করোনাকালেও সড়কে থাকতে হয় যাদের

করোনাকালেও সড়কে থাকতে হয় যাদের
দায়িত্বপালন করছেন ট্রাফিক পুলিশের সদস্যরা। ছবি: ইত্তেফাক

নগরীর যানজট নিয়ন্ত্রণসহ সড়কে শৃঙ্খলা ফেরাতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে ট্রাফিক পুলিশ। রোদ-বৃষ্টিসহ যেকোনো প্রাকৃতিক দুর্যোগে দায়িত্ব পালন করেন ট্রাফিক পুলিশের সদস্যরা। করোনার এ মহামারির সময়েও একইভাবে নিষ্ঠার সঙ্গে কাজ করে যাচ্ছেন আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর এ ফোর্সটি। নিজেদের সংক্রমণের কথা চিন্তা না করেই রাতদিন তারা অন্যদের সতর্ক করে যাচ্ছেন। নিয়ন্ত্রণ করছেন সড়কের যানজট।

রাজধানীর ব্যস্ততম মোড় কাওরান বাজারে গাড়িগুলোকে নিয়ন্ত্রণে এদিক সেদিক ছুটাছুটি করছেন তেজগাঁও ট্রাফিক জোনের কনস্টেবল নূর মোহাম্মদ। করোনাকালীন কীভাবে কাজ করছেন জানতে চাইলে এ ট্রাফিক সদস্য বলেন, আমার চাকরি বয়স ২৬ বছর। গত ১২ বছর ধরে এই এলাকায় কাজ করছি। করোনার এ সময়ে আমাদের তো অবসর নেই। নির্ধারিত দায়িত্ব পালন করার পরও মাঝেমধ্যে রাতে দায়িত্ব পালন করতে হয়। ছেলেমেয়ে নিয়ে থাকি। সারাদিন কাজ করে বাসায় ফিরি। সড়কে হাজার হাজার মানুষের সঙ্গে দেখা হচ্ছে। এমনও হতে পারে আমি আক্রান্ত হয়ে পরিবারকে বিপদে মুখে ফেলে দিতে পারি।

একইসুরে কথা বলেন আরেকজন কনস্টেবল মোস্তাফা কামাল। তিনি বলেন, চাকরি যখন করি কাজ তো করতেই হবে। রোদ থাকুক আর বৃষ্টি হোক কিংবা ঝড় আসুক আমাদের দায়িত্ব পালন করে যেতে হয়। গত বছর লকডাউনে দায়িত্ব পালন করেছি। এবারও পালন করে যাচ্ছি। নিজেও ভয়ে ভয়ে থাকি। আমাদের অনেকে করোনায় আক্রান্ত হচ্ছেন।

করোনা মহামারির এ সময়ে ট্রাফিক পুলিশের সার্বিক কাজের চিত্র জানতে চাইলে তেজগাঁও জোনের পুলিশ পরিদর্শক (ট্রাফিক) আনোয়ার কবির বলেন, করোনার এ মহামারির সময়ে আমরা সরকারের নির্দেশ মোতাবেক কাজ করে যাচ্ছি। আমরা চাই- জনসাধারণ যেন সুস্থ থাকে। তারা যেন অযথা ঘর থেকে বের না হয়।

পুলিশের এ কর্মকর্তা আরও বলেন, সরকারি চাকরি করে অনেকেই ছুটি কাটাচ্ছেন। ছেলে-মেয়ে নিয়ে বাসায় নিরাপদে আছেন। আমাদের কথা একবার চিন্তা করেন। নিজের বিপদ জেনেও সাধারণ মানুষের জন্য রাস্তায় দায়িত্ব পালন করছি। আমাদেরও তো বাসায় ছেলে-মেয়ে-সংসার আছে। দিনশেষে আমাদের কথাও চিন্তা হয়। অনেকে আমাদের সেবাকে নেতিবাচক হিসেবে দেখে। এই চিন্তা থেকে বেরিয়ে আসার আহ্বান জানাবো। সেই সঙ্গে করোনাকালে সবাইকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে। কারণ আপনি সর্তক হলে আপনার ঘরের আরও পাঁচজন সুস্থ থাকবে।

ইত্তেফাক/ইউবি

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
আরও
আরও
x