চন্দ্রবিন্দু ( ঁ)- এর ব্যবহার

চন্দ্রবিন্দু ( ঁ)- এর ব্যবহার
ছবি: সংগৃহীত

মো. কামরুল হাসান, সহকারী শিক্ষক, ক্যান্টনমেন্ট পাবলিক স্কুল জাহানাবাদ সেনানিবাস, খুলনা। বাংলা ভাষায় অর্থ-বিপর্যয় এড়াতে ও অর্থ-পার্থক্য মনে রাখতে কিছু শব্দের বানানে চন্দ্রবিন্দুর ব্যবহার

বাংলা ভাষায় অর্থ-বিপর্যয় এড়াতে ও অর্থ-পার্থক্য মনে রাখতে কিছু শব্দের বানানে চন্দ্রবিন্দুর ব্যবহার লক্ষ করা যায়। আধুনিক বাংলা অভিধানে ২৪টি বর্ণে ১৩৫ জোড়া একই রকম শব্দ (চন্দ্রবিন্দু-সহ ও চন্দ্রবিন্দুহীন) পাওয়া গেছে।

ক (গত পর্বের অবশিষ্টাংশ)

কাঁটা—[স. কণ্টক>] বি. কণ্টক, শলাকা, পেরেক, দাঁড়িপাল্লা।

কাটা—[বা.] ক্রিবি. কর্তন বা ছেদন করা, বাতিল করা। বিণ. কর্তিত, খণ্ডিত, মণ্ডিত।

কাঁঠি—[স. কণ্ঠিকা>] বি. মাছ ধরার জালের নিচের অংশে সংযুক্ত লোহার টুকরো, গলার মালার গুটিকা, শুকপাখির গলদেশের রেখা, ছোটো পেরেক, সাপের গলার দাগ।

কাঠি—[স. কাষ্ঠিকা>] বি. কাঠ, বাঁশ, ধাতু প্রভৃতির তৈরি লম্বা, ও সরু শলাকা। বিণ. কাঠির মতো কৃশ।

কাঁড়া—[স. কণ্ডিত>] ক্রিবি. ছেঁটে পরিষ্কার করা। বিণ. পরিষ্কৃত, ছাঁটা হয়েছে এমন।

কাড়া—[স. কর্ষণ>] ক্রিবি. জোর করে আদায় করা, আকর্ষণ করা, উচ্চারণ করা। বিণ. কেড়ে নেওয়া হয়েছে এমন।

কাড়া—[স. কটাহ>] বি. একদিক চামড়ায় আবৃত ঢাকজাতীয় বড়ো বাদ্যযন্ত্রবিশেষ।

কাঁড়ানো—[বা.] ক্রিবি. ছাঁটানো, পরিষ্কার করানো।

বিণ. পরিষ্কৃত, ছাঁটা হয়েছে তা।

কাড়ানো—[বা.] ক্রিবি. আগাছা উত্পাটনের উদ্দেশ্যে খেত চষা; অন্যকে দিয়ে ছিনিয়ে নেওয়ানো, আদায় করানো। বিণ. অন্যকে দিয়ে ছিনিয়ে নেওয়া হয়েছে এমন।

কাঁদা—[স. ক্রন্দন>] ক্রিবি. রোদন করা।

কাদা—[স. কর্দম>] বি. জলসিক্ত পঙ্কিল মাটি, কর্দম। বিণ. কর্দমাক্ত।

কাঁপ—[স. কম্প>] বি. কম্পন, শিহরন।

কাপ—[ই.] বি. হাতলযুক্ত বাটি, ট্রফি।

কাপ—[স. কাপট্য>] বি. ব্রাহ্মণের শ্রেণিবিশেষ, কপটতা, ছলনা। বিণ. কৌতুককারী, ছদ্মবেশী।

