ঢাকা বুধবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৩ আশ্বিন ১৪২৬
৩০ °সে


নিউইয়র্কে ফোবানা সম্মেলনের উদ্বোধন

নিউইয়র্কে ফোবানা সম্মেলনের উদ্বোধন
৩৩তম ফোবানা সম্মেলনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠান। ছবি : ইত্তেফাক

জমকালো অনুষ্ঠানের মাধ্যমে যুক্তরাষ্ট্রে উদ্বোধন হলো ৩৩তম ফোবানা সম্মেলনের। স্থানীয় সময় শুক্রবার যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্ক সিটির অদূরে ইউনিয়নডেল লং আইল্যান্ড ম্যারিয়ট হোটেলের গ্র্যান্ড বলরুমে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের সূচনা হয় বাংলাদেশ, যুক্তরাষ্ট্র ও কানাডার জাতীয় সঙ্গীত পরিবেশনের মধ্য দিয়ে।

ফোবানার স্লোগান ‘আমাদের সন্তান, আমাদের গর্ব।’ আর এ কারণে নতুন প্রজন্মের দুজন প্রতিনিধি যথাক্রমে বাংলাদেশ স্টুডেন্ট অ্যাসোসিয়েশন অব নিউইয়র্কের কৃতি ছাত্র তৌহিদ প্রান্ত ও মারফাত রহমান যৌথভাবে ফোবানার উদ্বোধন ঘোষণা করেন।

ফোবানার দ্বিতীয় ও তৃতীয় দিনের অনুষ্ঠান হবে ম্যারিয়ট হোটেল সংলগ্ন নাসাউ কলিসিয়ামে। ৩৩ বছরের ইতিহাসে এবারই প্রথম ব্যয়বহুল একটি ভেন্যুতে ফোবানা সম্মেলন অনুষ্ঠিত হচ্ছে, যা সারা বছরই বাংলাদেশি কমিউনিটিতে আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে ছিল। যদিও নিউইয়র্কে একই সময়ে ফোবানা কনভেনশন নামে আরো অনুষ্ঠানের আয়োজন চলছে লাগোর্ডিয়া ম্যারিয়ট হোটেলে। ঐক্যবদ্ধ ফোবানার আয়োজন করা গেলে নিউইয়র্কে বাংলাদেশীদের জন্য এটি হতো একটি স্বর্ণালী অধ্যায়।

লং আইল্যান্ডে ৩৩তম ফোবানা সম্মেলনের আয়োজক নিউইয়র্কের নাট্য ও সাংস্কৃতিক সংগঠক ড্রামা সার্কল। বাংলাদেশি মালিকানাধীন দুবাইভিত্তিক বিশ্বখ্যাত সুগন্ধি প্রস্তুতকারক প্রতিষ্ঠান আল-বাহরাইন কোম্পানির কর্ণধার মাহতাবুর রহমান নাসির উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি বলেন, ফোবানা অনুষ্ঠানের মাধ্যমে আমরা বাংলাদেশের কৃষ্টি, সংস্কৃতি ও ঐহিত্য তুলে ধরতে পারছি। যেখানেই থাকি না কেনো আমরা যেন বাংলাদেশি হিসাবে নিজেদের নিয়ে গর্ব করতে পারি। বাংলাদেশীদের সুনাম ক্ষুন্ন হয় এমন কোনো কাজ না করার আহ্বান জানান তিনি।

৩৩তম ফোবানা সম্মেলনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বাংলাদেশের জাতীয় সঙ্গীত পরিবেশন করা হচ্ছে। ছবি : ইত্তেফাক

এর আগে সময় স্বল্পতার কারণে অনুষ্ঠানের শুরুর দিকে অনুষ্ঠানে এসে শুভেচ্ছা বক্তব্য দেন নাসাউ কাউন্টির প্রধান নির্বাহী লরা কারেন। তিনি বলেন, নাসাউ কাউন্টিতে বিপুলসংখ্যক বাংলাদেশী অভিবাসী রয়েছেন, যারা তাদের কৃষ্টি, সংস্কৃতি ও ঐতিহ্য তুলে ধরছেন। ফোবানা সম্মেলনের জন্য নাসাউ কাউন্টিকে বেছে নেওয়ায় তিনি ধন্যবাদ জানান আয়োজকদের।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের সময় নির্ধারিত ছিল সন্ধ্যা ৭টা। কিন্তু নানান আনুষ্ঠানিকতার কারণে উদ্বোধনী অনুষ্ঠান শুরু হয় রাত ৮টা ৫০ মিনিটে। ফোবানার সদস্য সচিব আবীর আলমগীরের লেখা ফোবানা সঙ্গীত দারুণ প্রশংসিত হয়েছে। আর এটি সুর করেছেন প্রখ্যাত সুরকার নাদিম আহমেদ। সাংস্কৃতিক পর্বে অংশ নেয় নিউইয়র্কের সাংস্কৃতিক সংগঠন বিপা, বাফা ও আনন্দধ্বনি। তারা সঙ্গীত ও নৃত্য পরিবেশন করে উপস্থিত দর্শক-শ্রোতা ও অতিথিদের মুগ্ধ করেন। অনুষ্ঠানে সেতার পরিবেশন করেন প্রখ্যাত সেতারবাদক মোরশেদ খান অপু। তাকে তবলায় সঙ্গত করেন তপন মোদক।

টিভি উপস্থাপিকা ফাতেমা সাহাব রুমার উপস্থাপনায় উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের দ্বিতীয় পর্ব পরিচালনা করেন ৩৩তম ফোবানা সম্মেলনের সদস্য সচিব আবীর আলমগীর। এই পর্বে অতিথিদের মঞ্চে আহ্বান করা হয় এবং ফোবানা ২০১৯ আইকনদের উত্তরীয় পরিয়ে দেওয়া হয়।

