তৃতীয় দিনে সড়কে যানবাহন কম

তৃতীয় দিনে সড়কে যানবাহন কম
ছবি: ফোকাস বাংলা

করোনা ভাইরাসের বিস্তার ঠেকাতে কঠোর বিধি নিষেধের তৃতীয় দিনে শুক্রবার (১৬ এপ্রিল) রাজধানীতে যানবাহনের চাপ কম থাকলেও সড়কে বিচ্ছিন্নভাবে মানুষের বেশ উপস্থিতি ছিল। অনেকের মুখে মাস্ক ছিল না, সামাজিক দুরত্ব মেনেও চলেননি তারা। অন্য দিনের মতই নিম্নআয়ের মানুষ জীবিকার তাগিদে অনেকটাই বাধ্য হয়ে রাস্তায় নামছে। ফলে আইন- শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী অনেক সময় কঠোরও হতে পারছে না।

তবে কোথাও কোথাও যানবাহন দেখে সন্দেহ হলে চালকদেরকে লকডাউনের মধ্যে বের হওয়ার কারণ জানতে চেয়েছেন। এছাড়া সরকারি নির্দেশনা উপেক্ষা করে মোটরসাইকেল ও ব্যক্তিগত (প্রাইভেটকার, মাইক্রোবাস) গাড়ি নিয়ে চলাচলরত অনেকে পুলিশের চেকপোস্টে প্রশ্নের মুখে পড়েছেন। রাজধানীর রমনা, তেজগাঁও ও মতিঝিল এলাকায় সরেজমিনে এই চিত্র চোখে পড়েছে।

সাপ্তাহিক ছুটি শুক্রবার হওয়ায় গতকাল সকালের দিকে বাজারে ব্যাপক ভিড় ছিল। পাড়ামহল­ার অবস্থাও অনেকটা আগের মতোই। এখনও খোলা রয়েছে অনেক দোকানপাট, আগের মতই ঘোরাফেরা করছে মানুষ। বিশেষ করে বিকাল থেকে সন্ধ্যার পর বাইরে বের হচ্ছেন বহু মানুষ। গতকালও প্রধান সড়কগুলোতে পুলিশ ও র‌্যাবের টহল ছিল। পুলিশ ও র‌্যাবের চেকপোস্টে তল্লাশি হয়েছে।

মুভমেন্ট পাস ছাড়াই গত তিন দিনে রাস্তায় বের হওয়াসহ আইন অমান্যকারী দুই শতাধিক লোকজনকে জরিমানা করেছে পুলিশ। একই সঙ্গে নির্দেশনা মেনে না চললে সামনের দিনগুলোতে আরো কঠোর হওয়ার ঘোষণা দিয়েছে পুলিশ। আইজিপি ড. বেনজীর আহমেদ এরই মধ্যে বলেছেন, ‘লকডাউন কার্যকর করতে সরকার যে নির্দেশনা দিয়েছে তা বাস্তবায়নে সব সময়ই কঠোর পদক্ষেপ নেওয়া হবে। মুভমেন্ট পাস ছাড়া কাউকে বাড়ির বাইরে আসতে দেওয়া হবে না।’

মগবাজার, তেজগাঁও ও বাড্ডার বিভিন্ন সড়ক ঘুরে দেখা গেছে চেকপোস্টে পুলিশ সদস্যরা দাঁড়িয়ে থেকে মোটরসাইকেল ও প্রাইভেটকার দাঁড় করিয়ে বাইরে বের হওয়ার কারণ জানতে চান। ট্রাফিক পুলিশ সার্জেন্ট মো. নাহিদুর রহমান বলেন, চেকপোস্টে কি কারণে মানুষ রাস্তায় বের হয়েছে তা জানতে চাওয়া হচ্ছে। মানুষকে লকডাউনের মধ্যে ঘর থেকে বের হতে নিরুৎসাহিত করা হচ্ছে।

‘মুভমেন্ট পাস’ অ্যাপ চালুর ৪৬ ঘণ্টার মধ্যে প্রায় ১৬ কোটি হিট: লকডাউন চলাকালে যান চলাচল নিয়ন্ত্রণ ও মানুষের জরুরি প্রয়োজনে যাতায়েতের জন্য বাংলাদেশ পুলিশের উদ্যোগে চালু হওয়া মুভমেন্ট পাস অ্যাপটি চালু করার পর হতে প্রথম ৪৬ ঘণ্টায় প্রায় ১৬ কোটি মানুষ হিট করেছে। তাদের প্রদত্ত তথ্যের বিশ্লেষণ করে ৩ লাখ ১৬ হাজার ৮০১ জনকে মুভমেন্ট পাস ইস্যু করা হয়েছে।ওয়েবসাইটটিতে আরো দেখা যায়, একটি নির্দিষ্ট সময় ও নির্দিষ্ট গন্তব্যের জন্য এই ‘মুভমেন্ট পাস’ ইস্যু করা হয়। ওই সময় অতিবাহিত হলে কিংবা নির্ধারিত গন্তব্য থেকে অন্য কোথাও যেতে হলে পুনরায় এই মুভমেন্ট পাস ইস্যু করতে হবে। এই পাস কেবমমাত্র জরুরি প্রয়োজনে ব্যবহারযোগ্য।

ইত্তেফাক/এমএএম

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
আরও
আরও
x