ডিএনসিসির কাছে ১৭২ রানে হারলো ভারতীয় দূতাবাস

ডিএনসিসির কাছে ১৭২ রানে হারলো ভারতীয় দূতাবাস
ডিএনসিসির ক্রিকেট দলের সঙ্গে ভারতীয় হাইকমিশনার। ছবি: সংগৃহীত

ডিএনসিসি আতিকুল ইসলাম বলেছেন, ‘ডিএনসিসি এলাকায় দশটি খেলার মাঠ আমরা করে দিচ্ছি। যাদের মধ্যে কিছু কিছু মাঠ আন্তর্জাতিক মানের হবে। মাঠে বর্ষায় যাতে খেলা যায়, এজন্য পানি নিষ্কাশনের ভালো ব্যবস্থা রয়েছে। অন্তর্ভুক্তিমূলক শহর করাই আমাদের লক্ষ্য।’

শনিবার ( ২৩ জানুয়ারি) সকাল সাড়ে নয়টায় রাজধানীর মোহাম্মদপুরের ইকবাল রোডে উদয়াচল পার্ক ও খেলার মাঠ উদ্বোধন করা হয়েছে। উদ্বোধন শেষে ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের (ডিএনসিসি) বনাম বাংলাদেশে নিযুক্ত ভারতীয় দূতাবাসের মধ্যে এক প্রীতি ক্রিকেট ম্যাচ অনুষ্ঠিত হয়।

মেয়র শৈশবের স্মৃতিচারণ করে বলেন, ‘আমরা যখন ছোট ছিলাম, ক্রিকেট খেলার জন্য আশেপাশের ঘরে-ঘরে গিয়ে চাঁদা তুলে ব্যাট কিনেছি। তবে তখন এক ধরনের সামাজিক বন্ধন ছিল। এই সামাজিক বন্ধন দিন দিন হারিয়ে যাচ্ছে। আমরা এখন চার দেয়ালের মধ্যে বন্দী হয়ে গিয়েছি। আমাদের সামাজিকতা কমে যাচ্ছে। আমাদের সামাজিক বন্ধন আরো দৃঢ় করতে হবে। আমরা যেন পাড়া উৎসব করতে পারি, খেলাধুলা করতে পারি। এর মাধ্যমে সামাজিক বন্ধন দৃঢ় হয়। এজন্য আমি এই মাঠটি এই এলাকার জনগণকে দিতে চাই। এখানে ছোট-বড়, ধনী-দরিদ্র, নারী-পুরুষ, সকল শ্রেণী-পেশার মানুষ এসে খেলতে পারবেন। এই মাঠ সকলের।’

মেয়রের মতে, মুক্তিযোদ্ধারা এদেশের জন্য প্রাণ দিয়েছেন। আমাদের প্রাণ দিতে হবে না, খেলার-মাঠ যেন আমরা দখল না করি, খাল যেন ময়লা না করি, যেন অবৈধভাবে দখল না করি। মোহাম্মদপুরে মোট আটটি মাঠ হবে। ডিএনসিসির কোথাও খাস জমি থাকলে সেখানে খেলার মাঠ তৈরি করা হবে। যত বেশি খেলার মাঠ হবে, আমাদের শিশুরাও তত বেশি খেলতে পারবেন।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বাংলাদেশে নিযুক্ত ভারতের রাষ্ট্রদূত বিক্রম কুমার দোরাইস্বামী, বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন এমপি, এবং স্থানীয় সংসদ সদস্য মোঃ সাদেক খান এমপি বক্তব্য রাখেন।

উদ্বোধন অনুষ্ঠান শেষে ডিএনসিসি বনাম ভারতীয় হাইকমিশনের মধ্যে উদয়াচল মাঠে এক প্রীতি ক্রিকেট ম্যাচ অনুষ্ঠিত হয়। টুয়েন্টি-টুয়েন্টি এই ম্যাচে ডিএনসিসি ১৭২ রানে ভারতীয় হাইকমিশনকে হারায়। প্রথমে ব্যাট করতে নেমে ডিএনসিসি ৫ উইকেট হারিয়ে ৩০০ রান করে। ডিএনসিসি দলের ইমন ১০৫ রান এবং আল আমিন ১০১ রান করে। জবাবে ভারতীয় হাইকমিশন ১৩ ওভার ব্যাট করে ১২৮ রান করে অল আউট হয়ে যায়।

উদয়াচল পার্ক উদ্বোধন:

নগরবাসীর সামাজিক ও সাংস্কৃতিক প্রেক্ষাপটের সাথে সামঞ্জস্যপূর্ণ, বসবাস উপযোগী, কার্যকর ও টেকসই অবকাঠামো নির্মাণের মাধ্যমে পরিবেশ উন্নয়ন ও আধুনিকায়নের লক্ষ্যে ‘ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের উন্মুক্ত স্থানসমূহের আধুনিকায়ন উন্নয়ন ও সবুজায়ন’ শীর্ষক প্রকল্পটি ২০১৭ সালে হাতে নেয়া হয়। সম্পূর্ণ জিওবি অর্থায়নে বাস্তবায়নাধীন প্রকল্পের প্রকল্প ব্যয় ২৭৯ কোটি ৫০ লক্ষ টাকা। যার সংশোধিত/প্রস্তাবিত ব্যয় ২০৬ কোটি ৪২ লক্ষ টাকা। প্রকল্পটি জুন-২০২১ মাসে সমাপ্তির জন্য নির্ধারিত রয়েছে।

প্রকল্পের আওতায়:

ক) ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের ১৮টি পার্ক ও ৪টি খেলার মাঠের উন্নয়ন ও আধুনিকায়ন;

খ) ২৩টি বিদ্যমান পাবলিক টয়লেট উন্নয়ন এবং আধুনিক, স্বাস্থ্যসম্মত ও ব্যবহার উপযোগী নতুন ৫০টি পাবলিক টয়লেট নির্মাণ;

গ) পর্যাপ্ত খোলা এবং সবুজ স্থান রেখে ২টি কবরস্থান উন্নয়নসহ অন্যান্য কাজ বাস্তবায়নাধীন আছে।

প্রকল্পের আওতায় ইতোমধ্যে ৪টি পার্ক ও ১টি খেলার মাঠ এবং ২৭টি পাবলিক টয়লেটের কাজ সম্পন্ন হয়েছে। এর মধ্যে উদয়াচল পার্ক ও খেলার মাঠের উন্নয়ন কাজ শেষে আজ উদ্বোধন হতে যাচ্ছে।

ইত্তেফাক/এসআই

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
আরও
আরও
x