ঢাকা শনিবার, ২০ জুলাই ২০১৯, ৫ শ্রাবণ ১৪২৬
৩১ °সে


বাংলাদেশ-গ্রিসের চিত্রশিল্পীদের নিয়ে এথেন্সে ‘রঙতুলির আঁচড়ে’ শীর্ষক চিত্রপ্রদর্শনী

বাংলাদেশ-গ্রিসের চিত্রশিল্পীদের নিয়ে এথেন্সে ‘রঙতুলির আঁচড়ে’ শীর্ষক চিত্রপ্রদর্শনী
ছবি: সংগৃহীত

গ্রিসের রাজধানী এথেন্সে বাংলাদেশ ও গ্রিসের চিত্রশিল্পীদের অংশগ্রহণে অনুষ্ঠিত হয়েছে ‘রঙ তুলির আঁচড়ে’ শীর্ষক এক চিত্র প্রদর্শনী। এথেন্সেস্থ বাংলাদেশ দূতাবাসের উদ্যোগে এই প্রদর্শনীর আয়োজন করা হয়। প্রদর্শনী আয়োজনে সহযোগিতা করেছে এথেন্স সিটি কর্পোরেশন এবং ইলিওপোলি শিল্পী ও সাহিত্যিক গোষ্ঠী। এথেন্সের প্রাণকেন্দ্রে অবস্থিত সেরাফিও আর্ট গ্যালারিতে ২৮ জুন বিকেলে এই প্রদর্শনীর উদ্বোধন করেন গ্রীসে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মো. জসীম উদ্দিন।

বাংলাদেশ এবং গ্রিসের মধ্যে সাংস্কৃতিক যোগাযোগ বৃদ্ধি এবং বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ককে সামনে রেখে দূতাবাস আয়োজন করেছে এই চিত্র প্রদর্শনী। প্রদর্শনীতে অংশগ্রহণকারী সাত জন বাংলাদেশি চিত্র শিল্পী হলেন রেজাউন নবী, মুনিরুজ্জামান, শামসুল আলম, ফজলুর রাহমান, মাহফুজুর রহমান, বিশ্বজিৎ গোস্বামী, জহির উদ্দিন এবং অংশগ্রহণকারী সাতজন গ্রীক শিল্পী হলেন ডোরা স্কুটেরি, ভারভারা কিগকা, ফটিনি পাপ্পা, নাদিয়া বারাকু, ননটাস রেন্টজিস, স্টাভরোস জোরজোস এবং স্টিলিয়ানোস মারুলিস।

আরও পড়ুন: ৩০ টাকা চাওয়ায় মাঝ রাস্তায় স্ত্রীকে তিন তালাক

প্রদর্শনী উদ্বোধনকালে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত জসীম উদ্দিন বলেন, চিরায়ত শিল্প সংস্কৃতির ঐতিহ্যবহনকারী দুটি দেশ বাংলাদেশ ও গ্রিস। এই দুই দেশের শিল্পীদের অংশগ্রহণে অনুষ্ঠিত চিত্র প্রদর্শনী একদিকে যেমন দুই দেশের বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্কের স্বীকৃতি অন্যদিকে শিল্প-সংস্কৃতি বিনিময়ের একটি উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত। তিনি শিল্পীদের অভিনন্দন জানিয়ে দুই দেশের সংস্কৃতিকে তুলে ধরতে সম্মিলিতভাবে কাজ করার আহ্বান জানান।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশের উত্তরোত্তর আর্থ-সামাজিক অগ্রগতির কথা উল্লেখ করে রাষ্ট্রদূত আরও বলেন, আন্তর্জাতিক অঙ্গনে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি আজ বিশ্বব্যাপী প্রশংসিত। অন্যান্য ক্ষেত্রের মতো সাংস্কৃতিক ক্ষেত্রেও আমাদের শিল্পীরা সারাবিশ্বে সম্মানের সাথে বাংলাদেশকে তুলে ধরছেন। উদ্বোধনী অনুষ্ঠান সঞ্চালনা এবং প্রদর্শনীর সার্বিক সমন্বয় করেন দূতাবাসের প্রথম সচিব সুজন দেবনাথ।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের গ্রীসের ইলিওপোলি শিল্পী ও সাহিত্যিক গোষ্ঠীর সভাপতি জনাব স্টিলিয়ানোস মারোলিস বক্তব্য রাখেন। তিনি দুই দেশের শিল্পীদের এই সহযোগিতা ভবিষ্যতেও চলমান থাকবে বলে আশা প্রকাশ করেন।

প্রদর্শনীর কিউরেটর ছিলেন মিসেস ডোরা স্কুটেরি। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি এই আয়োজনের সাফল্যের জন্য বাংলাদেশ দূতাবাসকে ধন্যবাদ জানান এবং এরকম সুন্দর আয়োজনের মাধ্যমে দুই দেশের মধ্যে সম্পর্ক জোরদার হবে বলে মন্তব্য করেন।

গ্রিসের বিশিষ্ট শিল্প সমালোচক লিওন্টিস পেটমেজাস প্রদর্শিত চিত্রকর্মগুলোর সম্পর্কে মতামত ব্যক্ত করেন এবং শিল্পীদের কর্মের ভূয়সী প্রশংসা করেন। বাংলাদেশের শিল্পীদের পক্ষ থেকে মুনীরুজ্জামান এবং রেজাউন নবী উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন।

চিত্র প্রদর্শনীর পাশাপাশি দুই দেশের শিশু-কিশোরদের অংশগ্রহণে একটি চিত্র কর্মশালারও আয়োজন করা হয়। কর্মশালায় দুই দেশের চিত্রশিল্পীদের সাথে দুই দেশের নতুন প্রজন্মের শিশু-কিশোরেরা বিভিন্ন থীমের উপর তাদের সৃষ্টিশীলতা তুলে ধরে। এই কর্মশালা সমন্বয় করেন গ্রীক শিল্পী মেরু স্কুটেরি।

চিত্র প্রদর্শনীর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিভিন্ন দেশের কূটনীতিক ও গ্রীক সরকারের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা, শিল্পী, সাহিত্যিকসহ বিভিন্ন পেশাজীবী এবং দূতাবাসের কর্মকর্তা-কর্মচারীগণ, বাংলাদেশের কমিউনিটি ইন গ্রিসের নেতৃবৃন্দসহ প্রবাসী বাংলাদেশিদের বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক, ব্যবসায়ী ও বিভাগ ভিত্তিক আঞ্চলিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণকারী চৌদ্দ জন শিল্পী এবং কর্মশালার সমন্বয়ককে বিশেষ সনদপত্র প্রদান করা হয়। প্রদর্শনীতে উপস্থিত দর্শক, শিল্পী, এবং সর্বস্তরের অতিথিরা এই চিত্রকর্ম উপভোগ করেন এবং আয়োজনের ভূয়সী প্রশংসা করেন।

ইত্তেফাক/বিএএফ

এই পাতার আরো খবর -
  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
prayer-time
২০ জুলাই, ২০১৯
আর্কাইভ
বেটা
ভার্সন