বইমেলায় শব্দের ঘ্রাণ খুঁজে পাওয়া যায়!

বইমেলায় শব্দের ঘ্রাণ খুঁজে পাওয়া যায়!
শানারেই দেবী শানু। ছবি: সংগৃহীত

মলাটবন্দি বইয়ের ঘ্রাণ সেই শৈশব থেকেই খুব টানত আমাকে। এর জন্য অবশ্য আমার বাবা এ কে শেরামের কৃতিত্বই বেশি। তিনি নিজে কবি ও মনিপুরী গবেষক ছিলেন। আমার কাছে মনে হয় পরিবারই পারে শৈশবেই শিশুদের মানবিক বোধগুলো তৈরি করে দিতে।

খুব বেশি বই পড়ুয়া যে ছিলাম তা কিন্তু না, তবে শৈশব থেকেই বাবার সান্নিধ্যে শব্দের জগতে বেড়ে ওঠা। তাই হয়তো এখন বড় বেলায় এসেও শব্দের প্রতি প্রেমটা দিন দিন একটু একটু করে বাড়ছে।

মনে পড়ে ছেলেবেলার সিলেটের বইমেলার কথা। ফেব্রুয়ারিতে সিলেটের বইমেলা অনুষ্ঠিত হতো সিলেটের রিকাবীবাজারের জিমনেশিয়ামে। সেখানে আমার বাবার গড়া সংগঠন বাংলাদেশ মনিপুরী সাহিত্য সংসদের একটা স্টলও থাকত। প্রচণ্ড উচ্ছ্বাস নিয়ে বাবার সঙ্গে মেলায় যেতাম আমরা দুই ভাইবোন।

ছবি: ফোকাস বাংলা

বাবার লেখা বইগুলো স্টলে থাকত বিক্রির জন্য। মেলার বিভিন্ন স্টলে স্টলে ঘুরতাম বাবার সঙ্গে। বাবা আমাদের পছন্দের বইগুলো কিনে দিতেন। শত মনীষীর কথা, পৃথিবীর রহস্য, ঈশপের গল্প, এমন অনেক জ্ঞানমূলক বই কেনার জন্য উদ্বুদ্ধ করতেন বাবা।

এখন অমর একুশে বইমেলায় যখন লেখক হিসেবে পা রাখি তখন মনে হয় শৈশবের বইয়ের প্রতি ভালোবাসা, নতুন বইয়ের গন্ধ আমার অবচেতনে রয়ে গেছে। যা আমার ভেতরে লেখক সত্তাকে জাগিয়ে তুলেছে। আমার কাছে বইমেলা মানেই প্রাণের মেলা। পাঠক, লেখক, প্রকাশকদের এক প্রাণবন্ত মিলনমেলা। বইমেলায় এলে শব্দের ঘ্রাণ খুঁজে পাওয়া যায়! লেখক :জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারজয়ী অভিনেত্রী ও কবি।

ইত্তেফাক/এএএম

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
আরও
আরও
x