ফিরতি পথেও অতিরিক্ত ভাড়া ​ও নানা ভোগান্তি

ফিরতি পথেও অতিরিক্ত ভাড়া ​ও নানা ভোগান্তি
ছবি: আব্দুল গনি

করোনাভাইরাসের সংক্রমণরোধে চলমান কঠোর বিধিনিষেধের মধ্যে আগামীকাল রবিবার (১ আগস্ট) থেকে রফতানিমুখী শিল্প-কারখানা খুলে দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছে সরকার। এ খবরে আজ সড়ক, মহাসড়ক ও ফেরিঘাটগুলোতে ঢাকামুখী যাত্রীদের ভিড় বেড়েছে। গণপরিবহন বন্ধ থাকায় তারা ছোট ছোট যানে ও পায়ে হেঁটে গন্তব্যের উদ্দেশে রওনা হয়েছেন। রাজধানীতে ফেরা মানুষকে পোহাতে হচ্ছে নানা ভোগান্তি। সেইসঙ্গে গুনতে হচ্ছে অতিরিক্ত ভাড়া।

ভোগান্তি আর অতিরিক্ত ভাড়ায় ঢাকায় ঢুকছে মানুষ

আজ শনিবার (৩১ জুলাই) দেশের দক্ষিণ অঞ্চলের প্রবেশপথ ঢাকার বাবুবাজার ব্রিজের আশপাশের এলাকায় এ চিত্র দেখা গেছে। রিকশা ও পিকআপ ভ্যানে করে মানুষ রাজধানীতে ঢুকছে। দলে দলে হেঁটেও ঢাকায় ঢুকছে মানুষ।

সকাল থেকে সাইনবোর্ড এলাকায় দেশের বিভিন্ন জেলা থেকে ঢাকায় ফেরা মানুষের ভিড় লেগে আছে। তাদের হাতে-মাথায়-কাঁধে ব্যাগ। তাদের মধ্যে অসংখ্য নারী-শিশু।

গার্মেন্টসে কাজ শরিফুল ইসলাম। আজ ঢাকায় ফেরাদের একজন তিনি। তিনি বলেন, ‌‘আগামীকাল (১ আগস্ট) থেকে গার্মেন্টস খুলবে। চাকরি বাঁচাতে মাদারীপুর থেকে লকডাউনের মধ্যেই ঢাকায় ফিরতে হচ্ছে। লকডাউন চলছে, তাই রাস্তায় বাস নেই। ছোট ছোট গাড়িতে ভেঙে ভেঙে এসেছি। ভোগান্তি ও ভাড়া দুটোই বেশি গেছে।’

রাকিব ও সামসুন্নাহার এসেছেন চাঁদপুর থেকে। রাকিব বলেন, ‘আমরা থাকি নারায়ণগঞ্জে। সেখানে গার্মেন্টসে কাজ করি। ভাইঙা ভাইঙা অনেক কষ্ট করে আসছি।’

সাইনবোর্ড চেকপোস্টে দায়িত্ব পালন করা যাত্রাবাড়ী থানার পুলিশ পরিদর্শক (অপারেশন) আয়ান মাহমুদ দীপ বলেন, ‘আমি বিধিনিষেধের প্রথম দিন থেকেই এখানে ডিউটি করছি। এত মানুষের ভিড় আর দেখিনি। আজ ঢাকাগামী মানুষের ঢল নেমেছে। এখানে কোনো গাড়ি নেই। এত মানুষ কীভাবে আটকাবো! এরা সবাই প্রায় খেটে খাওয়া সাধারণ মানুষ। গার্মেন্টস খুলে দেওয়া হয়েছে, এজন্যই এই ভিড় বলে মনে হচ্ছে।’

ইত্তেফাক/কেকে

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
আরও
আরও
x