মোড়ে মোড়ে চেকপোস্ট, জরুরি না হলে বাসায় ফেরত

মোড়ে মোড়ে চেকপোস্ট, জরুরি না হলে বাসায় ফেরত
ছবি: ইত্তেফাক

করোনাভাইরাস পরিস্থিতির অবনতির কারণে ১৪ এপ্রিল সকাল ৬টা থেকে ২১ এপ্রিল মধ্যরাত পর্যন্ত আট দিনের জন্য নতুন বিধিনিষেধ আরোপ করে প্রজ্ঞাপন জারি করেছে সরকার।

আজ বুধবার (১৪ এপ্রিল) সকাল থেকে রাজধানীর প্রতিটি মোড়ে বসানো হয়েছে চেকপোস্ট। কারণ ছাড়া কিংবা জরুরি প্রয়োজনে যারা বের হচ্ছেন এবং মুভমেন্ট পাস বা কোনো অনুমতিপত্র না থাকলে তাদের ফেরতও পাঠানো হচ্ছে। সকাল ১১টায় ফার্মগেট মোড়ে দেখা যায়, যাত্রাপথে প্রতিটি গাড়ি মোটরসাইকেল চেক করা হচ্ছে। যারা বের হয়েছেন যথাযথ কারণ না দেখাতে পারলে তাদের কাউকেও আর সামনেও যেতে দেওয়া হচ্ছে না। একই সঙ্গে নির্দিষ্ট পরিমান অর্থদণ্ডও করতে দেখা গেছে। নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও একাধিক পুলিশ কর্মকর্তা সরাসরি উপস্থিত থেকে এসব কাজ পরিচালনা করেছেন।

একজন মোটরসাইকেল আরোহী রনিচন্দ্র দত্ত ফার্মগেট চেকপোস্ট এসে আটকে পড়েন। তাকে আর যেতে দেওয়া হচ্ছে না। সেখানে কথা এ ব্যাক্তির সঙ্গে জানতে চাইলে বলেন, আমি মিরপুর থেকে আসছি। একটি বিশেষ কাজে কেরানীগঞ্জ যাচ্ছিলাম। তারা আমার কাছে মুভমেন্ট পাস চাচ্ছে। আমি সেটা সম্পর্কে অবগত নই এখন যেতে দিচ্ছে না। বাসায় ফিরে যেতে হচ্ছে। সেই সঙ্গে ৫০০ টাকাও জরিমানা করেছে আমার।

ফার্মগেট মোড়ে প্রতিটি মোটরসাইকেল চেক করছিলেন তেজগাঁও থানার অফিসার ইনচার্জ সালাউদ্দিন। তিনি বলেন, অনেকে জেনে শুনে বের হয়েছে। দেখা গেছে, কেন বের হয়েছে? তাদের কাছে জানতে চাইলে যথাযথ কারণ দেখাতে পারছে না। অনেকেই মুভমেন্ট পাস সম্পর্কে জেনেও এইটা নিয়ে আসেনি। তাই অনিয়ম হলে আমরা ফিরিয়ে দিচ্ছি।

শাহবাগ মোড়েও বিনা কারণে চলাচলের ওপর পুলিশকে কঠোর হতে দেখা গেছে। সালমান হোসেন ওষুধ কোম্পানিতে চাকরি করেন। না জেনে মুভমেন্ট পাস ছাড়াই বের হয়েছেন। শাহভাগ এসে গাড়ি নিয়ে আটকে পড়েছে। চেক করে কোনো কাগজপত্র না পেয়ে তাকেও যেতে অনুমতি দেওয়া হয়নি। তাকেও বলা হয়েছে, জরুরি প্রয়োজনে নিয়ম মেনে সড়কে নামতে হবে। তিনি বলেন, আর সামনে যাওয়া যাবে না বলেছে, তাই বাসায় ফিরে যাচ্ছি।

এভাবে রাজধানীর প্রতিটি মোড়ে মোড়ে শতশত গাড়ি ও পথচারীকে বাসায় ফেরত পাঠানো হয়েছে। বিজয়সরণী, খামারবাড়ি মোড় ও মহাখালীতে একই চিত্র দেখা গেছে।

তেজগাঁও জোনের সহকারী পুলিশ কমিশনার রুবায়েত জামান দৈনিক ইত্তেফাক অনলাইনকে বলেন, আজ সকাল থেকে রাজধানীর সব পয়েন্টে চেকপোস্ট বসানো হয়েছে। তেজগাঁও জোনের অধীনে ফার্মগেট, জাহাঙ্গীর গেট ও কাওরান বাজার এ তিনটি পয়েন্টে চেক করা হচ্ছে। এটা চলবে রাত ১০টা পর্যন্ত। যারা বের হচ্ছেন যদি যুক্তিক মনে হচ্ছে তাহলে তাদেরকে ছেড়ে দেওয়া হচ্ছে। আর যারা না বুঝে বের হয়েছেন প্রথম বারের মতো ছাড় দেওয়া হচ্ছে। কিছু ক্ষেত্রে পরবর্তীতে এইরকম হলে ছাড় নয়, তাও বুঝিয়ে দেওয়া হচ্ছে। এছাড়া, যারা একেবারে মানছে না দেখা গেছে, জেনে শুনে এসেছে তাদেরকে আর যেতে দেওয়া হচ্ছে না। বাসায় ফেরত পাঠানো হচ্ছে। এবার আর ঢিলাঢালা নয়। কড়াকড়িভাবে নজরদারি করা হচ্ছে। অনিয়ম হলে কাউকে ছাড় দেওয়া হচ্ছে না।

ঢাকা জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট কেএম ইসমাম ইত্তেফাক অনলাইনকে বলেন, আমরা প্রতিটি গাড়ি চেক করছি। অনেকের কাছে বের হওয়ার কারণ জিজ্ঞাস করলে যুক্তিক কারণ দেখাতে পারেনি। যারা দেখাতে পারেনি তাদেরকে আইন অনুযায়ী জরিমানা করা হচ্ছে।

ইত্তেফাক/কেকে

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
আরও
আরও
x