বাংলাদেশে অবৈধভাবে রয়েছেন ১১ হাজার বিদেশি

প্রকাশ : ০৭ নভেম্বর ২০১৯, ১৭:০৬ | অনলাইন সংস্করণ

  অনলাইন ডেস্ক

বক্তব্য রাখছেন আইনশৃঙ্খলা-সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির সভাপতি ও মুক্তিযুদ্ধ বিষয়কমন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক। ছবি : সংগৃহীত

আইনশৃঙ্খলা-সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির সভাপতি ও মুক্তিযুদ্ধ বিষয়কমন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক বলেছেন, বাংলাদেশে ১১ হাজার বিদেশি নাগরিক অবৈধভাবে রয়েছেন। অবৈধভাবে বাংলাদেশে বসবাস করা বিদেশিরা নানা অপরাধের সঙ্গে যুক্ত হয়ে পড়ছে। এ কারণে তাদের অনেকেই গ্রেফতার হয়ে এখন কারাগারে আছে।

 

বৃহস্পতিবার স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে আইনশৃঙ্খলা-সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির সভা শেষে তিনি সাংবাদিকদের কাছে এ সব কথা বলেন।

 

মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী বলেন, ‘অনেক বিদেশি নাগরিক এ দেশের পাসপোর্ট নিয়ে আসে। পরে ভিসার মেয়াদ শেষ হলে অনেকেই যান না, থেকে যান। তারা মেয়াদোত্তীর্ণ অবস্থায় আছেন। আমাদের গত সভায় সিদ্ধান্ত হয়েছিল তাদের চিহ্নিত করা। অত্যন্ত সফলতার সঙ্গে আমাদের গোয়েন্দা সংস্থা তাদের চিহ্নিত করেছে। সরকারি অর্থে তাদের দেশে ফেরত পাঠানো হবে।

 

এরা কোন দেশের- এ বিষয়ে তিনি বলেন, বিভিন্ন দেশের, বিশেষ করে আফ্রিকার দেশগুলোরই বেশি; নাইজেরিয়া, তানজেনিয়া- এই সব দেশেরই নাগরিক।

 

মূলত ক্রিমিনাল টাইপের লোকই থেকে যায় জানিয়ে মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী বলেন, ‘ভালো নাগরিকরা তো থাকে না। আমরা চিন্তা করেছি সরকারের পয়সা দিয়েই তাদের দেশে ফেরত পাঠাব।’

 

এ সময় পাশে বসা স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেন, ‘যারা অবৈধভাবে এখানে অবস্থান করছেন, এরা ভিসা নিয়ে ঠিকই ঢুকেছিলেন। তাদের ভিসার মেয়াদ শেষ হয়ে গেছে কিংবা তারা অবৈধভাবে রয়েছে কিংবা কোনো ক্রাইমে জড়িত হয়েছেন। তারাই আমাদের জেলখানায় রয়েছেন। জেলখানায় তাদের মেয়াদ শেষ হলেও দূতাবাসগুলোতে যোগাযোগ করার পরও নিয়ে যাচ্ছে না।  

 

মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রীর সভাপতিত্বে সভায় আইনমন্ত্রী আনিসুল হক, বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি, জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন, নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ, সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদসহ অন্য কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

 

ইত্তেফাক/ইউবি