নার্সদের প্রত্যাশিত বকেয়া সিলেকশন গ্রেড বাস্তবায়ন

নার্সদের প্রত্যাশিত বকেয়া সিলেকশন গ্রেড বাস্তবায়ন
নার্সিং ও মিডওয়াইফারি অধিদপ্তরের মহাপরিচালক সিদ্দিকা আক্তার ও পরিচালক (প্রশাসন ও শিক্ষা) আবদুল হাই পিএএকে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানাচ্ছেন বিএনএ ও স্বানাপ নেতারা। ছবি: সংগৃহীত

সিনিয়র স্টাফ নার্সদের দীর্ঘদিনের বহুল প্রত্যাশিত বকেয়া সিলেকশন গ্রেড বাস্তবায়নের আদেশ প্রকাশ করা হয়েছে।

১০ জানুয়ারি স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের নার্সিং সেবা -১ শাখার সিনিয়র সহকারী সচিব মো. মেজবাউল হোসেন স্বাক্ষরিত প্রজ্ঞাপনে এটি প্রকাশ করা হয়। প্রাপ্ত বকেয়া সিলেকশন গ্রেডটি ২০১৫ সালের ১২ মে থেকে প্রাপ্য হবেন মর্মে প্রজ্ঞাপনে উল্লেখ করা হয়।

মঙ্গলবার (১২ জানুয়ারি) বিকালে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বাংলাদেশ নার্সেস এসোসিয়েশন–ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল শাখার সভাপতি মো. কামাল হোসেন পাটওয়ারী নার্সদের বহুল প্রতীক্ষিত এ সিলেকশন গ্রেড বাস্তবায়ন হওয়ায় কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। এছাড়া সর্বস্তরের নার্সিং কর্মকর্তারাও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও স্বাস্থ্যমন্ত্রী এবং বর্তমান নার্সিং প্রশাসনকে অভিনন্দন জানান।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ২০১২ সালে সিনিয়র স্টাফ নার্স পদটি ২য় শ্রেণির পদমর্যাদাপ্রাপ্ত হলে জাতীয় বেতন স্কেল-২০১৫ ঘোষিত হওয়ার পূর্ব পর্যন্ত প্রায় সাড়ে তিন হাজার নার্সিং কর্মকর্তাগণের সিলেকশন গ্রেড প্রাপ্য হোন।

২০২০ সালে নার্সিং ও মিডওয়াইফারি অধিদপ্তরের মহাপরিচালক সিদ্দিকা আক্তার এবং পরিচালক (প্রশাসন, শিক্ষা ও প্রশিক্ষণ) আবদুল হাই পিএএ পদায়ন পাওয়ার পর বকেয়া সিলেকশন গ্রেড নিয়ে কাজ শুরু করেন ও তাদের কাজের ক্ষেত্রে সফলতা আসে। একই সালে ডিপিসির মাধ্যমে সকল বকেয়া গ্রেড প্রদানের অনুমতি গৃহীত হয় এবং নতুন বছরের শুরুতেই বকেয়া গ্রেড প্রদানের আদেশ প্রকাশিত হলো।

প্রকাশিত ২৯৯৮ জন ছাড়াও প্রাপ্য অন্যান্য নার্সিং কর্মকর্তাগণ সিলেকশন গ্রেড আদেশ দ্রুতই প্রকাশিত হবে বলে কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে।

অপরদিকে স্বাধীনতা নার্সেস পরিষদের মহাসচিব মোহাম্মদ ইকবাল হোসেন সবুজ জানান, স্বাস্থ্য সচিব, মন্ত্রণালয়ের সংশ্লিষ্ট বিভাগ, ডিজিএনএম’র বর্তমান প্রশাসন ও সিলেকশন গ্রেড বাস্তবায়ন কমিটির প্রতি ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।

ইত্তেফাক/জেডএইচ

Nogod
  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত