ঢাকা শনিবার, ০৬ জুন ২০২০, ২৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭
২৫ °সে

আয়ারল্যান্ডে দূতাবাস স্থাপনের সিদ্ধান্তে প্রধানমন্ত্রী ও পররাষ্ট্রমন্ত্রীর প্রতি কৃতজ্ঞতা

আয়ারল্যান্ডে দূতাবাস স্থাপনের সিদ্ধান্তে প্রধানমন্ত্রী ও পররাষ্ট্রমন্ত্রীর প্রতি কৃতজ্ঞতা
আয়ারল্যান্ডে দূতাবাস স্থাপনের সিদ্ধান্তে অনলাইনে ধন্যবাদ জ্ঞাপন সভা

আয়ারল্যান্ডের রাজধানী ডাবলিনে অনলাইন ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে আয়ারল্যান্ডে বাংলাদেশি দূতাবাস প্রতিষ্ঠার সিদ্ধান্তের জন্য বৃহস্পতিবার (২১ মে) বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও পররাষ্ট্রমন্ত্রী ডক্টর এ.কে. আব্দুল মোমেনকে ধন্যবাদ জানানো হয়। ধন্যবাদ জ্ঞাপনমূলক অনলাইন সভাটির সার্বিক পরিচালনা ও সঞ্চালনায় ছিলেন মো. ফিরোজ হোসেন, বাবু অলক সরকার, মুন্না সৈকত এবং রিয়াজ খন্দকার।

ভিডিও কনফারেন্সে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন গনপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের পররাষ্ট্র মন্ত্রী ডক্টর এ. কে. আব্দুল মোমেন, বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ব্রিটেনে নিযুক্ত বাংলাদেশের হাই কমিশনার সাঈদা মুনা তাসনিম ও সম্মানিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশের জার্মান অনারারি কনসুলেট ইঞ্জিনিয়ার হাসনাত মিয়া সহ আয়ারল্যান্ড বাংলাদেশি কমিউনিটির বিভিন্ন পেশাজীবী ও কমিউনিটি ব্যক্তিত্ব।

ইঞ্জিনিয়ার হাসনাত মিয়া বলেন, কিছুদিন আগে সিরাজগঞ্জ-২ আসনের সাংসদ ও সাবেক আয়ারল্যান্ড প্রবাসী হাবিবে মিল্লাত মুন্না ডাবলিন আওয়ামী লীগের ওয়েবসাইট উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আয়ারল্যান্ডের জন্য হাইকমিশন স্থাপনের সুখবর নিয়ে আসেন এবং আয়ারল্যান্ডে এই হাইকমিশন স্থাপন যথার্থই প্রবাসী বাঙ্গালীদের জন্য অনেক সুফল বয়ে আনবে।

ব্রিটেনে বাংলাদেশের হাইকমিশনার সাঈদা মুনা তাসনিম তার বক্তব্যে সুবিন্যস্তভাবে আয়ারল্যান্ডে বাংলাদেশি দূতাবাস প্রতিষ্ঠার ব্যাপারে গুরুত্বপূর্ণ বিষয়গুলো তুলে ধরেন। তিনি বলেন যে, আয়ারল্যান্ডে বাংলাদেশ দূতাবাস প্রতিষ্ঠিত হলে দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্যের অপার সম্ভবনা রয়েছে। এতে বাংলাদেশে থেকে আয়ারল্যান্ডে আসা যেমন সহজ হবে, তেমনি আয়ারল্যান্ডে বসবাসকারী বাংলাদেশিদেরও সুবিধা হবে সরকারি বিভিন্ন সেবা পেতে। বাংলাদেশে প্রায় ছয় লক্ষাধিক ফ্রিল্যান্স তথ্যপ্রযুক্তি জ্ঞান সম্পন্ন জনবল রয়েছে। এই জ্ঞান সম্পন্ন জনবল কাজে লাগানোর এক অপার সম্ভাবনা রয়েছে।

ব্রিটেনের হাইকমিশনার ২০১৯ সালের ১৯ নভেম্বর ডাবলিনে আসেন আয়ারল্যান্ডের এক রাষ্ট্রীয় সফরে, তিনি আয়ারল্যান্ডের প্রেসিডেন্ট মিস্টার ডক্টর হিগিন্স এর সাথে দেখা করেন এবং শীর্ষস্থানীয় পররাষ্ট্র এবং বাণিজ্য মন্ত্রনালয়ের কর্মকর্তাদের সাথে সৌজন্যমূলক সাক্ষাত করেন যা বাংলাদেশ এবং আয়ারল্যান্ডের দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক উন্নয়নের বিরাট ভূমিকা রাখছে।

উক্ত সভার শেষে বক্তব্য রাখেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ডক্টর একে আব্দুল মোমেন। তিনি দৃঢ় আশা ব্যক্ত করেন ডাবলিনে বাংলাদেশি দূতাবাস প্রতিষ্ঠায়। তিনি উল্লেখ করেন যে বাংলাদেশের এখন পর্যন্ত বিশ্বের বিভিন্ন দেশে ৭৭টি দূতাবাস রয়েছে এবং জননেত্রী শেখ হাসিনার সরকার ক্ষমতা থাকা অবস্থায় আওয়ামী লীগ সরকারের লক্ষ্যমাত্রা তা ১০০তে উন্নীত করা। তিনি প্রবাসীদের কল্যাণের জন্য আওয়ামী লীগ সরকারের নেওয়া বিভিন্ন প্রকল্প ও উদ্যোগের কথা তুলে ধরে জননেত্রী শেখ হাসিনা কে ধন্যবাদ জানান এবং আয়ারল্যান্ডবাসীকে অভিনন্দন জানান।

সভায় পররাষ্ট্রমন্ত্রী তার বক্তৃতায় প্রবাসী বাংলাদেশিদের প্রতি অত্যন্ত আন্তরিকতা এবং কার্যকর ভুমিকা প্রদানের জন্যে অঙ্গীকার করেন। তার প্রতিক্রিয়ায় আইরিশ বাংলাদেশি কমিউনিটির সকল সদস্যরা উৎফুল্ল হন। পরিবর্তি সময়ে মন্ত্রী মহোদয় আয়ারল্যান্ড সফর করার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন।

ঐতিহাসিক এবং তাৎপর্যপূর্ণ এই সভায় উপস্থিত ছিলেনঃ

ডাবলিন থেকে উপস্থিত ছিলেন:

মোঃ ফিরোজ হোসেন (সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার এবং সভাপতি, ডাবলিন আওয়ামী লীগ)

বাবু অলক সরকার (সফটওয়্যার ডেভেলপার এবং ডাটা এনালিস্ট, সাধারন সম্পাদক, ডাবলিন আওয়ামী লীগ)

এম. এইচ. মুন্না সৈকত (ফিনান্সিয়াল এনালিস্ট এবং প্রবাস ও আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক, ডাবলিন আওয়ামী লীগ)

ডা. জিন্নুারাইন জায়গীরদার - কনসালন্টেট ডাবলিন কনোলী হাসপাতাল, বিশিষ্ট কমিউনিটি ব্যাক্তি ও সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতি (আইরিশ বাংলা পোষ্ট)

রিয়াজ খন্দকার (বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ও যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক, ডাবলিন আওয়ামী লীগ)

জসীম উদ্দিন (সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক, শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় এবং প্রতিষ্ঠাতা সাংগঠনিক সম্পাদক, আয়ারল্যান্ড আওয়ামী লীগ ও উপদেষ্টা ডাবলিন আওয়ামী লীগ)

মো. মোস্তফা (বিশিষ্ট কমিউনিটি ব্যক্তিত্ব)

শাহাদাৎ হোসেন (বিশিষ্ট কমিউনিটি ব্যক্তিত্ব ও উপদেষ্টা ডাবলিন আওয়ামী লীগ)

তারেক সালাউদ্দিন (বিশিষ্ট ব্যবসায়ী এবং কমিউনিটি ব্যাক্তিত্ব)

কাজী কবীর (বাংলাদেশ এসোসিয়েশন অব আয়ারল্যান্ড - BAI এবং বাংলা বার্তা পত্রিকার প্রতিষ্ঠাতা)

শ্রী সমীর কুমার ধর (গবেষক এবং সাংগঠনিক সম্পাদক, ডাবলিন আওয়ামীলীগ)

হাফিজুর রহমান লিঙ্কন (কমিউনিটি ব্যক্তিত্ব এবং সহ-সভাপতি, ডাবলিন আওয়ামী লীগ)

সৈয়দ রনি - কমিউনিটি ব্যক্তিত্ব, ব্ল্যানচার্ডসটাউন, ডাবলিন

দিলদার হোসেন (বিশিষ্ট ব্যবসায়ী এবং সাংগঠনিক সম্পাদক, ডাবলিন আওয়ামী লীগ)

মোঃ সাইফুর রহমান বাবলু (বিশিষ্ট ব্যবসায়ী এবং সহ-সভাপতি, ডাবলিন আওয়ামী লীগ)

নাসির আহামেদ (সফটওয়্যার ডেভেলপার এবং তথ্য প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক, ডাবলিন আওয়ামী লীগ)

নজরুল ইসলাম মানিক (ব্যবসায়ী এবং সদস্য, ডাবলিন আওয়ামী লীগ)

কাউন্টি কর্ক থেকে উপস্থিত ছিলেনঃ

রফিক খান (প্রতিষ্ঠাতা সাংগঠনিক সম্পাদক আয়ারল্যান্ড আওয়ামী লীগ)

ফয়জুল্লাহ শিকদার (বিশিষ্ট ব্যবসায়ী)

সানোয়ার হোসেন (বিশিষ্ট ব্যবসায়ী)

মো. নোমান চৌধুরী (ছাত্র এবং সভাপতি, আয়ারল্যান্ড ছাত্র লীগ)

কাউন্টি কেরী থেকে উপস্থিত ছিলেন:

কিবরিয়া হায়দার (বিশিষ্ট ব্যবসায়ী এবং সাবেক সভাপতি আয়ারল্যান্ড আওয়ামী লীগ)

কামরুজ্জামান নান্না (বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ও সাবেক সহ- সভাপতি, আয়ারল্যান্ড আওয়ামী লীগ)

কাউন্টি কিলকেনী থেকে উপস্থিত ছিলেন: সৈয়দ মুস্তাফিজুর রহমান (বিশিষ্ট সমাজ সেবক, কমিউনিটি ব্যক্তিত্ব, সাবেক সাধারণ সম্পাদক, বাংলাদেশ এসোসিয়েশন অব আয়ারল্যান্ড - BAI)

কাউন্টি ওফেলী থেকে উপস্থিত ছিলেন:

মনিরুজ্জামান শুভ্র (প্রাইভেট সার্ভিস সেক্টর, সাধারণ সম্পাদক, ওফেলি আওয়ামী লীগ)

তাম্মান্না ফারিয়া- (ছাত্রী, দপ্তর বিষয়ক সম্পাদক, ওফেলি আওয়ামী লীগ)

উক্ত অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন আয়ারল্যান্ডের সুপরিচিত বাংলাদেশ কমিউনিটির গণ্যমান্য ব্যক্তি বর্গ।

ইত্তেফাক/আরএ

এই পাতার আরো খবর -
  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
prayer-time
০৬ জুন, ২০২০
আর্কাইভ
বেটা
ভার্সন