অনুষ্ঠানে শুভেচ্ছা বক্তব্য দেন ফোবানা আয়োজক কমিটির সভাপতি অধ্যাপক ড. দেলোয়ার হোসেন। স্বাগত বক্তব্য দেন ড্রামা সার্কলের অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা, বাংলাদেশ সোসাইটির সাবেক সভাপতি ও ৩৩তম ফোবানার আহ্বায়ক নার্গিস আহমেদ।

অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য দেন নিউইয়র্ক স্টেট অ্যাম্বেলিউয়োম্যান এলিসিয়া হাইন্ডম্যান, ফোবানা নির্বাহী কমিটির চেয়ারম্যান মীর চৌধুরী, নির্বাহী সচিব জাকারিয়া চৌধুরী, টাইটেল স্পন্সর স্পন্সর উৎসব ডটকমের সিইও রায়হান জামান এবং টাউন এমডি গ্রুপের সিইও রাহাত আল মুক্তাদির।

আরো পড়ুন : ইরানের রকেট উৎক্ষেপণ ব্যর্থ হওয়ায় যুক্তরাষ্ট্রের হাত নেই : ট্রাম্প

উদ্বোধনী মঞ্চে আরো উপস্থিত ছিলেন ফোবানা সম্মেলনের প্রধান উপদেষ্টা ও মূলধারার রাজনীতিক আমিন উল্লাহ, চিফ কনসালটেন্ট বেদারুল ইসলাম বাবলা, ফোবানা ২০১৯ আইকন রিয়েলটর জন ফাহিম, আব্দুল হ্ইা জিয়া, কবির পাটোয়ারী, পারভীন পাটোয়ারী, গোলাম ফারুক, মোয়াজ্জেম হোসেন চৌধুরী, জিআই রাসেল প্রমুখ।

অনুষ্ঠানের শেষে মঞ্চে পরিচয় করিয়ে দেওয়া হয় কুইন্স ডিস্ট্রিক্ট থেকে নিউইয়র্ক ডিস্ট্রিক্ট অ্যাসেম্বলিউয়োম্যান প্রার্থী মেরী জোবায়দাকে। তাকে নির্বাচিত করার জন্য বাংলাদেশীদের প্রতি আহ্বান জানান ফোবানার আহ্বায়ক নার্গিস আহমেদ। এরপর পরিচয় করিয়ে দেওয়া হয় যুক্তরাষ্ট্র সফররত বাংলাদেশের নারী সমাজকর্মী আফরোজা পারভীন ও বাংলাদেশের পতাকা নিয়ে ১৩৩টি দেশ ভ্রমণকারী নাজমুন নাহারকে।

লাগোর্ডিয়া ম্যারিয়ট হোটেলে আরেকটি ফোবানা কনভেনশন

৩৩তম ফোবানা কনভেনশন নামে আরেকটি আসর বসেছে নিউইয়র্কের লাগোর্ডিয়া ম্যারিয়ট হোটেলে। এর আয়োজক বাংলাদেশি আমেরিকান ফ্রেন্ডশিপ সোসাইটি ইন্ক। শুক্রবার সন্ধ্যায় কনভেনশনের উদ্বোধন করেন বিএনপির কেন্দ্রীয় ভাইস চেয়ারম্যান ও ঢাকার সাবেক মেয়র সাদেক হোসেন খোকা। তিনি প্রবাসীদের ঐক্যবদ্ধ থাকার আহ্বান জানিয়ে বলেন, প্রবাসে ঐক্যের বিকল্প নেই। কিন্তু ফোবানা নামেই দুটি সম্মেলন হচ্ছে। এটা দুঃখজনক। ভবিষ্যতে সকল বাধা-বিপত্তি দূর করে প্রবাসীদের একটি ফোবানার পতাকাতলে সমবেত হবার আহ্বান জানান তিনি।

ফোবানা সম্মেলনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে অতিথিরা। ছবি : ইত্তেফাক

অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য দেন ফোবানা স্ট্যান্ডিং কমিটির নেতা আলী ইমাম শিকদার। অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য দেন ঢাকার সাবেক ডেপুটি মেয়র আব্দুস সালাম, কনভেনর মো. শাহনেওয়াজ, স্ট্যান্ডিং কমিটির চেয়ারম্যান মোহাম্মদ হোসেন খান, ফোবানা কনভেনশনের সদস্য সচিব ফিরোজ মাহমুদ, মাকসুদ এইচ চৌধুরী, আসেফ বারী টুটুল, ডেমোক্রেটিক লিডার অ্যাটর্নি মঈন চৌধুরী, আহসান হাবিব প্রমুখ।

অন্যান্যের মধ্যে উদ্বোধনী মঞ্চে উপস্থিত ছিলেন মূলধারার রাজনীতিক গিয়াস আহমেদ, মোর্শেদ আলম, কাজী সাখাওয়াত হোসেন আজম, ডা. মাসুদুর রহমান, আতিকুর রহমান সালু, মিজানুর রহমান ভ‚ইয়া মিলটন প্রমুখ।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের শুরুতে বাংলাদেশ, যুক্তরাষ্ট্র ও কানাডার জাতীয় সঙ্গীত পরিবেশন করা হয়। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের শেষ পর্বে সঙ্গীত পরিবেশন করেন নিউইয়র্কের শিল্পীরা।

ইত্তেফাক/ইউবি

এই পাতার আরো খবর -
  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
prayer-time
১৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৯
আর্কাইভ
বেটা
ভার্সন