কানাডার নির্বাচনকে ঘিরে বাংলাদেশিদের প্রত্যাশা

কানাডার নির্বাচনকে ঘিরে বাংলাদেশিদের প্রত্যাশা
ছবি: সংগৃহীত

আগামী ২০ সেপ্টেম্বর কানাডায় কেন্দ্রীয় সরকারের ৪৪তম নির্বাচন। ২০২৩ সালের অক্টোবরে অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা থাকলেও লিবারেল সরকার হঠাৎ করেই এই অগ্রিম নির্বাচনের ঘোষণা দেয়। এদিকে একাধিক জরিপে দেখা যায়, প্রধান দুই দল লিবারেল এবং কঞ্জারবেটিবের মধ্যে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই হবে।

কানাডায় সংখ্যাগরিষ্ঠ সরকার গঠনের জন্য প্রয়োজনীয় ১৭০টি আসনে বিজয়ী হতে হয়। সেখানে গত নির্বাচনে লিবারেলরা হাউস অব কমন্সে ১৫৫টি আসন পেয়ে সংখ্যালঘু সরকার গঠন করে। অপরদিকে কনজারভেটিভদের ১১৯টি, ব্লক কিউবিকোইস ৩২টি, নিউ ডেমোক্র্যাটস ২৪টি এবং গ্রিন পার্টি দুটি। পাঁচটি আসন ছিলো স্বতন্ত্রদের দখলে ছিলো।

এবারের নির্বাচনে করোনাকালের ধস থেকে অর্থনৈতিক পুনরুদ্ধার, আদিবাসীদের সাথে পুনর্মিলন, বৈষম্য ও বর্ণবাদের অবসান, জলবায়ু পরিবর্তন, জীববৈচিত্র্য পুনরুদ্ধার, ধর্মীয় অসহিষ্ণুতা, ইসলামোফোবিয়াস ইত্যাদি বিষয় আলোচিত হচ্ছে। যেহেতু কানাডা-বাংলাদেশের মধ্যে দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক বিরাজমান। সেহেতু নির্বাচনের আগে বাংলাদেশি অভিবাসীদেরও বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ বিষয় আলোচনা হচ্ছে এবং কিছু কিছু প্রার্থীদের কাছে তুলে ধরা হয়েছে। যেমন, রোহিঙ্গা সংকটের সমাধানে কানাডার আরও জোড়ালো ভূমিকা, বঙ্গবন্ধুর খুনি নূর চৌধুরীকে বাংলাদেশে ফেরত, সামাজিক ও অন্যান্য গণ মাধ্যমে কানাডা থেকে বাংলাদেশের বিরুদ্ধে অপপ্রচার বন্ধ করার ব্যবস্থা, বাংলাদেশ থেকে মানি লন্ডারিংদের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ প্রভৃতি। এই বিষয়গুলো নিয়ে বাংলাদেশ দূতাবাসও সোচ্চার। বিভিন্ন সময় ওটোয়াস্থ বাংলাদেশ দূতাবাসের হাই কমিশনার ড. খলিলুর রহমানও ইত্তেফাকের সঙ্গে আলোচনা কালে দ্বিপাক্ষিক স্বার্থ সংশ্লিষ্ট বিষয়গুলো তুলে ধরেন।

স্থানীয় প্রবাসী বাঙালি পারভেজ কফিল বলেন, লিবারেল ক্ষমতায় আসলে উল্লেখিত বিষয়গুলো গুরুত্ব পাবে এবং কিছু কিছু কার্যকরী পদক্ষেপ নেওয়া হবে হয়তো। কিন্তু অভিবাসী বিরোধী কঞ্জারবেটিব পার্টির কাছে প্রত্যাশা করা আশায় গুড়ে বালি। কারণ, বিগত দিনে কঞ্জারবেটিবের রাজনৈতিক চিন্তা এবং তাদের শাসনামলের চিত্র ছিলো ভিন্ন।

এবারের নির্বাচনে সবচেয়ে বেশি আটজন বাংলাদেশি প্রার্থী! তাঁরা হলেন- অন্টারিও প্রদেশের অশোয়া আসনে সরকারি দল লিবারেল থেকে আফরোজা হোসেন, টরন্টোস্থ স্কারবোরো সাউথ-ওয়েস্ট আসনে কনজার্ভেটিভ পার্টি থেকে মহসিন ভূইয়া, এনডিপি থেকে স্কারবোরো সেন্টার আসনে ফাইজ কামাল, আলবাট্রার এনডিপি থেকে খালিস আহমেদ তমাল এবং ক্যালগরি থেকে এনডিপির গুলশান আক্তার, মেট্রো ভ্যাঙ্কুভারের সোরি-নিউটন আসনে কনজারভেটিভ পার্টির সৈয়দ মহসিন, নায়গ্রা ওয়েস্ট আসনে এনডিপির নামির রহমান এবং অশোয়া থেকে গ্রিন পার্টির সানি মীর।

ইত্তেফাক/জেডএইচডি

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
আরও
আরও
x