরিশাল চেম্বার অব কমার্সের পরিচালক রিয়াজুল কবির প্রমুখ। জানাজা পরিচালনা করেন আলহাজ্ব মৌলভী মোফাক্কর আলী (দরবেশ হুজুর)। বাদ আছর মরহুম মতিউর রহমানকে তাঁর বাড়িতে আরেক বার জানাজার পর পারিবারিক গোরস্থানে দাফন করা হয়।

দুঃস্থ কল্যাণ সংস্থার শীতবস্ত্র বিতরণ

পানিসম্পদ মন্ত্রী আনোয়ার হোসেন মঞ্জুর উপস্থিতিতে গতকাল শনিবার দুস্থ কল্যাণ সংস্থার উদ্যোগে কাউখালী উপজেলা সদর, চিড়াপাড়া ইউনিয়ন ও শিয়ালকাঠি ইউনিয়নের  সুবিধাবঞ্চিত অসচ্ছল পরিবারের মধ্যে শীতবস্ত্র বিতরণ করা হয়। বিকালে কাউখালী উপজেলা পরিষদ প্রাঙ্গণে এলাকার শীতার্তদের মাঝে কম্বল বিতরণ করেন উপজেলা জেপি’র সভাপতি মো. মাহবুবুর রহমান খান, সাধারণ সম্পাদক শাহ আলম নসু, উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ফাতেমা ইয়াসমিন পপি, জেলা পরিষদ সদস্য শাহাজাদী রেবেকা সুলতানা চৈতী, ইউপি চেয়ারম্যান আবু সাঈদ মিয়া মনু, যুব সংহতির নেতা জাকির হোসেন নসু, মনজুরুল মাহফুজ পায়েল প্রমুখ। এরপর চিড়াপাড়া ইউনিয়ন পরিষদ কমপ্লেক্স প্রাঙ্গণে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করেন ইউপি চেয়ারম্যান মাহমুদ খান খোকন, ইউনিয়ন জেপি’র সভাপতি অধ্যাপক হারুন অর রশীদ, জেপি নেতা বজলুর রহমান খান নান্নু প্রমুখ। সন্ধ্যায় শিয়ালকাঠি ইউনিয়নে কম্বল বিতরণ করেন ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান দেলোয়ার হোসেন সিকদারসহ ইউপি সদস্যবৃন্দ। এ ত্রাণ বিতরণ কাজের সমন্বয় করেন দুস্থ কল্যাণ সংস্থার উপদেষ্টা এম এ রব্বানী ফিরোজ ও প্রশাসনিক কর্মকর্তা কাজী আতাহার হোসেন।

ভাণ্ডারিয়া থেকে ফজলুর রহমান জানান, জাতীয় পার্টি-জেপি’র চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন মঞ্জু সরকারের মন্ত্রীসভায় পানি সম্পদ মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব পাওয়ায় গতকাল শনিবার সকালে ভাণ্ডারিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতা-কর্মীরা তাঁকে অভিনন্দন জানান। মন্ত্রীর বাসভবনে সংগঠনের জেলা কমিটির উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য খান মো. এনায়েত করিমের নেতৃত্বে এসময় আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ, কৃষক লীগ, শ্রমিক লীগ ও সমবায় লীগের পক্ষ থেকে মন্ত্রীকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানানো হয়। উপস্থিত ছিলেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি আব্দুর রশীদ মৃধা, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শহীদ জামান হাওলাদার, আওয়ামী লীগ নেতা আতাউর রহমান মঞ্জু হাওলাদার, যুবলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক ছগীর হোসেন পোদ্দার ও লিটন পেশকার, যুবলীগ নেতা হুমায়ুন কবির দুলাল, বাদশা মিয়া, পৌর যুবলীগের আহ্বায়ক ওয়ালিদ খান, যুগ্ম আহ্বায়ক জসীম খান ও শহীদ খান প্রমুখ। এ সময় পানি সম্পদ মন্ত্রী আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতা-কর্মীদের উদ্দেশে শুভেচ্ছা বক্তব্য দেন। এরপর আনোয়ার হোসেন মঞ্জু ভাণ্ডারিয়ার খান বাড়িতে সদ্য প্রয়াত জেলা জেপি’র নেতা লতিফুর রহমান খান শানুর কবর জিয়ারত করেন।

ইত্তেফাক/নূহু

এই পাতার আরো খবর -
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
১৯ জানুয়ারী, ২০১৮ ইং
ফজর৫:২৩
যোহর১২:১০
আসর৪:০০
মাগরিব৫:৩৯
এশা৬:৫৫
সূর্যোদয় - ৬:৪২সূর্যাস্ত - ০৫:৩৪