অপু-মামুনের কাণ্ডে লাইকির নিন্দা, বাতিল হলো তাদের আইডি

অপু-মামুনের কাণ্ডে লাইকির নিন্দা, বাতিল হলো তাদের আইডি
ইয়াছিন আরাফাত অপু ও প্রিন্স মামুন। ছবি: ফেসবুক

তরুণদের বিভ্রান্ত করার মতো অপু ও মামুনের বিতর্কিত কর্মকাণ্ডের নিন্দা জানিয়েছে বিশ্বব্যাপী জনপ্রিয় ভিডিও শেয়ার অ্যাপ লাইকি। একই সঙ্গে তাদের অ্যাকাউন্টও বাতিল করে দিয়েছে সিঙ্গাপুর ভিত্তিক এই প্রতিষ্ঠানটি।

মঙ্গলবার বিকালে লাইকি বাংলাদেশের ভেরিফাইড ফেসবুক পেজে এই তথ্য জানানো হয়।

লাইকি জানায়, সম্প্রতি বাংলাদেশে কয়েকজন তরুণের বিরুদ্ধে বিভ্রান্ত এবং সহিংসতা সৃষ্টির অভিযোগ উঠেছে। আমরা এই ধরনের আচরণের নিন্দা জানাই।

একই সঙ্গে বাংলাদেশ কর্তৃপক্ষের অনুরোধে আমরা চারটি আইডি তত্ক্ষণিত বাতিল করেছি। এর মধ্যে ২৯৯০৮০০৬১ - প্রিন্সম্যামন১৪৩ এবং ৩২৬০৯৬৮২৪ - ইয়াছিন আরাফাত অপুর আইডি রয়েছে। তাদের আইডিগুলোর বিষয়ে আমরা বাংলাদেশের অথরিটির সঙ্গে সমন্বয় করে কাজ করছি।

লাইকি আরো জানায়, স্থানীয় আইন এবং স্থানীয় সংস্কৃতির প্রতি শ্রদ্ধার বিষয়টি সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার দেয় লাইকি। লাইকি এমন একটি প্ল্যাটফর্ম যা সৃজনশীলতাকে অনুপ্রাণিত করে।

এদিকে রাস্তায় একজন সাধারণ নাগরিককে মারধর করে বর্তমানে গ্রেফতার হয়ে কারাগারে রয়েছেন ইয়াছিন আরাফাত অপু।

অপু (২০) নোয়াখালীর সোনাইমুড়ীর বাসিন্দা শহীদ ইসলামের ছেলে। সে টিকটকেও বিতর্কিত ভিডিও পোস্ট করে থাকে। 'অপু ভাই' নামে পরিচিত সে।

উত্তরা পূর্ব থানা সূত্রে জানা যায়, সোমবার সন্ধ্যায় রাজধানীর উত্তরায় আলাউল এভিনিউ দিয়ে গাড়ি চালিয়ে যাচ্ছিলেন প্রকৌশলী মেহেদি হাসান রবিন।

সেখানে সড়ক আটকে অপু ও তার সহযোগীরা টিকটক বানাচ্ছিল। এ সময় তাদের রাস্তা থেকে সরে যেতে গাড়ির হর্ন বাজান রবিন। এতেই ক্ষিপ্ত হয়ে অপু ও তার সহযোগীরা রবিনসহ তার বন্ধুদের মারধর করে। তাদের মাথা ফাটিয়ে দেওয়া হয়।

এ ঘটনায় রবিনের বাবা থানায় মামলা করেন। পরে অপুকে গ্রেফতার করে পুলিশ। গ্রেফতারের সময় বিতর্কিত এই টিকটকারকে গণপিটুনির ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে।

অপুকে গ্রেফতারের খবর ছড়িয়ে পড়লে অনেক সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহারকারী সন্তুষ্টি প্রকাশ করেন।

তারা বলেন, টিকটকে নানা ধরণের বিকৃত ভিডিও তৈরি করে তরুণ সমাজকে নষ্ট করছেন অপু। তার বিরুদ্ধে নতুন ‘গ্যাং কালচার’ তৈরির অভিযোগ রয়েছে।

ইত্তেফাক/জেডএইচ

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত