বিদেশে বিভিন্ন মিশনে বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উদযাপন 

বিদেশে বিভিন্ন মিশনে বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উদযাপন 
ভারতের নয়াদিল্লিতে বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উদযাপিত।

স্বাধীনতার মহান স্থপতি, সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস আজ। দীর্ঘ ৯ মাসের সশস্ত্র মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে এক সাগর রক্তের বিনিময়ে বিজয় অর্জনের পর ১৯৭২ সালের এই দিনে পাকিস্তানে দীর্ঘ কারাবাস শেষে সদ্য স্বাধীন ও সার্বভৌম বাংলাদেশের মাটিতে ফিরে আসেন বাঙালি জাতির অবিসংবাদিত নেতা, স্বাধীনতা সংগ্রামের মহানায়ক বঙ্গবন্ধু।

বাঙালি জাতির মুক্তি সংগ্রামের ইতিহাসে বঙ্গবন্ধুর এ স্বদেশ প্রত্যাবর্তন উপলক্ষে রবিবার (১০ জানুয়ারি) বাংলাদেশের বিভিন্ন দূতাবাসে বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উদযাপিত হয়েছে।

ভারতের নয়াদিল্লির হাইকমিশন

ভারতের নয়াদিল্লির হাইকমিশন থেকে পাঠানো এক বার্তায় বলা হয়, বাংলাদেশ হাইকমিশন, নয়াদিল্লিতে যথাযথ মর্যাদায় জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঐতিহাসিক স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উদযাপন করা হয়েছে।

বাংলাদেশের বিজয়ের ৫০ বছর উপলক্ষে ‘গ্লোরিয়াস বাংলাদেশ’ নামে একটি বিশেষ ম্যাগাজিনের মোড়ক প্রকাশ করেন ভারতে নিযুক্ত বাংলাদেশ হাইকমিশনার মুহাম্মদ ইমরান।

এসময় গৌতম লাহিড়ী এবং সৌম্য বন্দ্যোপাধ্যায় ও মিশনের প্রেস মিনিস্টার ফরিদ হোসেন প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

লন্ডন, বাংলাদেশ হাইকমিশন

লন্ডন, বাংলাদেশ হাইকমিশন থেকে পাঠানো এক বার্তায় বলা হয়, লন্ডনে যথাযোগ্য মর্যাদায় বঙ্গবন্ধুর ঐতিহাসিক স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস পালন করা হয়েছে। যুক্তরাজ্য ও আয়ারল্যান্ডের হাইকমিশনার সাইদা মুনা তাসনিমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত ভার্চুয়াল আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ডা. একে আবদুল মোমেন এবং দক্ষিণ এশিয়ার ব্রিটিশ বিদেশ ও উন্নয়ন অফিসের (এফসিডিও) মন্ত্রী এবং কমনওয়েলথ লর্ড তারিক আহমেদ অতিথি হিসাবে সম্মানিত অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন এবং ওয়েলসের প্রথমমন্ত্রী আরটি হোন মার্ক ড্রেকফোর্ড এএম বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন।

জাপান দূতাবাস

জাপান দূতাবাস থেকে পাঠানো এক বার্তায় বলা হয়, দূতাবাসের বঙ্গবন্ধু মিলনায়তনে আয়োজিত এই অনুষ্ঠানের শুরুতে জাপানে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত শাহাবুদ্দিন আহমদ দূতাবাসের কর্মকর্তা – কর্মচারীদের সাথে নিয়ে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন। অতঃপর বঙ্গবন্ধু ও বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন নেছা মুজিবসহ ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট কালোরাতে দেশদ্রোহী ঘাতকের নির্মম বুলেটে শাহাদাৎবরণকারী সকল শহিদ, জাতীয় চার নেতা এবং মুক্তিযুদ্ধের সকল শহিদের স্মরণে এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয়। পরে তাঁদের বিদেহী আত্মার মাগফিরাত ও শান্তি এবং দেশের উন্নতি ও সমৃদ্ধি কামনা করে বিশেষ দোয়া (মোনাজাত) করা হয়।

রাশিয়া দূতাবাস

রাশিয়ার দূতাবাস থেকে পাঠানো এক বার্তায় বলা হয়, মস্কোতে যথাযোগ্য মর্যাদায় বঙ্গবন্ধুর ঐতিহাসিক স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস পালন করা হয়েছে। এ উপলক্ষে দূতাবাসের বঙ্গবন্ধু অডিটোরিয়ামে রাশিয়ান ফেডারেশনে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত জনাব কামরুল আহসান এর সভাপতিত্বে একটি আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। যেখানে দূতাবাসের সকল কর্মকর্তা ও কর্মচারী উপস্থিত ছিলেন।

ভিয়েতনাম দূতাবাস

ভিয়েতনামের দূতাবাস থেকে পাঠানো এক বার্তায় বলা হয়, স্বেচ্ছায় রক্তদান কর্মসূচীর মাধ্যমে বাংলাদেশ দূতাবাস হ্যানয়, ভিয়েতনামে যথাযোগ্য মর্যাদায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস এবং মুজিববর্ষ উদযাপন করেছে। দূতাবাসের কর্মচারী ও ভিয়েতনামের বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ স্বেচ্ছায় এই রক্তদান কর্মসূচীতে অংশগ্রহণ করেন।

রক্তদান কর্মসূচী অনুষ্ঠান শেষে দূতাবাসের পক্ষ থেকে স্বেচ্ছায় রক্তদানে অংশগ্রহণকারীদের মাঝে মুজিববর্ষের লোগো সম্বলিত উপহার দেন বাংলাদেশি হাইকমিশনার মিজ সামিনা নাজ।

ইত্তেফাক/এমএএম

Nogod
  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত