বইমেলায় যাওয়ার আগে জেনে নিন নতুন নিয়ম 

বইমেলায় যাওয়ার আগে জেনে নিন নতুন নিয়ম 
স্বাস্থ্যবিধি মেনে প্রবেশ পথে শরীরের তাপমাত্রা দেখেই অনুমতি মিলছে মেলায় প্রবেশের। ছবি: ইত্তেফাক

করোনা পরিস্থিতির কারণে ফেব্রুয়ারির একুশের বইমেলা এবার পিছিয়ে শুরু হলো মার্চে। তাই এবার অবকাঠামো থেকে শুরু করে বইমেলা আগত সকলের জন্য থাকছে বাড়তি নিরাপত্তা। স্বাস্থ্যবিধি মেনে প্রবেশ পথে শরীরের তাপমাত্রা দেখেই অনুমতি মিলছে মেলায় প্রবেশের।

সার্বক্ষণিক নিরাপত্তায় থাকছে পুলিশ, র‍্যাব, আনসার সদস্যদের আলাদা টিম। এ ছাড়া আগুন নির্বাপনের জন্য রয়েছে ফায়ার সার্ভিসের আলাদা স্টেশন। এবার বেড়েছে খাবারের ক্যান্টিনও। নতুন প্রবেশ পথও সংযুক্ত হয়েছে। ফলে সব মিলিয়ে বাড়তি প্রস্তুতি নিয়ে আসতে হবে এবারের মেলায়।

বইমেলার দ্বিতীয় মেলা ঘুরে মেলার কর্তৃপক্ষে এবং আইনশৃংখলা বাহিনীর সঙ্গে সরাসরি কথা বলে এসব তথ্য জানা গেছে।

সঙ্গে মাস্ক রাখছেন তো?

মেলায় প্রবেশ করতেই আপনার প্রথমে মানতে হবে স্বাস্থ্যবিধি। শরীরের তাপমাত্র ঠিক থাকলেই মিলবে প্রবেশের অনুমতি। বাংলা একাডেমি প্রাঙ্গণ এবং নতুন সংযোগ সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের পূর্ব প্রান্তে নতুন একটি প্রবেশ পথ করা হয়েছে। সবমিলে সোহরাওয়ার্দীতে ৩টি প্রবেশ পথ ও ৩টি বাহির পথ রয়েছে। তিনটি প্রধান গেইটে

মোট ১৮টি প্রবেশ পথ রয়েছে প্রতিটি প্রবেশ পথে স্বাস্থ্যবিধি মেনে হ্যান্ড স্যানেটাইজ হয়ে তাপমাত্রা মেপে মেলায় প্রবেশ করতে হচ্ছে। একইভাবে নিয়ম মেনে ৬টি পথ দিয়ে মেলা থেকে বাহির হতে হবে।

মেলা ঘুরে তৃষ্ণা পেয়েছে বা কিছু খেতে চান কোথায় যাবেন?

এবারের মেলায় রয়েছে তৃষ্ণার্তদের জন্য পানি প্রাণের সুবিধা ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ, ঢাকা ওয়াসা এবং বাংলা একাডেমির নিজস্ব ব্যবস্থাপনায় রয়েছে মেলার চারদিকে পানির সুব্যবস্থা। এ ছাড়াও মেলার রেস্ট রুমে আপনি চাইলে পানি পান করতে পারবেন। বাংলা একাডেমির মূল ক্যানটিনের সঙ্গে থাকছে আর দুইটি ক্যান্টিন। এছাড়া বাংলা একাডেমি প্রাঙ্গণ এবং সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে থাকছে আরও আলদা ফাস্ট ফুডের দোকান।

মেলায় অনাকাঙ্ক্ষিত কোন ঘটনার সম্মুখীন হচ্ছেন কার কাছে যাবেন?

মেলায় পুলিশ, র‍্যাব, আনসার, ফায়ার সার্ভিসের আলদা আলদা স্টেশন রয়েছে। মেলায় ৮ ঘন্টা করে ২৪ ঘন্টা প্রতি শিফটে অফিসারসহ পুলিশের ৩০০জন সদস্য নিরাপত্তায় নিয়োজিত থাকছেন। বিশেষভাবে নিরাপত্তা দিচ্ছে র‍্যাবের একটি বিশেষ টিমও। রয়েছে ৫৫জনের বেশী আনসার সদস্য। থাকছে বিজিবি ও গোয়েন্দা সংস্থার আলাদা আলদা টিম। মেলার স্টল মালিক, প্রকাশক এবং আগত সকলদের নিরাপত্তা দিচ্ছেন তারা। এছাড়াও মেলায় কোন আগুনের সূত্রপাত হলে সাথে সাথে কাজ করতে ২৪ ঘন্টা প্রস্তুত রয়েছে ফায়ার সার্ভিসের বড় একটি দল।

প্রয়োজনে যেতে পারেন তথ্য কেন্দ্রে

মেলার স্টল বিন্যাস কিংবা যেকোন তথ্য পেতে আপনাকে যোগাযোগ করতে হবে বাংলা একাডেমির নিজস্ব তথ্য কেন্দ্রে বাংলা একাডেমির মূল প্রাঙ্গণ এবং

সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে চারদিকে দেখা মিলবে এসব তথ্য কেন্দ্রের।

বৃহস্পতিবার (১৯ মার্চ) প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা রাজধানীর বাংলা একাডেমি চত্বর এবং সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে মাসব্যাপী অমর একুশের বইমেলা উদ্বোধন করেন। প্রধানমন্ত্রী ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে গণভবন থেকে বাংলা একাডেমির মূল অনুষ্ঠানে ভার্চুয়ালি অংশগ্রহণ করেন। এবারের মেলার মূল প্রতিপাদ্য ‘বাংলাদেশের জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী’। ১৮ই মার্চ শুরু হয়ে মেলা চলবে ১৪ই এপ্রিল ২০২১ পর্যন্ত।

ইত্তেফাক/এসজেড

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
আরও
আরও
x