বিশ্বকাপ ফুটবল | The Daily Ittefaq

সেমিফাইনালে ভীত নয় বেলজিয়াম

সেমিফাইনালে ভীত নয় বেলজিয়াম
স্পোর্টস ডেস্ক১০ জুলাই, ২০১৮ ইং ০৪:১২ মিঃ
সেমিফাইনালে ভীত নয় বেলজিয়াম
দীর্ঘ ৩২ বছর পর আজ রাতে বিশ্বকাপের প্রথম সেমিফাইনালে ফ্রান্সের বিপক্ষে মাঠে নামবে বেলজিয়াম। কোয়ার্টার ফাইনালে ব্রাজিলকে হারিয়ে সেমিতে পা রাখা বেলজিয়ামের ভয়ের কিছু নেই বলে মনে করেন দলটির মিডফিল্ডার নাসের শ্যাডলি।
 
দ্বিতীয় পর্বে জাপানের বিপক্ষে ২-০ গোলে পিছিয়ে পড়েও জেন ভর্টঙ্গেন, মারওয়ান ফেলাইনি এবং নাসের শ্যাডলির গোলে ৩-২ ব্যবধানের জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে বেলজিয়াম। কিন্তু পরের ম্যাচেই পাঁচবারের চ্যাম্পিয়ন ব্রাজিলের বিপক্ষে ২-১ গোলের জয় পায় শিরোপা প্রত্যাশী বেলজিয়াম। ওয়েস্ট ব্রম মিডফিল্ডার মনে করেন এ জয়টিই তার দলের আত্মবিশ্বাস বাড়িয়ে দিয়েছে।
 
এক সংবাদ সম্মেলনে শ্যাডলি বলেন, ‘যদি আপনি ব্রাজিলকে হারাতে পারেন তবে আর কাউকে ভয় পাবার মতো কিছু নেই। শ্যাডলির দেয়া এই সংবাদ সম্মেলনের উক্তি পরে বেলজিয়াম দলের অফিসিয়াল টুইটার অ্যাকাউন্ট থেকে পোস্ট করা হয়।
 
তিনি বলেন, ‘আমরা সবাইকেই পর্যাপ্ত সম্মান করি কিন্তু আমরা যদি ভয় নিয়ে খেলি তবে আমরা ফ্রান্সকে হারাতে পারবো না। আমাদের জন্য এবং আমাদের আত্মবিশ্বাসের জন্য ব্রাজিলকে হারাতে পারাটা বিরাট এক পদক্ষেপ ছিল। আমরা সবাইকে দেখিয়ে দিয়েছি যে আমরা করতে পারি। বেলজিয়াম একটি ছোট দেশ, আমাদের জনসংখ্যা মাত্র ১ কোটি ১০ লাখ। আমাদের সামর্থ্য এবং আমাদের ঐক্য নিয়ে আমরা গর্ববোধ করছি।’
 
ব্রাজিলকে হারিয়ে বেলজিয়ামের সোনালী প্রজন্ম শুধু সেমিফাইনালই নিশ্চিত করেনি, সমতা এনেছে  বিশ্বকাপে দেশটির সেরা সাফল্যেও। ১৯৮৬ বিশ্বকাপে খেলা সেমিফাইনালই ছিলো বিশ্বকাপে বেলজিয়ামের সেরা সাফল্য। তবে সেমিতে খেলতে পেরেই তৃপ্তির ঢেঁকুর তুলছে না রেড ডেভিলরা।
 
দলটির ডিফেন্ডার থমাস ভারমালেন জানান যে সেমিফাইনালেই থামতে চায় না তার দল। বার্সেলোনা সেন্টারব্যাক বলেন, ‘সেমিফাইনাল থেকে আরো সামনে যাওয়াই আমাদের লক্ষ্য। বিশ্বকাপের মত আসরে এভাবে খেলে এতদূর আসতে পারায় আমরা গর্ববোধ করছি। সেমিফাইনালে পৌঁছতে পারা নিঃসন্দেহে এক বড় অর্জন কিন্তু আমরা আরো দূরে যেতে চাই এবং আমরা হাল ছাড়ব না।’
 
ভার্মালেন জানান, ফ্রান্সকে হারিয়ে ফাইনালে খেলা এবং টুর্নামেন্ট জেতার ব্যাপারে আত্মবিশ্বাসী তার দল। তিনি বলেন, ‘আমাদের বিশ্বাস করতে হবে যে আমাদের ফাইনাল খেলার সুযোগ রয়েছে এবং টুর্নামেন্টটি জেতারও সুযোগ রয়েছে।’
 
নিজেদের দলের মত ফ্রান্স দলও বেশ তারকাখচিত। এতসব তারকার ভীড়েও বার্সেলোনা ডিফেন্ডার হুমকি হিসেবে দেখছেন পিএসজি তারকা কিলিয়ান এমবাপেকেই। তিনি বলেন, ‘এই মুহূর্তে সবাই এমবাপের কথাই বলছে। সে দারুণ এক টুর্নামেন্ট কাটাচ্ছে। তার যে দক্ষতা আছে তাতে সে সেকেন্ডের ভগ্নাংশেই খেলার মোড় ঘুরিয়ে দিতে পারে।’
 
কিন্তু দল হিসেবে ফ্রান্সকেও যথেষ্ট সমীহের চোখে দেখছেন ভারমালেন। তিনি বলেন, ‘তাদের অনেক দক্ষতা আছে। তাকে (এমবাপে) যদি বদলও করা হয় তাহলেও, আপনার কাছে মাঠে নামানোর মত ডেম্বেলে আছে। আমি তাকে খুব ভালোভাবে চিনি এবং সে প্রতিপক্ষের জন্য ক্ষতি বয়ে আনতে পারে।’
 
তিনি আরো বলেন, ‘অলিভার জিরুদের দক্ষতার জায়গাটা ভিন্ন এবং সে ডি বক্সে খুব ত্রাস ছড়াতে পারে। মিডফিল্ডে থাকা এনগোলো কান্তেও খুবই গুরুত্বপূর্ণ। তবে এই মুহূর্তে আমি মনে করি এমবাপেই সবচেয়ে শক্তিশালী। খেলার মোড় ঘুরিয়ে দেয়ার মত একজন খেলোয়াড় খুঁজে বের করা খুব কঠিন, তবে এমবাপেকে খুঁজে পেতে তেমন বেগ পেতে হয় না।’
 
ইত্তেফাক/কেআই  
এই পাতার আরো খবর -
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
২৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং
ফজর৪:৩৪
যোহর১১:৫১
আসর৪:১১
মাগরিব৫:৫৪
এশা৭:০৭
সূর্যোদয় - ৫:৪৮সূর্যাস্ত - ০৫:৪৯