‘সঠিক চিকিৎসায় দীর্ঘমেয়াদি আর্থ্রাইটিসেও আরোগ্য মেলে’

বিশ্ব আর্থ্রাইটিস দিবসের আলোচনা সভা
‘সঠিক চিকিৎসায় দীর্ঘমেয়াদি আর্থ্রাইটিসেও আরোগ্য মেলে’
[ছবি: সংগৃহীত]

বঙ্গবন্ধুু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ডা. মো. শারফুদ্দিন আহমেদ বলেছেন, মানুষের শরীরের জয়েন্টে ব্যথা এখন সঠিক চিকিৎসার মাধ্যমে ভালো হচ্ছে। এটি একটি ক্রনিক বা দীর্ঘমেয়াদি রোগ, যা থেকে পৃথিবীতে কোটি কোটি মানুষ অসুস্থ থাকায় অর্থনৈতিক কার্যক্রমে বিশাল ক্ষতির কারণ হচ্ছে। এসব বিষয়ে চিকিৎসা ও গবেষণা বাড়াতে হবে। মঙ্গলবার (১২ অক্টোবর) বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ে রিউমাটোলজি বিভাগ ও ফিজিক্যাল মেডিসিন অ্যান্ড রিহ্যাবিলিটেশন বিভাগের উদ্যোগে বিশ্ব আর্থ্রাইটিস দিবসের আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। এ বছর দিবসের প্রতিপাদ্য ছিল, ‘আর নয় দেরি সম্পৃক্ত হই আজই, বিশ্ব আর্থ্রাইটিস দিবস’।

বক্তারা বলেন, সমগ্র বিশ্বে প্রায় ২২ দশমিক ৭ শতাংশ (৫৪ দশমিক ৪ মিলিয়ন) প্রাপ্তবয়স্ক মানুষ আর্থ্রাইটিস বা বাত রোগে আক্রান্ত। এর মধ্যে ২৩ দশমিক ৫ শতাংশ পুরুষ এবং ১৮ দশমিক ১ শতাংশ নারী। বাত রোগ অন্য সাধারণ রোগের মতো শুধু ওষুধ দিয়ে চিকিত্সা করে এর ভয়াবহতা এড়ানো সম্ভব নয়। এটা শুধু শারীরিকভাবেই পঙ্গুত্ব তৈরি করে না; বরং মানসিক ও সামাজিকভাবেও রোগীকে হীনম্মন্যতায় ফেলে দেয়।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন মেডিসিন অনুষদের ডিন অধ্যাপক ডা. মাসুদা বেগম, ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব নিউরো সাইন্স অ্যান্ড হসপিটালের পরিচালক অধ্যাপক ডা. কাজী দীন মোহাম্মদ, রিউমাটোলজি বিভাগের অধ্যাপক ডা. মো. নজরুল ইসলাম, ফিজিক্যাল মেডিসিন অ্যান্ড রিহ্যাবিলিটেশন বিভাগের অধ্যাপক ডা. সৈয়দ মোজাফফর আহমেদ। সভাপতিত্ব করেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের রিউমাটোলজি বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. মিনহাজ রহিম চৌধুরী ও ফিজিক্যাল মেডিসিন অ্যান্ড রিহ্যাবিলিটেশন বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. মো. এ কে এম সালেক। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন অধ্যাপক ডা. মো. আবু শাহীন, সঞ্চালনা করেন সহকারী অধ্যাপক ডা. আবুল খায়ের আহমেদুল্লাহ।

উল্লেখ্য, বাত রোগের ভয়াবহতা মোকাবিলার লক্ষ্যে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের ফিজিক্যাল মেডিসিন অ্যান্ড রিহ্যাবিলিটেশন বিভাগে এ রোগে আক্রান্ত রোগীদের চিকিত্সা, পুনর্বাসন ও জীবনযাত্রার সঙ্গে অভিযোজনের জন্য সহযোগী অধ্যাপক ডা. মশিউর রহমান খসরুর তত্ত্বাবধানে রিউম্যাটোলজি রিহ্যাবিলিটেশন ক্লিনিক পরিচালনা করা হয়। যেখানে মঙ্গলবার সকাল ৯টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত বিনামূল্যে বাত রোগে আক্রান্ত রোগীদের চিকিত্সা দেওয়া হয়। বাত রোগের চিকিত্সা ও জটিলতা সম্বন্ধে জনসচেতনতা সৃষ্টির লক্ষ্যে ১৯৯৬ সাল থেকে প্রতি বছর ১২ অক্টোবর, বিশ্ব আর্থ্রাইটিস দিবস পালিত হয়ে আসছে। দিবসটি উপলক্ষে বাত রোগের চিকিত্সাবিষয়ক বইয়ের মোড়ক উন্মোচন করেন উপাচার্য। এ সময় রিউমাটোলজি বিভাগের ও ফিজিক্যাল মেডিসিন অ্যান্ড রিহ্যাবিলিটেশনের শিক্ষক, চিকিত্সক, শিক্ষার্থী, কর্মকর্তা, কর্মচারীরা উপস্থিত ছিলেন।

ইত্তেফাক/টিএ

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
আরও
আরও
x