কুঁচ—[স. কুঞ্জিকা>] বি. গুঞ্জাফল, বিণ. লাল।

কুচ—[স. কুচ্ + অ] বি. স্তন, পয়োধর।

কুচ—[ধন্যা.] অব্য. বি. ধারালো অস্ত্রের সাহায্যে নরম জিনিস কাটার অনুকার শব্দ।

কুচ—[ফা.] বি. সৈন্যদের যুদ্ধযাত্রা বা দলবদ্ধভাবে একস্থান থেকে অন্যস্থানে গমন।

কুঁচা—[স. কুচিত>] বিণ. অতি ক্ষুদ্র, খুব ছোটো।

কুঁচা—[স. কুঞ্চিত>] ক্রিবি. কুঞ্চিত করা।

কুচা—[ফা.] বিণ. খুব ছোটো করে কাটা হয়েছে এমন।

কুঁচানো—[বা.] ক্রিবি. কুঞ্চিত করা। বিণ. কুঞ্চিত।

কুচানো—[বা.] ক্রিবি. কুচিকুচি করে কাটা। বিণ. কুচি করে কাটা হয়েছে এমন।

কুঁচি—[স. কূর্চ্চিকা>] বি. পরিধেয় বস্ত্র বা পর্দার পাট করা অংশ।

কুঁচি—[স. কুর্চিকা>] বি. পশুর মোটা লোম, শলাকাগুচ্ছ, বুরুশ, ছোটো টুকরো।

কুচি—[ফা. কুচা>] বিণ. খুব ছোটো করে কাটা হয়েছে এমন।

বি. ছোটো টুকরো।

কুঁজ—[স. কুব্জ>] বি. মেরুদণ্ডের দৃঢ়তা হ্রাস পাওয়ার ফলে পিঠের বক্রতা ও স্ফীতি।

কুজ—[স. কু + জন্ + অ] বি. মঙ্গলগ্রহ, পুরাণোক্ত অসুরবিশেষ।

কুঁজা—[স. কুব্জ>] বিণ. পিঠ বাঁকা বা ফোলা এমন। বি. কুঁজবিশিষ্ট ব্যক্তি।

কুজা—[ফা.] বি. মাটির তৈরি সরুগলা জলপাত্র, সোরাই।

কুঁড়—[স. কুণ্ড>] বি. গর্ত, জলাশয়, কুণ্ড; স্তুপ, গাদা।

কুড়—[স. কুট>] বি. স্তুপ, গাদা; আবর্জনা ফেলার স্থান।

কুড়—[স. কুষ্ঠ>] বি. কুষ্ঠরোগ।

কুঁড়া—[স. কণা>] বি. ধানের খোসার নিচের পাতলা আবরণ।

কুঁড়া—[স. খনন>] ক্রিবি. খনন করা, খোঁড়া। বিণ. খননকৃত।

কুড়া—[দেশি.] ক্রিবি. ঝাঁট দেওয়া, জড়ো করা, পরিত্যক্ত জিনিস তুলে নেওয়া।

কুড়া—[স. কুড়ব>] ভূমির পরিমাপবিশেষ; ২০ কাঠা বা ১ বিঘা পরিমাণ।

কুড়া—[স. কুটির>] কুঁড়েঘর।

কুঁড়ি—[দেশি.] বি. কোরক, মুকুল, কলিকা।

কুঁড়ি—[স. কুণ্ডিকা>] বি. মাটি, পাথর বা কাঠের গামলাজাতীয় পাত্র।

কুড়ি—[বা.] বি. ২০ সংখ্যা। বিণ. ২০ সংখ্যক।

কুড়ি—[স. কুষ্ঠী>] বি. কুষ্ঠরোগ।

কোঁক—[স. কুক্ষি>] বি. উদর, পেট, গর্ভ; উদরের পার্শ্বদেশ, কুক্ষি।

কোক—[স. কুক্ + অ] বি. চখা, চক্রবাক, বুনো খেজুর গাছ, নেকড়ে বাঘ, বুনো কুকুর, ভেক, বিষ্ণু।

কোক—[ই.] জ্বালানি বিশেষ, coke।

কোঁচ—[দেশি.] বি. মাছ শিকারের জন্য ব্যবহূত লোহার শলাকাযুক্ত বর্শা।

কোঁচ—[স. কুঞ্চিত] বি. কুঞ্চনের ভাব।

কোঁচ—[স. ক্রৌঞ্চ] বি. মত্স্যাশী বকের প্রজাতিবিশেষ, ক্রৌঞ্চ।

কোচ—[স. কুচ্ + অ] বি. ধীবর জাতিবিশেষ।

কোঁদন—[স. কুর্দন>] বি. কুর্দন।

কোদন—[বা.] বি. আস্ফাালন, কুর্দন, লম্ফন।

সহায়ক গ্রন্থ :

বাংলা একাডেমি আধুনিক বাংলা অভিধান।

বন্ধুরা, আরও জানতে চোখ রাখো ফেসবুকের ‘বাংলা বানানের নিয়মকানুন’ গ্রুপে এবং ‘দৈনিক ইত্তেফাক’ পত্রিকার অনুশীলন পাতায়।

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
আরও
আরও
x