সারাদেশ | The Daily Ittefaq

বাংলার মানচিত্র আর পৃথিবীর ইতিহাস থেকে শেখ মুজিবের নাম মুছে ফেলার ক্ষমতা কারো নাই: মেয়র লিটন

বাংলার মানচিত্র আর পৃথিবীর ইতিহাস থেকে শেখ মুজিবের নাম মুছে ফেলার ক্ষমতা কারো নাই: মেয়র লিটন
বেনাপোল (যশোর) সংবাদদাতা১৬ আগষ্ট, ২০১৮ ইং ২৩:২৬ মিঃ
বাংলার মানচিত্র আর পৃথিবীর ইতিহাস থেকে শেখ মুজিবের নাম মুছে ফেলার ক্ষমতা কারো নাই: মেয়র লিটন

জাতীয় শোক দিবস ও বঙ্গবন্ধুর ৪৩তম শাহাদৎ বার্ষিকী উপলক্ষে শার্শা ইউনিয়ন  আওয়ামী লীগের আয়োজনে বৃহস্পতিবার বিকালে নাভারন বাজারে আলোচনা সভা ও দোয়া অনুষ্ঠান হয়েছে। শার্শা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি আবু হানিফের সভাপতিত্বে এ আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন যশোর জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও বেনাপোল পৌরসভার মেয়র আশরাফুল আলম লিটন। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন যশোর জেলা আওয়ামী লীগের শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক আসিফ উদ দৌলা সরদার অলোক।

এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন শার্শা উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক একেএম ফজলুল হক বকুল, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক   আবুল মালেক, প্রচার সম্পাদক ইলিয়াছ আযম, শ্রম বিষয়ক সম্পাদক শেখ কোরবান আলী, বেনাপোল পৌর আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক আহসান উল্লাহ মাষ্টার, উপজেলা যুবলীগের আহবায়ক সাইদুজ্জামান বিটন, যুগ্ম আহবায়ক সেলিম রেজা বিপুল, জাকির হোসেন সাবেক উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি রুহুল কুদ্দুস, সহ-সভাপতি বৈদ্যনাথ দাস, বেনাপোল পৌর প্যানেল মেয়র সাহাবুদ্দিন মন্টু, পৌর কমিশনার রাশেদ আলী, পৌর যুবলীগের আহবায়ক সুকুমার দেবনাথ, পৌর আওয়ামী লীগের সিনিয়র সদস্য মোজাফফার হোসেন, শার্শা উপজেলা আওয়ামী লীগ সাংস্কৃতিক ফোরামের আহবায়ক এমদাদুল হক বকুল, শার্শা উপজেলা আওয়ামী সাংস্কুতিক ফোরামের নেতা আমিনুর রহমান, শার্শা উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আকুল হোসাইন, লক্ষনপুর ইউনিয়ন চেয়ারম্যান আনোয়ারা খাতুন ও আওয়ামী লীগ নেতা আছাদুজ্জামান, নুরুজ্জামান, আছাদুজ্জামান আশা সহ আওয়ামী যুবলীগ ছাত্রলীগের নেতৃবৃন্দ।

সভায় প্রধান অতিথি মেয়র আশরাফুল আলম লিটন বলেন, ৭৫ এর ১৫ আগস্টের পর অত্যন্ত সুচতুরভাবে জেলা ইউনিয়নের নেতা কর্মীদের হত্যা করা হয়েছে।  পৃথিবীর সব থেকে নিরাপদ জায়গা হচ্ছে জেলখানা, সেই জেলখানায় ষড়যন্ত্রকারীরা এদেশের সূর্যসন্তান জাতীয় ৪ নেতাকে হত্যা করেছিল বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের নাম মুছে ফেলার জন্য। এর চেয়ে খারাপ উদাহরণ পৃথিবীর ইতিহাসে আর থাকতে পারে না। আর তখন সেই হত্যাকারীদের যাতে বিচার না হয় সেজন্য জিয়াউর রহমান আইন করে বিচার বন্ধ করে দিল। এর চেয়ে কলংক আর কি হতে পারে!

তিনি বলেন, বাঙালি জাতির সব থেকে সম্মানজনক মর্যদা সম্পন্ন অধ্যায় হলো জাতির জনক শেখ মুজিব। শেখ মুজিবের বড় শক্তি ছিল সততা ও সাহস। তিনি তার সাহসী বক্তব্য দিয়ে এদেশের সাড়ে সাতকোটি মানুষকে মুক্ত করলেন। যারা শেখ মুজিবের নাম মুছে ফেলতে চেয়েছিল তাদের স্বপ্ন পুরণ হয়নি। বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের একটি কর্মী বেঁচে থাকতে বাংলার মানচিত্র থেকে, পৃথিবীর ইতিহাস থেকে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নাম মুছে ফেলার ক্ষমতা কারো নাই।

তিনি আরো বলেন, আমাদের আর শোক না, আর কান্না না আমাদের শোককে শক্তিতে রুপান্তরিত করে আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নৌকা প্রতীককে বিজয়ী করে শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করে গড়ে তুলতে হবে। আমরা এমন একটি শার্শা তৈরি করতে চাই, যে শার্শা হবে শান্তি, স্বস্তি আর উন্নয়নের।

ইত্তেফাক/নূহু

এই পাতার আরো খবর -
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং
ফজর৪:৩১
যোহর১১:৫২
আসর৪:১৫
মাগরিব৫:৫৯
এশা৭:১২
সূর্যোদয় - ৫:৪৬সূর্যাস্ত - ০৫:৫৪