ট্রাকের ধাক্কায় দুমড়ে মুচড়ে গেলো সিএনজি, নানি-নাতনি নিহত

ট্রাকের ধাক্কায় দুমড়ে মুচড়ে গেলো সিএনজি, নানি-নাতনি নিহত
প্রতীকী ছবি।

রাজধানীর রূপনগর বেড়িবাঁধ এলাকায় ট্রাকের ধাক্কায় সিএনজি আরোহী নানি-নাতনি নিহত হয়েছে। নিহতরা হলেন- নানি সালমা বেগম (৫৫) এবং নাতনি রিন্তা আক্তার (১১)।

এসময় আহত হয়েছেন রিন্তার মামা সোহেল রানা ওরফে সালেক হোসেন (২৪) ও বড় বোন এলিনা জাহান রিমা (১৩)। সোমবার (১ মার্চ) ভোর ৬টার দিকে রূপনগর বেড়িবাঁধ পাম্প হাউজ সংলগ্ন রাস্তায় এই দুর্ঘটনা ঘটে।

রূপনগর থানার এসআই মো. লোকমান হোসেন জানান, ভোরে একটি সিএনজিতে করে আশুলিয়ায় বেড়াতে যাচ্ছিলো একই পরিবারের চারজন। এসময় বেড়িবাঁধ একটি ট্রাক যাত্রীবাহী সিএনজিটিকে ধাক্কা দেয়। এতে সিএনজিতে থাকা রিন্তা ঘটনাস্থলেই মারা যায়। আর ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে দুপুর ১২টার দিকে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার নানি সালমা বেগম মারা যান। আহত হয় বোন ও সিএনজি চালক মামা।

তিনি বলেন, খবর পেয়ে রিন্তার মরদেহটি উদ্ধার করে শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। আর সালমার মৃতদেহ ঢাকা মেডিকেলের মর্গে আছে। আহত রিমা ও সালেককে পঙ্গু হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। ঘাতক ট্রাকটি পালিয়ে গেছে। সেটি শনাক্তের চেষ্টা চলছে।

এদিকে ঢামেক হাসপাতালে মৃত রিন্তার খালা শিউলি আক্তার জানান, তাদের বাড়ি লালমনিরহাটের কালীগঞ্জ উপজেলার কাকিনা গ্রামে। তিনি থাকেন আশুলিয়ায়। আর তার মা সালমা বেগম ও দুই বোন রিমা ও রিন্তা গ্রামে থাকেন। এলাকার বানিনগর সরকারি প্রাইমারি স্কুলের ২য় শ্রেণিতে পড়ত রিন্তা। তিন দিন আগেই নানির সঙ্গে দুই বোন আদাবর ১০ নম্বর বালুর মাঠে নানা আবুল হোসেনের কাছে বেড়াতে আসেন। সেখান থেকে সোমবার ভোরে মামা সালেকের সিএনজিতে করে আশুলিয়া খালা শিউলির বাসায় যাচ্ছিলো। পথে রূপনগর বেড়িবাঁধে দুর্ঘটনার ঘটে।

তিনি আরও জানান, রিমাকে পঙ্গু হাসপাতাল থেকে চিকিৎসা দিয়ে বাসায় নিয়ে যাওয়া হয়েছে। আর সালেক সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালে ভর্তি আছেন।

শিউলি জানায়, রিন্তার মা দুলালি বেগম গত বছরের নভেম্বরে মারা যায়। তার বাবা এরশাদুল ইসলাম গ্রামে থাকেন। একেক সময় একেক পেশার কাজ করেন তিনি। তিন বোনের মধ্যে সবার ছোট রিন্তা।

ইত্তেফাক/এমএএম

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
আরও
আরও
x