বুলগেরিয়ায় তৃতীয় এশিয়ান ফেস্টিভালে বাংলাদেশের অংশগ্রহণ

প্রকাশ : ২৩ জুন ২০১৯, ১৮:৫০ | অনলাইন সংস্করণ

  অনলাইন ডেস্ক

ছবি: সংগৃহীত

আঙ্কারস্থ বাংলাদেশ দূতাবাস বুলগেরিয়ার রাজধানী সোফিয়ায় আয়োজিত তৃতীয় এশিয়ান ফেস্টিভালে অংশগ্রহণ করে। গত ১৪-১৫ জুন বুলগেরিয়ার পররাষ্ট্র ও পর্যটন মন্ত্রণালয়, জাতীয় সংস্কৃতি ইন্সটিটিউট, সোফিয়া পৌরসভা এবং সোফিয়াস্থ এশিয়ান দূতাবাস ও মিশনসমূহের যৌথ উদ্যোগে আয়োজিত উৎসবে বাংলাদেশসহ ১৫টি কূটনৈতিক মিশন অংশগ্রহণ করে। ‘ইস্ট অব ম্যাজিক’ শীর্ষক উৎসবের মূল প্রতিপাদ্য ছিল এশিয়ান শিল্প-সাংস্কৃতিকে বুলগেরিয়ার জনগণের মাঝে তুলে ধরা।

বুলগেরিয়ার ভাইস প্রেসিডেন্ট ইলিআনা ইয়তোবা দু’দিনব্যাপী উৎসবের উদ্বোধন করেন। রাষ্ট্রদূত এম. আল্লামা সিদ্দীকী উক্ত অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন। উৎসবে বাংলাদেশ প্যাভিলিয়ন পরিচালনা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণের ক্ষেত্রে বুলগেরিয়াস্থ বাংলাদেশ কমিউনিটি সার্বিক সহযোগিতা প্রদান করেন।

আরও পড়ুন: অমিতাভ-ইমরানের রসায়নে জমাট বাঁধছে নতুন রহস্য!

বাংলাদেশ প্যাভিলিয়নে প্রাকৃতিক সৌন্দর্য, অর্থনৈতিক অগ্রসর এবং ভবিষ্যৎ সম্ভাবনা বিষয়ে প্রামাণ্যচিত্র প্রদর্শন করা হয়। বর্তমান সরকারের উন্নয়ন কার্যক্রম,  ইতিহাস ও ঐতিহ্য বিষয়ক বিভিন্ন সরকারি প্রকাশনা, পোস্টার, বিবিধ স্যুভিনির  ইত্যাদিসহ বাংলাদেশি খাবার পরিবেশন ও বিক্রি করা হয়। যা দর্শনার্থীদের মধ্যে বিশেষ উদ্দীপনা ও আগ্রহ তৈরি করে। উৎসবে বাংলাদেশের সাংস্কৃতিক দল মনোঙ্গ সংগীত ও নৃত্য পরিবেশনা করে।

উৎসবে অংশগ্রহণের পাশাপাশি গত ১৫ জুন ২০১৯ সোফিয়ায় অবস্থিত বুলগেরিয়া চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রিতে ‘বাণিজ্য ও বিনিয়োগ সম্পর্ক এবং ভবিষ্যৎ সম্ভাবনা’ শীর্ষক একটি সেমিনারও আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানে বুলগেরিয়ার বিশিষ্ট ব্যবসায়ী প্রতিনিধিবৃন্দ, উদ্যোক্তা ও সাংবাদিকবৃন্দ অংশগ্রহণ করেন।

অনুষ্ঠানে রাষ্ট্রদূত এম. আল্লামা সিদ্দীকী তার বক্তব্যে বাংলাদেশের ইতিহাস-ঐতিহ্য, কৌশলগত ভৌগলিক গুরুত্ব, সাম্প্রতিক সময়ের আর্থ-সামাজিক অর্জন এবং আন্তর্জাতিক পরিমণ্ডলে বাংলাদেশের স্বীকৃতি সম্পর্কেও আলোচনা করেন।

সোফিয়া অবস্থানকালে রাষ্ট্রদূত পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সংশ্লিষ্ট ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সাথেও বিবিধ দ্বিপাক্ষিক বিষয়েও মতবিনিময় করেন। বৈঠককালে দূতাবাসের মিনিস্টার মো. রইস হাসান সরোয়ার ও দূতালয় প্রধান সবুজ আহমেদ উপস্থিত ছিলেন।

ইত্তেফাক/বিএএফ