সারাদেশ | The Daily Ittefaq

ভারত থেকে নেমে আসা পানিতে গর্জে উঠেছে তিস্তা

ভারত থেকে নেমে আসা পানিতে গর্জে উঠেছে তিস্তা
রংপুর অফিস১০ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং ২১:৫০ মিঃ
ভারত থেকে নেমে আসা পানিতে গর্জে উঠেছে তিস্তা
ভারত থেকে নেমে আসা পাানি গজলডোবায় বাঁধ দিয়ে তিস্তা নদীতে ছাড়ার কারণে আবার      গর্জে উঠেছে তিস্তা নদী। উত্তরে  ভারী বর্ষণ ও উজানের ঢলে তিস্তা নদীর পানি বিপদসীমা অতিক্রম করেছে। আজ সোমবার সন্ধ্যা সাড়ে ছয়টায় তিস্তার প্রবাহ বিপদসীমা ৫২ দশমিক ৬০ মিটার অতিক্রম করে ৫ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হওয়ায় তিস্তা ব্যারেজের ৪৪টি জলকপাট খুলে রাখা হয়েছে।
 
দিনের শেষ পরিমাপে সন্ধ্যা ৬টায় পানি উন্নয়ন বোর্ড তিস্তার পানি বিপদসীমার ৫ সেন্টিমিটার নিচ দিয়ে প্রবাহিত হবার খবর জানালেও সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় তা বিপদসীমা অতিক্রম করে ৫ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হতে থাকে বলে এলাকাবাসী ও নির্ভরযোগ্য সুত্র জানায়।
 
এদিকে তিস্তা নদীতে পানি বৃদ্ধির কারণে নীলফামারীর ডিমলা ও জলঢাকা উপজেলা ও লালমনিরহাট জেলার চরবেষ্টিত বিভিন্ন গ্রামে নদীর পানি প্রবেশ করতে শুরু করেছে বলে এলাকাবাসী জানিয়েছেন।
 
তিস্তা অববাহিকার জনপ্রতিনিধিরা জানান, তিস্তা নদীতে পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় তিস্তানদী ঘেরা টেপাখাড়িবাড়ি, খালিশা চাপানী, ঝুনাগাছ চাপানী, খগাখড়িবাড়ি, পূর্ব ছাতনাই, নাউতারা, জলঢাকা উপজেলার ডাউয়াবাড়ি, গোলমুন্ডা, শৌলমারীসহ আশপাশের কয়েকটি ইউনিয়নের বসবাসরত পরিবারগুলো আতঙ্কিত হয়ে পড়েছে। এবার তারা বড়ধরনের বন্যার কবলে পড়তে পারে।
 
এদিকে দীর্ঘদিন পর ঝুম বৃষ্টি হয়েছে সোমবার ভোর হতে। ডালিয়া পানি উন্নয়ন বোর্ডের বন্যা পুর্বাভাস ও সর্তকীকরণ কেন্দ্র সূত্রমতে এলাকার বৃষ্টি ও উজানের বৃষ্টি এবং পাহাড়ি ঢলে হু-হু করে তিস্তা নদীর পানি বৃদ্ধি পেতে শুরু করেছে। দেশের সর্ববৃহৎ সেচ প্রকল্প নীলফামারীর ডালিয়াস্থ তিস্তা ব্যারেজ পয়েন্টে সোমবার ৬টা হতে সকাল ৯টা পর্যন্ত তিন ঘন্টায় বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয় ৭০ মিলিমিটার। এর পরের বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হবে মঙ্গলবার সকাল ৯টায়।
 
 
একই সূত্রমতে সোমবার সকাল ৬টায় ডালিয়া পয়েন্টে তিস্তার পানি প্রবাহিত ছিল ৫১ দশমিক ৯৫ মিটার। ৬ ঘন্টার ব্যবধানে এই পয়েন্টে দুপুর ১২টায় পানি বৃদ্ধি পায় ২০ সেন্টিমিটার। এই লেবের তিন ঘন্টা পর বেলা ৩টায় আরো ১০ সেন্টিমিটার পানি বৃষ্টি পেয়ে দাঁড়ায় ৫২ দশমিক ২৫ মিটার। দিনের সর্বশেষ পরিমাপে এর আরো তিন ঘন্টা পর সন্ধ্যা ৬টায় পানি বৃদ্ধি পেয়ে দাঁড়ায় ৫২ দশমিক ৫৫ মিটার।
 
ডালিয়া পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী রফিকুল আলম চৌধুরী জানান, ভারী বৃষ্টিপাত ও উজানের ঢলে তিস্তা নদীর পানি বৃদ্ধি পেয়েছে। আমরা সতর্ক রয়েছি। দেশের সর্ববৃহৎ তিস্তা ব্যারাজের ৪৪টি জলকপাট খুলে রাখা হয়েছে। পানি বৃদ্ধির কারণে আজ রাত ৯টায় আরেকবার পরিমাপ করা হবে।
 
ইত্তেফাক/নূহু
এই পাতার আরো খবর -
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
২৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং
ফজর৪:৩৪
যোহর১১:৫১
আসর৪:১১
মাগরিব৫:৫৪
এশা৭:০৭
সূর্যোদয় - ৫:৪৮সূর্যাস্ত - ০৫:৪৯