সারাদেশ | The Daily Ittefaq

বেনাপোল ট্রাজেডির চতুর্থ বছর বৃহস্পতিবার

বেনাপোল ট্রাজেডির চতুর্থ বছর বৃহস্পতিবার
কাজী শাহ্জাহান সবুজ, বেনাপোল (যশোর) সংবাদদাতা১৪ ফেব্রুয়ারী, ২০১৮ ইং ১৭:২৪ মিঃ
বেনাপোল ট্রাজেডির চতুর্থ বছর বৃহস্পতিবার
১৫ ফেব্রুয়ারি বেনাপোল ট্রাজেডির চতুর্থ বছর। এই দিনে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত হয় বেনাপোল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৯ শিক্ষার্থী। 
 
২০১৪ সালের ১৫ ফেব্রুয়ারি মুজিব নগরে বার্ষিক বনভোজন শেষে চৌগাছা হয়ে বেনাপোল ফেরার পথে ঝাউতলা কাঁদবিলা পুকুর পাড়ে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত হয় এসব শিশু শিক্ষার্থী। নিহতদের স্মরণে পৌরসভার পক্ষ থেকে নানা কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়েছে। 
 
নিহত চতুর্থ শ্রেণির শিক্ষার্থী সাব্বির হোসেনের মা সবেদা বেগম আজো পাগল প্রায়। হারিয়ে ফেলেছে বাকশক্তি। ছেলের বই খাতা, ব্যাগ, জামা কাপড় আজো গুছিয়ে রেখেছে ছেলে ফিরে আসবে বলে। 
 
শিক্ষার্থী আঁখির বাবা নেই, মা আছে কিন্তু অভাবের সংসারে মা ময়না বেগম ঢাকায় গার্মেন্টসে কাজ করছেন। নানী নুরজাহান তাকে মানুষ করছিল। সেও নানীকে আসছি বলে চলে গেল না ফেরার দেশে। আজো বৃদ্ধা নানী পথ চেয়ে বসে আছে তার নাতনি এই বুঝি বাড়ি এলো। 
 
নিহত শিশু শিক্ষার্থী সুরাইয়া ও জিবাইয়া আপন ২ বোন। তাদেরও বাবা নাই। বৃদ্ধ নানা-নানির কাছে থেকেই লেখাপড়া করতো তারা। দুই নাতিকে হারিয়ে বৃদ্ধ নানা মমরেজ সর্দার এবং নানি নিহারন নেছা আজো কান্না করেন।
 
বেনাপোল ট্রাজেডি স্মরণে পৌরসভার উদ্যোগে নেয়া হয়েছে  নানা কর্মসূচি। সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে কালো পতাকা উত্তোলনসহ শোক র‌্যালি ও দোয়া অনুষ্ঠান করা হবে। 
 
বেনাপোল পৌরসভার মেয়র আশরাফুল আলম লিটন জানান, সড়ক দুর্ঘটনায় নিহতদের স্মরণে বেনাপোল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে স্মৃতি স্তম্ভ স্থাপন করা হয়েছে। তাদের স্মরণে এ দিনে বেনাপোলে শোক র‌্যালি ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হবে।
 
ইত্তেফাক/ইউবি
এই পাতার আরো খবর -
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
১৮ জুলাই, ২০১৮ ইং
ফজর৩:৫৬
যোহর১২:০৫
আসর৪:৪৪
মাগরিব৬:৫১
এশা৮:১৩
সূর্যোদয় - ৫:২১সূর্যাস্ত - ০৬:৪৬